default-image

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক ও পরিবেশক সমিতি ২০১৯-২১ মেয়াদে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ এনে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে অভিযোগ করেন চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক, চিত্রনায়ক ও প্রযোজক জায়েদ খান। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে কার্যনির্বাহী পরিষদের কমিটি বাতিল করে প্রশাসক নিয়োগ দিয়েছে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়। এমনকি নিষিদ্ধ থাকা জায়েদ খানের কাজে ফেরার ব্যাপারে এখন আর কোনো বাধা নেই বলে জানা গেছে। বিষয়টিকে মোটেও ভালোভাবে নেয়নি চলচ্চিত্রের অন্যসব সংগঠন। ক্ষোভ নিয়ে পরিচালক সমিতির সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম খোকন বললেন, ‘কাজটি জায়েদ খান মোটেও ঠিক করেননি। তাঁকে নিয়ে কাজ করার তো কোনো প্রশ্নই আসে না। আমরা পরিচালক সমিতির কোনো সদস্যই তাঁকে নিয়ে কখনোই কাজ করব না, এই সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত।’

বিজ্ঞাপন
default-image

বদিউল আলম খোকন বললেন, ‘প্রযোজকেরা আমাদের কাছে কোনো ছবির প্রস্তাব নিয়ে এলে, বাজেট ১ কোটির নিচে হলে শাকিব খান ছাড়া অন্য নায়কের কথা প্রস্তাব করি। ২ কোটি টাকা হলে তখন শাকিব খানকে নিয়ে আলোচনা করি। শাকিব খানের মতো নায়ককে নিয়ে ছবি বানাতে হলে অন্তত ২ কোটি টাকা লাগেই। আমার দীর্ঘদিনের ফিল্মি ক্যারিয়ারে কোনো প্রযোজকই জায়েদ খানকে দিয়ে সিনেমা বানাতে চান, এমনটা বলতে শুনিনি। এমনকি অন্য পরিচালকেরাও যে বলেছে তা জানা নেই। জায়েদ খান আজ পর্যন্ত যে কয়েকটা ছবিতে অভিনয় করেছেন, হয় তিনি প্রযোজক জোগাড় করে এনেছেন, না হয় নিজেই প্রযোজক ছিলেন। এমন চিত্রনায়কের সঙ্গে কাজ করার ক্ষেত্রে বাধা থাকলেও যা, না থাকলেও তা। আমাদের চলচ্চিত্রের সব সংগঠন বিষয়টি মোটেও ভালোভাবে নেয়নি।’
বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, সংগঠনটির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু এবং সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলম বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক ও পরিবেশক সমিতির সংঘবিধি ও সংঘস্মারকের ধারা ৫(৫) লঙ্ঘনক্রমে এবং মহামান্য হাইকোর্টের আদেশ অমান্য করে ২০১৯-২০২১ মেয়াদে কার্যনির্বাহী কমিটিতে সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচন করেছেন, বিষয়টি তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে। সমিতির কার্যক্রম সঠিকভাবে পরিচালনা ও নির্বাচন অনুষ্ঠানের স্বার্থে বাণিজ্য সংগঠন অধ্যাদেশ, ১৯৬১ এর ১০ ধারা মোতাবেক বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব খন্দকার নূরুল হককে সংগঠনের প্রশাসকের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

default-image

এ নিয়ে কথা বলতে প্রযোজক ও পরিবেশক সমিতির নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তাঁরা জানান, প্রযোজক সমিতির বর্তমান কমিটি বাতিল হওয়ার কথা তারা শুনেছেন। কিন্তু এখনো কোনো চিঠি পাননি। সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম বলেন, ‘বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ৭ জন কর্মকর্তা এসে সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে আমাদের হাতে দায়িত্ব তুলে দিয়ে গেছেন। আমরা দায়িত্ব নেওয়ার ১ বছর ৪ মাস পর এসে ২০১৬-১৮ সালের কাগজ দেখিয়ে অবৈধ ঘোষণা করা হচ্ছে। তাঁরা কি তবে অবৈধ নির্বাচন করে দিয়ে গেলেন? যা হয়েছে, সেটা মোটেও সঠিক না। আমরা বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে দ্রুত আপিল করব। বিষয়টি যে মিথ্যা, দ্রুত প্রমাণিত হবে।’
সম্প্রতি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক-পরিবেশক সমিতি জায়েদ খানের সদস্যপদ সাময়িকভাবে স্থগিত করে। সংগঠন থেকে তখন দুই দফা তাঁকে প্রযোজক সমিতির স্বার্থবিরোধী কাজে যুক্ত থাকার অভিযোগে চিঠি দেওয়া হয়। সেসব চিঠির জবাবও দিয়েছিলেন জায়েদ, কিন্তু সেই জবাব যুক্তিসংগত মনে হয়নি সমিতির নেতাদের। জায়েদ খান জানান, মিথ্যা এবং অন্যায়ভাবে তাঁর সদস্যপদ বাতিল করায় তিনি ন্যায়বিচার চেয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে আবেদন করেন। বললেন, ‘প্রযোজক সমিতির উচিত ছিল কারও পেছনে না লেগে চলচ্চিত্রের জন্য কাজ করা। সেটা না করে তারা অন্যায়ভাবে তথ্য লুকিয়ে আইনের হাত থেকে রক্ষা পেতে চেয়েছিল। তারা যা করেছে, সেটা খুবই দুঃখজনক এবং নীতিহীন। তাদের হিংস্র আচরণে আমি কষ্ট পেয়েছি। এখন সবকিছু দিনের আলোর মতো পরিষ্কার হয়ে গেল। আমি নির্দোষ।’

বিজ্ঞাপন
default-image

পরিচালক সমিতির সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম খোকন বলেন, ‘প্রযোজক সমিতির উচিত কারও পেছনে না লেগে চলচ্চিত্রের জন্য কাজ করা, এমন কথা জায়েদ খানের মুখে মোটেও মানায় না। কয়েক বছর নির্বাচনের মাধ্যমে চলচ্চিত্রে কার্যকর প্রযোজক-পরিবেশক সমিতি তৈরি হওয়ার পর চলচ্চিত্রে অসাধারণ কিছু উদ্যোগ নেওয়া হয়। কিছু বাস্তবায়নের পথে আর কিছু খুব শিগগিরই হবে। আমি তো বলব, জায়েদ সব সময় চলচ্চিত্রের সবার মধ্যে বিভেদ তৈরির চেষ্টা করেন, যা আমাদের চলচ্চিত্রের ইতিহাসে কখনোই হয়নি। চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি কখনোই এতটা বিতর্কিত হয়নি, যা গত দুই মেয়াদে হচ্ছে। প্রকৃত শিল্পীদের মধ্যে একটা দূরত্ব তৈরির চেষ্টা প্রতিনিয়ত করেন এই জায়েদ খান। এতে দেশের বরেণ্য শিল্পীদের পাশাপাশি প্রকৃত শিল্পীদের ব্যাপারে সাধারণ মানুষ ও ভক্তদের কাছে নেতিবাচক ভাবমূর্তি তৈরি হচ্ছে। সুনাম নষ্ট হচ্ছে। এখনো সময় আছে, এসব বিষয়ে প্রকৃত শিল্পীদেরও কঠোর হওয়ার।’

মন্তব্য পড়ুন 0