‘রূপবান’খ্যাত অভিনেত্রী সুজাতা
‘রূপবান’খ্যাত অভিনেত্রী সুজাতা ছবি: সংগৃহীত

হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরেছেন চলচ্চিত্র অভিনেত্রী সালমা বেগম সুজাতা। চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, বাসায় গেলেও বেশ কয়েক দিন তাঁকে ডাক্তারের পর্যবেক্ষণে থাকতে হবে। প্রতি সপ্তাহে হাসপাতালে গিয়ে চেকআপ করিয়ে আসতে হবে। আগামী তিন মাস জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হতে নিষেধ করেছেন চিকিৎসকেরা। তাঁকে সম্পূর্ণ বিশ্রামে থাকতে হবে। গত বুধবার তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন।
এসব তথ্য দিয়েছেন সুজাতার নাতি ফারদিন আজিম। তিনি আরও জানান, ২৫ নভেম্বর সকালে অসুস্থ হয়ে পড়লে সুজাতাকে তাঁরা হাসপাতালে নিয়ে যান। হাসপাতালে নিতে একটু দেরি হলেই বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটত বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক। সুজাতার শারীরিক অবস্থা নিয়ে এখনো চিন্তিত তাঁর পরিবার। ফারদিন বলেন, ‘দাদি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন। আগে থেকেই তাঁর উচ্চ রক্তচাপ ছিল। বয়স বেড়ে গেছে। ইউরিক অ্যাসিডের কারণে শরীরে অনেক ব্যথা ছিল।’

বিজ্ঞাপন
default-image

ফারদিন আরও জানান, প্রতি সপ্তাহে নিয়মিত ডাক্তারের কাছে গিয়ে চেকআপ করতে হবে। এভাবে তিন মাস তাঁকে পর্যবেক্ষণে রাখা হবে। পারিবারিক কিছু সমস্যা নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে সুজাতা খুব চিন্তিত ছিলেন। অনেক সময় ঠিকমতো ঘুমাতেন না। নিয়মিত খাওয়াদাওয়াও করতেন না। দুশ্চিন্তা এবং খাওয়াদাওয়ায় অনিয়মের কারণে অসুস্থ হয়ে পড়েন এই চিত্রাভিনেত্রী।
গত ২৫ নভেম্বর সকালে হঠাৎ বুকে ব্যথা শুরু হয় সুজাতার। ব্যথা বাড়লে সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে রাজধানীর মিরপুরের ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালে নেওয়া হয়। প্রাথমিক পরীক্ষা–নিরীক্ষা শেষে চিকিৎসকেরা জানান, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন তিনি। সুজাতাকে পর্যবেক্ষণের জন্য চার দিনের মতো হাসপাতালে রাখা হয়। রোববার রাতে তিনি বাসায় ফিরেছেন।
এই অভিনেত্রী ঢাকার পশ্চিম রামপুরার মহানগর আবাসিক এলাকায় থাকেন। তাঁর সঙ্গে থাকেন ছেলে ফয়সাল আজিম, তাঁর ছেলের স্ত্রী আর দুই নাতি ফারদিন ও আবিয়াজ। জানা গেছে, এর আগে তিনি অসুস্থ ছিলেন না। করোনাকালে বেশির ভাগ সময় তিনি বাসায়ই ছিলেন। তখন তিনি নিজের অভিজ্ঞতা নিয়ে লেখালেখি করেছেন।

পাঁচ দশক আগে তিনি চলচ্চিত্রে নাম লেখান। সিনেমায় খুব একটা নিয়মিত না হলেও টেলিভিশন নাটকে তাঁকে এখনো মাঝেমধ্যে দেখা যায়। সুজাতার পারিবারিক নাম তন্দ্রা মজুমদার। কুষ্টিয়ার এক জমিদার পরিবারে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৬০ সালের দিকে দাঙ্গা শুরু হলে পরিবারসহ ঢাকায় চলে আসেন তাঁরা। ঢাকায় এসে নাটক ও থিয়েটারের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন সুজাতা। অভিনয়ের ক্ষেত্রে তাঁর মা খুব সহযোগিতা করতেন।

default-image

মঞ্চে আমজাদ হোসেনের ‘মায়ামৃগ’ নাটকে কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করার সময় পরিচালক সালাউদ্দিনের চোখে পড়েন তিনি। এই পরিচালক তখন ‘ধারাপাত’ ছবির নায়িকা খুঁজছিলেন। নাটকে সুজাতার অভিনয় দেখে পরিচালক তাঁর ছবিতে অভিনয়ের সুযোগ দেন। সিনেমায় অভিনয়ে আসার পরে পরিচালক সালাউদ্দিন তাঁর নাম বদলে দেন সুজাতা। বড় পর্দায় সুজাতা প্রথম অভিনয় করেন ‘দুই দিগন্ত’ ছবিতে, নাচের দৃশ্যে। তবে প্রেক্ষাগৃহে প্রথম মুক্তি পায় ‘ধারাপাত’। সুজাতার জীবন আমূল বদলে দেয় ১৯৬৫ সালে মুক্তি পাওয়া লোককাহিনিনির্ভর ছবি ‘রূপবান’, যা আজও একটা ইতিহাস। সুজাতার স্বামী অভিনয়শিল্পী, পরিচালক ও প্রযোজক আজিম মারা গেছেন ২০০৩ সালে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন