নুসরাত ফারিয়া, অপূর্ব, পরীমনি,সজল, আফরান নিশো ও মাহীা–বছরজুড়ে স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্মের জন্য এই তারকারা জুটি বেঁধে অভিনয় করবেন
নুসরাত ফারিয়া, অপূর্ব, পরীমনি,সজল, আফরান নিশো ও মাহীা–বছরজুড়ে স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্মের জন্য এই তারকারা জুটি বেঁধে অভিনয় করবেনকোলাজ : আমিনুল ইসলাম

দুই পর্দার তারকাদের মিলন ঘটবে এবার। বছরজুড়ে স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্মের জন্য এই তারকারা জুটি বেঁধে অভিনয় করবেন। বিনোদনসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের মতে, কনটেন্টে বৈচিত্র্য আনতে এ উদ্যোগ নিয়েছেন নির্মাতারা। এতে ধীরে ধীরে কনটেন্টের মানও বাড়বে।
বৈশ্বিক বাজারে দর্শকের মনোযোগ টানতে ছোট ও বড়—দুই পর্দারই তারকাদের যুক্ত করছেন নির্মাতারা। তাঁদের দেখা যাবে ওয়েব সিরিজ ও ওয়েব ফিল্মে। ‘মরীচিকা’ ওয়েব সিরিজে অভিনয় করছেন বড় পর্দার অভিনয়শিল্পী মাহিয়া মাহি, সিয়াম আহমেদ, ছোট পর্দার অভিনেতা আফরান নিশো, জোভান আহমেদ প্রমুখ।

default-image

বঙ্গ নিয়ে আসছে বড় পর্দার অভিনশিল্পী পরীমনি ও ছোট পর্দার সজল আহমদকে নিয়ে ‘পাফ ড্যাডি’। ‘যদি কিন্তু তবুও’ ওয়েব ফিল্মে একসঙ্গে অভিনয় করছেন চিত্রনায়িকা নুসরাত ফারিয়া ও টেলিভিশনের অভিনয়শিল্পী অপূর্ব। ‘কন্ট্রাক্ট’ ওয়েব সিরিজে অভিনয় করেছেন আরিফিন শুভ ও বিদ্যা সিনহা মিম। এ ছাড়া জাহিদ হাসান, মোশাররফ করিম, তাহসান খান, জাকিয়া বারী মম, তানজিন তিশা, শ্যামল মাওলা, আঁচল, নীরব, অর্চিতা স্পর্শিয়াসহ ছোট ও বড় পর্দার একাধিক তারকাকে স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্মের কনটেন্টগুলোতে দেখা যাবে।

বিজ্ঞাপন
default-image

স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম চরকির প্রধান নির্বাহী রেদওয়ান রনি বলেন, ‘তারকাদের এই মিলনমেলা চলচ্চিত্র কিংবা নাটকে দেখা যায়নি অতটা। স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম একটি নতুন মাধ্যম। এখানে নানা রকম নিরীক্ষা হয়। পৃথিবীর বিভিন্ন ইন্ডাস্ট্রিতে নতুনভাবে তারকাদের নিয়ে কাজ করা হচ্ছে। এই প্ল্যাটফর্মগুলোতে মেইনস্ট্রিমের পাশাপাশি টেলিভিশন, চলচ্চিত্র, থিয়েটারে যাঁরা ভালো অভিনয় করেন; তাঁরাও জায়গা করে নিচ্ছেন।’
শিহাব শাহীনের পরিচালনায় ‘যদি কিন্তু তবুও’ ওয়েব ফিল্ম নিয়ে ব্যস্ত নুসরাত ফারিয়া। তিনি মনে করেন, বড় ও ছোট পর্দার পার্থক্য করাটা ভুল হবে। কারণ, এখন সবাইকে গ্লোবাল প্ল্যাটফর্মের জন্য কাজ করতে হচ্ছে। তিনি বলেন, ‘তারিক আনাম ভাই, অপূর্ব ভাইদের সাধারণত টেলিভিশনের পর্দায় দেখা যায়। আবার আমাকে চলচ্চিত্রের পর্দায় দেখা যায়। এই যে দুইটা ভিন্ন মিডিয়ামের অভিনয়শিল্পী একসঙ্গে কাজ করছি, এটা নিয়ে দর্শকের আগ্রহ থাকবেই। শুটিংয়ের সময় অনেকেই বলছে, এটা তথাকথিত সিনেমা থেকে আলাদা হবে।’

default-image

নির্মাতা শিহাব শাহীন বলেন, ‘গল্পের চরিত্র অনুযায়ী যাঁকে ডিমান্ড করে, তাঁকেই নেওয়া হয়। সেখানে ছোট বা বড় পর্দার অভিনয়শিল্পী বলে কিছু নেই। সারা বিশ্বের দর্শক ব্যতিক্রম কনটেন্ট পছন্দ করেন। অভিনয়শিল্পীর এই বৈচিত্র্য দর্শক টানবে বলে মনে করি। এখন গ্লোবাল মার্কেটের কথা ভেবে আমাদের কাজ করতে হচ্ছে। বাজেট–স্বল্পতার কারণে আগে সব তারকাকে এক জায়গায় করা সম্ভব হতো না। এখন বাজেট কিছুটা বাড়ায় প্রয়োজনীয় তারকাদের নিয়ে কাজ করা যায়। এ চর্চা অব্যাহত থাকলে ভালো অভিনয়শিল্পীও তৈরি হবে। দুই ইন্ডাস্ট্রিই এগিয়ে যাবে।’

default-image

চলচ্চিত্র বিশ্লেষক ও নির্মাতা মতিন রহমান জানান, একসময় টেলিভিশন ইন্ডাস্ট্রির অভিনয়শিল্পীরা মনে করতেন, সিনেমায় অভিনয় করলে মর্যাদার হানি হবে। তাঁরা মনে করতেন, চলচ্চিত্র মানেই খোলামেলা নাচ-গান। এই প্রেক্ষাপটে ১৯৭৮ সালে আবদুল্লাহ আল–মামুন পরিচালিত ‘সারেং বৌ’ ছিল একটি বিপ্লব। নাটকের এই নির্মাতা কবরী ও নায়ক ফারুককে নিয়ে ছবি বানিয়ে আলোচনা তৈরি করেছিলেন। পরে চলচ্চিত্র পরিচালক কাজী জহির ‘নতুন বৌ’ ছবিতে আফজাল হোসেন ও সুবর্ণা মুস্তাফাকে কাস্ট করেন।

বিজ্ঞাপন
default-image

চলচ্চিত্রে হুমায়ুন ফরীদির দাপুটে আবির্ভাবের পরে টেলিভিশনের শিল্পীরা অনায়াসে বড় পর্দায় আসা শুরু করেন। তিনি বলেন, ‘শিল্পীর কোনো সীমারেখা নেই। যেকোনো মাধ্যমেই শিল্পীরা কাজ করতে পারেন। একসঙ্গে কাজ করার কারণে সব দর্শক এক প্ল্যাটফর্মে প্রিয় তারকাকে দেখতে পাবেন। একসঙ্গে পর্দা ভাগাভাগির কারণে ছোট পর্দার অনেক তারকার বড় পর্দায় চাহিদা তৈরি হবে।’
সবকিছু মিলে দুই পর্দার অভিনয়শিল্পীদের একসঙ্গে অভিনয়কে ইতিবাচক দৃষ্টিতেই দেখছেন বিনোদন অঙ্গনের মানুষেরা। স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্মগুলোতেও তাই দর্শকের আগ্রহ বাড়ছে দিন দিন।

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন