বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ফয়সাল আহমেদ পরিচালিত ওই ছবির সিকুয়েল ‘মিশন একট্রিম টু’ ছবির শুটিংও শেষ। এ চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেছেন ঐশী। গত বছরের রোজার ঈদে ‘মিশন এক্সট্রিম’ মুক্তির মধ্য দিয়ে বড় পর্দায় তাঁর অভিষেক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সে স্বপ্ন পূরণে বাধা হয়ে দাঁড়ায় করোনা। কারণ, সিনেমা হল ছিল বন্ধ। প্রথম চুক্তি হওয়া সেই চলচ্চিত্রই মুক্তি পাচ্ছে ৩ ডিসেম্বর। অন্যদিকে মীর সাব্বির পরিচালিত সরকারি অনুদানের ছবি ‘রাত জাগা ফুল’ তাঁর চুক্তিবদ্ধ হওয়া ৪ নম্বর চলচ্চিত্র, যেটি মুক্তি পাচ্ছে একই মাসের শেষ শুক্রবার।

default-image

সুযোগ থাকলেও দুটি চলচ্চিত্রের একটিও এখন পর্যন্ত দেখেননি ঐশী। কারণ, মনে মনে ঠিক করে রেখেছেন, দর্শকের সঙ্গে প্রেক্ষাগৃহে বসেই ছবিটি দেখবেন। শুধু ঐশীই নন, চলচ্চিত্রে তাঁকে দেখার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন তাঁর মা, আত্মীয়স্বজন, বন্ধুবান্ধব—সবাই।

ঐশী বললেন, ‘আমি সত্যিই অনেক এক্সাইটেড। একই সঙ্গে নার্ভাসও। অনেকে ছবির ট্রেলার প্রকাশের পর ফোন করে যেভাবে উৎসাহ ও আগ্রহ দেখিয়েছে, তাতে ভয়ও লাগছে। আমার আম্মু একদম চাইল্ডিশ, তিনি আমার চেয়েও বেশি এক্সাইটেড। ইচ্ছা আছে, প্রিমিয়ারে মা–সহ প্রথম ছবিটি প্রেক্ষাগৃহে বসে দেখব। নিজেকে পর্দায় দেখার জন্য মুখিয়ে আছি।’

default-image

ঐশী জানালেন, এই মাসের মাঝামাঝি থেকে ‘মিশন এক্সট্রিম’ চলচ্চিত্রের প্রচারণায় নেমে পড়বেন। এরপর ‘রাত জাগা ফুল’ ছবির প্রচারণাও করবেন। তাই দুটি চলচ্চিত্রের জন্য দেড় মাস ব্যস্ত সময় কাটবে। ঐশী এখন রায়হান রাফি পরিচালিত ‘নূর’ চলচ্চিত্রের শুটিং করছেন। মুক্তির অপেক্ষায় ‘আদম’ ও ‘মিশন এক্সট্রিম টু’।

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন