default-image

দুই দশক আগে ‘অনন্ত ভালোবাসা’ ছবির মধ্য দিয়ে ঢালিউডে অভিষেক ঘটে শাকিব খানের। প্রথম ছবিতে আলোচনায় এলেও নিজের ঢালিউডে নিজের শক্ত অবস্থান করতে শাকিবের অপেক্ষা করতে হয় কয়েক বছর। পরিশ্রম, চলচ্চিত্রের প্রতি ভালোবাসা ও ছবিগুলোর ব্যবসায়িক সফলতায় অভিষেকের কয়েক বছরে তাঁকে এনে দেয় প্রথম সারিতে। একের পর এক নতুন সব ছবিতে অভিনয় দিয়ে শাকিব খান সেই যে প্রথম সারিতে জায়গা করে নিলেন, গেল দেড় দশকে সেখানেই আছেন।

চলচ্চিত্রে অভিষেক হওয়া শাকিব খান দুই বছর পরই প্রথম ঈদ উৎসবের দেখা পান। সেবার ঈদুল আজহায় মুক্তি পায় তাঁর দুটি চলচ্চিত্র ‘হিরা চুন্নি পান্না’ এবং ‘জানের জান’। একই বছরের ঈদুল ফিতরে মুক্তি পায় ‘ফুল নেবো না অশ্রু নেব’।

default-image

টানা ৪ বছর দুই ঈদেই মুক্তি পায় শাকিবের চলচ্চিত্র। কোনো ঈদে দুটি ছবি আবার কোনো ঈদে তিনটি। ২০০৫ সালে ছন্দপতন হয়, ঈদুল ফিতরে দুটি ছবি ‘বাঁধা ’এবং ‘লালু কসাই’ মুক্তি পেলেও ঈদুল আজহায় নতুন ছবি মুক্তির দিক দিয়ে প্রেক্ষাগৃহ ছিল শাকিবশূন্য। তবে পুরোনো ছবি ঠিকই চালিয়েছিল প্রেক্ষাগৃহ মালিকেরা। সেই ২০০৫–এর পর ২০২২ এ এসে একই ঘটনার পুনরাবৃতি ঘটল। এ বছরের ঈদুল ফিতরে দুটি ছবি ‘গলুই’ ও ‘বিদ্রোহী’ মুক্তি পেলেও ঈদুল আজহা যাচ্ছে শাকিবের নতুন ছবি ছাড়া। পুরোনো ছবিতে আশার আলো দেখছেন কোনো কোনো প্রেক্ষাগৃহ মালিক। এই ঈদেও তাঁর দুটি পুরোনো চলচ্চিত্র ‘গলুই’ ও ‘বিদ্রোহী’ মুক্তি পাচ্ছে ২০টির বেশি প্রেক্ষাগৃহে।

default-image

শাকিব খান এখন আছেন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে। ঈদে নিজের নতুন ছবি না থাকার কারণে তাঁরও মন খারাপ। বললেন, ‘ঈদ আমাদের বড় উৎসব। তাঁরা আমাকে নতুন ছবিতে মিস করবে, এটা ভেবে নিঃসন্দেহে খারাপ লাগছে। তবে লিডার আমিই বাংলাদেশ ছবিটি মুক্তি দিলে প্রযোজকেরা লাভবানই হতেন।’

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন