বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

মিশা সওদাগর বলেন, ‘আমাদের খেলার ঐতিহ্যটা আবার ফিরিয়ে আনতে হবে। ধর্ম–বর্ণনির্বিশেষে একসঙ্গে খেলায় সম্প্রীতি বাড়ে। এতে তরুণের একে অন্যের সঙ্গে সম্পর্ক বিল্ডআপ হবে। খেলা এবং সাংস্কৃতিক চর্চা নৈতিকতার শিক্ষা দেয়।’ এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘গতকাল ২৯ অক্টোবর আমাদের জাতীয় ক্রিকেট দল হেরেছে। এ নিয়ে অনেকে তাদের বকা দিচ্ছেন। এটা ঠিক না। কারণ তাঁরা জেতার জন্যই খেলেন। ভালো করতে তাঁদের উৎসাহ দেওয়া উচিত।’

default-image

মিডফিল্ডার হিসেবে খেলায় অংশ নিয়েছিলেন জায়েদ খান। তিনি বলেন, ‘বিকেল হলেই খেলা, সেই চলটা এখন উঠে গেছে। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, কিশোরেরা খেলায় মেতে থাকলে দেশে অপরাধ এমনিতেই অনেক কমবে। কারণ তারা খেলা নিয়েই ভাববে। তখন মস্তিষ্ক বিকৃতির সুযোগ কম থাকে।’ হেসে এই অভিনেতা বলেন, ‘আমরা বুঝে ওঠার আগেই দুটি গোলে পিছিয়ে পড়ি। পরে অবশ্য ভালো খেলেছি, কিন্তু গোল দিতে পারিনি।’

default-image

শারীরিক অবস্থা বিবেচনায় খেলায় অংশ নেননি ডিপজল। তিনিসহ মঞ্চে ছিলেন অভিনেত্রী সিমলা, শিরিন শিলা প্রমুখ।

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন