পড়তে বসলেই ঘুম আসে মাহির

আজ ‘নবাব এলএলবি’ ছবির শুটিংয়ে যোগ দেবেন মাহি। এ ছবির পরই শুরু হবে তাঁর ‘আশীর্বাদ’ ছবির কাজ। এর ফাঁকে কটা দিন তিনি বাড়িতে কাটিয়েছেন। বিশ্রাম, আলস্যের পাশাপাশি ছবিগুলোর চিত্রনাট্য পড়েছেন।

হুমায়ূন আহমেদের গল্পে কাজ করতে আগ্রহী মাহি
হুমায়ূন আহমেদের গল্পে কাজ করতে আগ্রহী মাহিপ্রথম আলো
বিজ্ঞাপন

‘পড়তে বসলে ঘুম আসে’ দলের এক গর্বিত সদস্য নায়িকা মাহিয়া মাহি! তবে তাঁর বিষয়টা একটু ভিন্ন। এখন কর্মজীবনে তাঁকে পড়তে হয় সিনেমার চিত্রনাট্য। আর এ চিত্রনাট্য পড়তে বসলেই আলস্যে ঘুম চলে আসে ‘অগ্নি’ ছবি থেকে পরিচিতি পাওয়া ঢালিউড তারকা মাহিয়া মাহির। ফলত, দিনের ঘুম তাড়াতে পড়া থেকে দূরে থাকেন তিনি।

সম্প্রতি ‘আশীর্বাদ’ নামে একটি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন মাহি। এরই আগে ঠিকঠাক করা ছিল শাকিব খানের সঙ্গে তিনি কাজ করবেন ‘নবাব এলএলবি’ ছবিতে। গত রোববার সন্ধ্যায় তাঁর বসার কথা ছিল এই ছবিটিরই চিত্রনাট্য নিয়ে। কথাপ্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘না জানি সন্ধ্যায় আবার মনে হয়, থাকুক। কাল পড়ব!’ ‘নবাব এলএলবি’র ছবির শুটিং শুরু হয়ে গেছে। কাল থেকে শুরু হবে মাহির অংশের কাজ। সিনেমায় চুক্তি সইয়ের পর থেকে ক্যামেরার সামনে গিয়ে দাঁড়ানোর আগের সব প্রস্তুতি নিয়ে কথা হয় তাঁর সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘আমি খুব বেশি হোমওয়ার্ক করতে পারি না। সাইন করার পর থেকে ডিরেক্টর আমাকে বলতে শুরু করেন, “ক্যারেক্টারে ঢোকার চেষ্টা করো, ক্যারেক্টারে ঢোকার চেষ্টা করো”, আমি কোনোভাবেই ক্যারেক্টারে ঢুকতে পারি না, যতক্ষণ না শুটিং স্পটে ঢুকি। স্পটে যাব, ডিরেক্টর আমাকে ক্যারেক্টার ব্রিফ করবেন, গিয়ে দাঁড়াব ক্যামেরার সামনে! শুটিং স্পটে ঢোকার পর থেকে ক্যামেরার সামনে দাঁড়ানো পর্যন্ত সময়ই আমার প্রস্তুতি।’

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

মাহির প্রস্তুতির গল্পটা মোটামুটি এ রকমই। আগে যতগুলো ছবিতে তিনি অভিনয় করেছেন, প্রায় কোনোটিরই চিত্রনাট্য পড়তে হয়নি তাঁকে। গল্পটা শুনতাম, তারপর গিয়ে দাঁড়াতেন ক্যামেরার সামনে। এমনকি বই পড়ার অভ্যাসও নেই এই তারকার! জানালেন, ক্লাসের বইয়ের বাইরে সম্ভবত তাঁর পড়া প্রথম বই হ‌ুমায়ূন আহমেদের ‘কৃষ্ণপক্ষ’, সেও সিনেমাটিতে অভিনয় করার খাতিরে পড়া। তিনি বলেন, ‘“কৃষ্ণপক্ষ” ছবিটার কোনো চিত্রনাট্য ছিল না। পরিচালক আমাকে বইটা ধরিয়ে দিলেন। এবার আমাকে বই পড়তে হবে! এটা ভেবে আমি তো পড়লাম বিপদে। ক্লাসের বই ছাড়া জীবনে কোনো দিন বই পড়িনি। বইটা পড়তে শুরু করলাম। ভালো লাগল। ওই বইটা পড়ার পর থেকে মনে হয়েছে, হ‌ুমায়ূন আহমেদের কোনো চরিত্রে অভিনয়ের ক্ষেত্রে আমি দ্বিতীয়বার চিন্তা করব না এবং অবশ্যই আগে বইটা পড়ে নেব।’

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

তবে এখন নিয়মিত চিত্রনাট্য আসছে মাহির কাছে। আর সেগুলো পড়তেও হচ্ছে তাঁকে। ‘আমি স্ক্রিপ্ট পড়তে পারি না, ঘুম চলে আসে। জানি এটা খুব বাজে অভ্যাস। এ অভ্যাস আমাকে বদলাতে হবে’, নিজের সমালোচনা করে কথাগুলো বলেন মাহি। এরই মধ্যে আরেকটি বাজে অভ্যাস বদলে ফেলেছেন এই অভিনেত্রী। সেটা হচ্ছে একবারে একটি সিনেমা না দেখা। হাসতে হাসতেই মাহি বললেন, ‘সিনেমাকে সিরিয়ার বানিয়ে কয়েক দফায় দেখতাম। পরে দেখতে বসলে আগের কাহিনি ভুলে যেতাম। লকডাউনে এক বসায় সিনেমা দেখা শিখেছি।’

শাকিব খান ছবি পাঠিয়েছেন। ‘নবাব এলএলবি’র জন্য তিনি শুকিয়ে কাঠ! দেখে হিংসে হচ্ছে মাহির। ‘শাকিব ভাই সুন্দর শুকিয়েছেন। আর আমি! প্রতিদিন হাঁটব বলে ট্রেডমিলে উঠি, তারপর দ্রুত নেমে যাই। ভাবি, থাকুক। কাল থেকে হাঁটব।’ ওজন কমাতে তৎপর মাহি এখন ভাত খাচ্ছেন না, খাচ্ছেন কেবল তরকারি, মানে কেবলই সবজি। তবে শুটিং না থাকলে ঘুম থেকে তাঁকে টেনে তোলা যায় না। বেলা করে বিছানা ছাড়েন, মধ্যাহ্নভোজের কিছু আগে সারেন প্রাক্‌-মধ্যাহ্নভোজ বা ব্রাঞ্চ। সরল স্বীকারোক্তি তাঁর, ‘আমার জীবনে ভোর আসে খুব কম।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন