বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

৩ ডিসেম্বর ৫০টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে সানি সানোয়ার ও ফয়সাল আহমেদের মিশন এক্সট্রিম। ছবির প্রযোজনা সূত্র জানিয়েছে, ছবিটি প্রদর্শনীর মধ্য দিয়ে বন্ধ থাকা প্রায় ২০টি সিনেমা হল খুলেছে। গতকাল নতুন করে আরও পাঁচটি হলে মুক্তি পেয়েছে ছবিটি। ছবিটি নিয়ে আশাবাদী প্রেক্ষাগৃহের মালিকেরা। দর্শকেরও আগ্রহ দেখা গেছে। ডিসেম্বর মাসে প্রায় প্রতি সপ্তাহেই ছবি মুক্তি পাচ্ছে। ২৪ ডিসেম্বর মোস্তাফিজুর রহমান মানিকের স্বপ্নে দেখা রাজকন্যা এবং অঞ্জন আইচের আগামীকাল মুক্তি পাবে। বছরের শেষ দিন ৩১ ডিসেম্বর মুক্তি পাবে মীর সাব্বিরের রাত জাগা ফুল।

গলুই ছবিটি মুক্তির কথাও ভাবছেন পরিচালক এস এ হক অলিক। যদিও এখনো মুক্তির তারিখ ঠিক হয়নি, তবে ডিসেম্বরে মুক্তি পাবে রনি ভৌমিকের মৃধা বনাম মৃধা ছবিটি। এটি নিশ্চিত করেছে ছবির প্রযোজনা সূত্র। ধারাবাহিকভাবে ছবি মুক্তিতে আশার আলো দেখছেন হলমালিকেরা। মিশন এক্সট্রিম ছবিটি দেখানো হচ্ছে রাজধানীর মধুমিতা হলে। এর মালিক ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ বলেন, ‘অনেক দিন পর হলে ভালো দর্শক পেলাম। আমার কাছে মনে হয় ভালো ছবি মুক্তি পেলে দর্শক আসবেই। এতে সিনেমা বাঁচবে, হলও বাঁচবে। সামনে বেশ কিছু বড় বাজেটের ছবি মুক্তির তালিকায় আছে। ছবিগুলো একের পর এক মুক্তি পেলে দর্শকের হলে আসার অভ্যাস তৈরি হবে।’

default-image

গতকাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় প্রকাশিত হয়েছে এম রাহিমের শান ছবির ট্রেলার। এ ছবির প্রযোজক বলেন, ‘মিশন এক্সট্রিম-এর মতো বড় বাজেটের ছবি ক্রমাগত মুক্তি পেলে সিনেমা ঘুরে দাঁড়াতে পারে। আমার কাছে মনে হয়, সিনেমা হলের দর্শক কোনো কালেই হারাবে না। অনেক দিন দর্শকেরা সিনেমা হলে যেতে পারেননি। তাঁরা অপেক্ষা করছিলেন। এখন দর্শকের দেখার মতো ছবি নিয়মিত মুক্তি পাওয়া দরকার। বছরে বড় বাজেটের ভালো দশটা ছবি মুক্তি পেলেই ঢাকার চলচ্চিত্রের জন্য আর কিছু লাগবে না।’
এ ছাড়া আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি মুক্তির তারিখ নিশ্চিত হয়েছে গিয়াস উদ্দিন সেলিমের পাপ পুণ্য। মুক্তির জন্য প্রস্তুত দীপঙ্কর দীপনের অপারেশন সুন্দরবন, আবু রায়হান জুয়েলের অ্যাডভেঞ্চার অব সুন্দরবনসহ আরও কিছু ছবি। শান, অপারেশন সুন্দরবন, মৃধা বনাম মৃধা ও অ্যাডভেঞ্চার অব সুন্দরবন ছবিগুলোতে অভিনয় করেছেন সিয়াম আহমেদ। তিনি বলেন, ‘সিনেমা হলে দর্শক আসা শুরু করেছে, এটি সিনেমার জন্য সুসংকেত। এখন আমাদের কাজ হবে দর্শককে ধরে রাখার মতো ছবি বানানো এবং মুক্তি দেওয়া। দীর্ঘ মন্দা কাটিয়ে ঢাকার চলচ্চিত্রের নতুন যাত্রার একটা আভাস পাচ্ছি।’

default-image

তবে এ বছরের মাঝামাঝিতে চলচ্চিত্রে সুবাতাস বইতে শুরু করে। আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদের ছবি রেহানা মরিয়াম নূর কান চলচ্চিত্র উৎসবের আঁ সার্তেঁ রিগা বিভাগে অফিশিয়াল মনোনয়ন পায়। ছবিটি মুক্তি পায় নভেম্বর মাসে। এ ছাড়া বিভিন্ন আন্তর্জাতিক উৎসবে পুরস্কার পাওয়া রেজওয়ান শাহরিয়ারের ছবি নোনা জলের কাব্য মুক্তি পায় একই মাসে। তা ছাড়া অক্টোবরে মুক্তি পাওয়া এন রাশেদ চৌধুরীর চন্দ্রাবতী কথা ও রাশিদ পলাশের পদ্মাপুরানও প্রশংসা কুড়ায়।

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন