বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

জায়েদ খান জানান, বেশ কিছুদিন আগে তাঁর মাকে হাসপাতালে ভর্তি করেন। প্রথমে একটু ভালোর দিকে থাকলেও পরে অবস্থা খারাপের দিকে যেতে থাকে। মায়ের জন্য সবার কাছে দোয়া চান তিনি। জায়েদ খানের পাশেই ছিলেন অভিনেতা জয় চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘আন্টির (জায়েদ খানের মা) শারীরিক অবস্থা ভালোই ছিল। এর মধ্যেই আন্টির করোনা ধরা পরে। হাসপাতালে চিকিৎসা চলছিল। জায়েদ ভাইয়ের কাছ থেকে আগেই যত দূর জানতাম, আন্টির কিডনিতে জটিল সমস্যা ছিল। শ্বাসপ্রশ্বাসসহ অন্যান্য জটিলতা বাড়তে থাকে। পাঁচ দিন ধরে আন্টি আইসিইউতে ভর্তি ছিলেন।’

default-image

বেলা একটার দিকে জানা যায়, মায়ের লাশ নিয়ে জায়েদ খান তাঁদের জাপান গার্ডেন সিটির বাসায় পৌঁছান। সেখানে জানাজা হবে। পরে লাশ নিয়ে তাঁরা রওনা হবেন পিরোজপুর গ্রামের বাড়িতে। সেখানে আগামীকাল মঙ্গলবার বাদ আসর শেষ জানাজা হবে।

অভিনেতা জয় চৌধুরী জানান, গ্রামে পারিবারিক কবরস্থানে জায়েদ খানের বাবার করবের পাশে শাহিদা হকের মরদেহ দাফন করা হবে।

default-image

গত বছর ৩১ ডিসেম্বর বাবাকে হারান জায়েদ খান। বাবার মৃত্যুবার্ষিকীর তিন দিন আগে মাকে হারালেন। জায়েদ খান তাঁর ফেসবুকে লিখেছেন, ‘আল্লাহ তাআলার কী যে ইচ্ছা, একমাত্র তিনিই জানেন। বাবা মারা যাওয়ার ১ বছর পূর্ণ হবে এই মাসের ৩১ তারিখ। তার আগেই আজ ২৭ তারিখ মা আমাদের ছেড়ে চলে গেলেন। একবারে এতিম হয়ে গেলাম। এমন শোক আমি এবং আমার পরিবার কীভাবে সহ্য করব। আপনারা আমার মায়ের আত্মার জন্য দোয়া করবেন।’

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন