default-image

২০২০ সালটা এলোমেলো করে দিল করোনা। স্বাধীন ধারার তরুণ নির্মাতাদের পরিকল্পনাও ভন্ডুল করেছে কোভিড–১৯। অন্য অনেকের মতোই বছরটা তেমন ফলপ্রদ হয়নি তাঁদের। তবে ‘যাচ্ছেতাই’ বছরেও হাত গুটিয়ে বসে থাকেননি তাঁরা। নতুন বছরে নতুন করে স্বপ্ন বুনতে তো বাধা নেই। হঠাৎ পাওয়া ছুটি কাজে লাগিয়ে ভেবেছেন, লিখেছেন আর কীভাবে সব বাধা উতরে ২০২১ সালকে ফলপ্রসূ করা যায়, তার শক্ত পরিকল্পনা এঁটেছেন। গত বছরটা ঘরে থেকে নিজেদের আরও তৈরি করেছেন। এ বছর নতুন উদ্যমে কাজে ঝাঁপিয়ে পড়তে প্রস্তুত দেশের চলচ্চিত্রের এই ভবিষ্যৎ নির্মাতারা। কাজের লম্বা তালিকা হাতে নিয়ে নতুন বছর শুরু করছেন স্বাধীন ধারার তরুণ তুর্কিরা। সেসব ভাবনা তাঁরা ভাগ করা নিলেন প্রথম আলোর সঙ্গে।

বিজ্ঞাপন

২০২০ সালে বিশ্ব চলচ্চিত্রের মঞ্চে যাঁরা বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেছেন, সেই তালিকার প্রথম নামগুলোর একটি রেজওয়ান শাহরিয়ার। এই প্রতিবেদন যখন লেখা হচ্ছে, ততক্ষণে কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে শুরু হয়ে গেছে রেজওয়ানের প্রথম পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘নোনাজলের কাব্য’–এর প্রথম প্রদর্শনী। তিনি জানান, দেশের পরিবেশকদের সঙ্গে আলাপ চলছে। মার্চ আর এপ্রিল মাসজুড়ে চলবে প্রচারণা। মে মাসে মুক্তি পেতে পারে আন্তর্জাতিকভাবে প্রশংসা কুড়ানো এই ছবিটি। ইতিমধ্যে করোনার এক ফাঁকে ডিসেম্বরে টাঙ্গাইলে ‘মাঝারি দৈর্ঘ্যে’র একটা ছবির শুটিংও সেরে ফেলেছেন। সম্ভাব্য ৩৫ মিনিটের ছবিটির নাম ‘আমরা আন্তরিকভাবে দুঃখিত’। করোনাকালে চার বন্ধুর গল্প নিয়ে এই সিনেমা। চার বন্ধুর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন মোস্তফা মনোয়ার, তিতাস জিয়া, সোহেল মণ্ডল আর জাহাঙ্গীর আলম। আরও আছেন তাসনুভা তামান্না। চলছে ছবিটির পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ। পূর্ব এশিয়ার একটা স্টুডিওর জন্য নির্মিত হয়েছে ছবিটি। এপ্রিলে মুক্তি পেতে পারে। প্রথম ফিচার ফিল্ম মুক্তির সঙ্গে বছরজুড়ে চলবে রেজওয়ানের দ্বিতীয় ছবির প্রস্তুতি। নভেম্বর থেকে শুরু হতে পারে দ্বিতীয় ছবির শুটিং।

গুপি বাঘা প্রডাকশনের গুপি আরিফুর রহমান আর বাঘা বিজন ইমতিয়াজ। এই দুই বন্ধুর একজন যখন ক্যামেরার পেছনে থাকেন, আরেকজনের কাঁধে পড়ে প্রযোজনার ভার। কখনো দুজনে মিলে প্রযোজনা করেন দেশের আর দেশের বাইরের নানা প্রজেক্ট। ২০২১ সালের ক্যালেন্ডারের প্রায় প্রতিটি দিনই তাঁরা দাগিয়ে রেখেছেন নানা কাজের নামে। আরিফুর রহমানের সঙ্গে যখন আলাপ হচ্ছে, তখন তিনি নোয়াখালীর হাতিয়া দ্বীপে। চোরাকাদায় আটকে গিয়ে দুর্ঘটনার মুখে পড়ে যান। উদ্ধার করা হয়েছে তাঁকে। একটা স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের জন্য যেমন লোকেশন কল্পনা করেছেন, তেমন একটা জায়গার খোঁজে হাতড়ে বেড়াচ্ছিলেন হাতিয়ার নতুন জেগে ওঠা দ্বীপ থেকে দ্বীপে। তিনি বলেন, ‘আমি যেমনটা ভেবেছি, তেমন একটা জায়গা পেয়েছি এখানে। এটা একটা নতুন চর। নিচে ঠিকমতো মাটি জমেনি। সেই চোরাকাদায় আটকা পড়েছিলাম। যে মুহূর্তে আমি মাথা ঠান্ডা রেখে বেঁচে ওঠার জন্য সংগ্রাম করছি, তখন মনে হলো, যে জন্য আমি এখানে আটকা পড়লাম, সেই ছবিটা বানিয়ে তারপর মরব। এখনই নয়।’ সিনেমা নির্মাণ আর প্রযোজনা ছাড়াও দুটি বিশেষ প্রজেক্ট হাতে নিয়েছেন তিনি। পাঁচজন শিল্পীকে নিয়ে ‘আগুন পাখির গান’। এই পাঁচশিল্পী নিজেরা গান লেখেন, সুর আর কম্পোজ করেন এবং গেয়ে থাকেন। মৌলিক গানের এমন পাঁচজন শিল্পীকে পরিচিত করিয়ে দিতে ৩০ আর ৩১ জানুয়ারি অনলাইন কনসার্টের আয়োজন করবেন তাঁরা। সেখানে গাইবে মেঘদল, পার্থ বড়ুয়া, সাত্যকী ব্যানার্জি, অর্ক মুখার্জি আর শাহানা বাজপেয়ি। দ্বিতীয় প্রজেক্টের নাম ‘রাইটিং রুম’। পেশাদার চিত্রনাট্যকার তৈরির এই কর্মশালা চলবে ছয় মাস। প্রাথমিকভাবে সাড়ে ছয় শর বেশি আবেদন জমা হয়েছে। তাঁদের ভেতর যাচাই–বাছাই ও ভাইভার পর ১২ জন পাবে এই সুযোগ। আরিফুর রহমান, বিজন ইমতিয়াজসহ ভারতের কলকাতার বাঙালি পরিচালক সুমন সেন এই কর্মশালা পরিচালনা করবেন। ছয় মাসের কর্মশালা শেষে তৈরি হবে তিনটি সিনেমা আর তিনটি ওয়েব সিরিজের চিত্রনাট্য। এই দুই উদ্যোগ সম্পর্কে এই তরুণ পরিচালক বলেন, ‘আমাদের দেশে নতুন করে মৌলিক গান বানানোর সংস্কৃতি কমে এসেছে। রিমেক আর কাভারের যুগে যাঁরা মৌলিক গান বানাচ্ছেন, তাঁদের আমি তুলে ধরতে চাই। দেশে পেশাদার চিত্রনাট্যকার তৈরির কোনো প্ল্যাটফর্ম নেই বললেই চলে। সেটি খুবই জরুরি। তাই দিন শেষে এই প্রচেষ্টা থেকে কেবল এই ১২ জন, আমি বা গুপি-বাঘা লাভবান হবে না, লাভবান হবে আমাদের ইন্ডাস্ট্রি।’

বিজন ইমতিয়াজকে প্রথমবারেই পাওয়া গেল মেসেঞ্জারে। স্ত্রী, পুত্র নিয়ে তিনি থাকেন মার্কিন মুলুকে, লস অ্যাঞ্জেলসে। তিনি জানান, টিকা নিয়ে তবেই দেশে ফিরবেন। তারপর ফেব্রুয়ারির শেষে অথবা মার্চে শুরু হবে প্রামাণ্যচিত্র ‘প্যারাডাইস’–এর শুটিং। তিনি বলেন, ‘এই মুহূর্তে আমাদের হাতে বেশ কয়েকটি প্রজেক্ট আছে। ফজলে রাব্বি পরিচালিত “ট্রি অব নলেজে”র শুটিং শেষ। শুটিং শেষ ভারতের সিদ্ধার্থ চৌহান পরিচালিত “আমার কলোনি” ছবিরও। দুটি ছবিরই প্রযোজক আমরা। চলছে পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ। ভারতের সুমন সেনের “একা” ছবির চিত্রনাট্য তৈরি। ফান্ড রাইজিংয়ের প্রক্রিয়া চলছে। তা ছাড়া দেশে নুহাশ হুমায়ূনের “মুভিং বাংলাদেশ” ছবির শুটিংয়ে যাব এ বছরের শেষে।’

‘মাটির প্রজার দেশে’খ্যাত পরিচালক তাঁর বর্তমানটা কাজে লাগাতে চান। এ কথা জানিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘আমরা সব সময় অতীতের ট্রমা আর ভবিষ্যতের দুশ্চিন্তা করে বর্তমানটা নষ্ট করি। করোনায় অনেকটা সময় পাওয়ায় আমি ভেবেছি আর ঠিক করেছি, বর্তমানটা কাজে লাগাতে হবে।’

দেশের ‘অগ্রজ’ স্বাধীন নির্মাতাদের অনেকের মতে, মেহেদী হাসান নাকি ‘প্রমিসিং’ নির্মাতা। মেহেদীকে ফোন করে জানা গেল, দুই বছর ধরে তিনি তাঁর প্রথম ফিচার ফিল্ম ‘স্যান্ড সিটি’র কাজ গুছিয়ে নিয়েছেন। এ বছর কাটবে ইউরোপিয় ফান্ড জোগাড় করতে। জার্মানি বা নরওয়ে থেকে ফান্ডিং পেলেই শুরু হবে শুটিং। এ বছর একটা ওয়েব সিরিজও বানাবেন তিনি। তা ছাড়া নতুন যাঁরা নির্মাতা হিসেবে কাজ শুরু করছেন, তাঁদের জন্য নিজের স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র নির্মাণের অভিজ্ঞতা নিয়ে একটা বইও লিখবেন। তাসমিয়াহ্ আফরিন তাঁর প্রথম ফিচার ফিল্ম ‘কাক’–এর কাজ এগিয়ে নিচ্ছেন। হুমাইরা বিলকিসের কাছে ২০২১ সালে সুস্থভাবে বেঁচে থাকাটাই প্রাধান্য পাচ্ছে। সেই সঙ্গে চলছে ‘বিলকিস অ্যান্ড বিলকিস’ ছবির সম্পাদনার কাজ। এ ছাড়া বেশ কয়েকটি প্রামাণ্যচিত্রের ফুটেজ জড়ো হয়ে আছে। সময় পেলে সেগুলো সম্পাদনার কাজে এগোবেন। ‘লাইভ ফ্রম ঢাকা’ ছবির পরিচালক আবদুল্লাহ মো. সাদের সঙ্গে ই–মেইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি তাঁর কাজ সম্পর্কে কথা বলতে রাজি হননি। নিভৃতে তিনি তাঁর দ্বিতীয় ফিচার ছবির পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ করছেন।

বিজ্ঞাপন
ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন