বিজ্ঞাপন
default-image

মা–ছেলের ঈদ কেটেছে ঘরের ভেতর। বেশির ভাগ সময় তাঁরা সতর্কতার কথা ভেবে বাড়িতেই ছিলেন। রান্না ও ব্যায়ামের পাশাপাশি টেলিভিশনের কিছু অনুষ্ঠান দেখেছেন অপু। বাসার বাইরে রাস্তায় ছেলেকে নিয়ে একটু হাঁটাহাঁটিও করেছেন। ছুটি শেষে শুরু করবেন নতুন সিনেমার কাজ। সেই কাজের প্রস্তুতি নিচ্ছেন তিনি। অপু জানান, করোনার কারণে বেশ কিছু কাজ পিছিয়ে যাচ্ছে। তবু সংক্রমণ পরিস্থিতি বুঝে শুটিং করতে চান তিনি। অপু মনে করেন, একজন অভিনয়শিল্পী হিসেবে নিজের দায়বদ্ধতা থেকেই ঘর থেকে খুব একটা বের হননি তিনি। অপু বলেন, ‘সরকার নানাভাবে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে। এই মুহূর্তে আমাদের সবাইকে নিজ নিজ জায়গা থেকে সচেতন থাকতে হবে। এটাই হবে সরকারকে সহযোগিতা করা। কারণ, সরকার কিন্তু মানুষের মঙ্গলের জন্যই বারবার লকডাউন দিচ্ছে।’

default-image

অপু বিশ্বাসের কয়েকটি ছবির মধ্যে মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ টু’, ‘আশীর্বাদ’। এবারও নতুন সিনেমা ছাড়াই ঈদ কাটছে তাঁর। সিনেমা হলে কোনো ছবি মুক্তি না পেলেও টেলিভিশনে অপুর ১০টির বেশি সিনেমা প্রচারিত হওয়ার কথা রয়েছে। সেই দিক থেকে ঈদে সর্বাধিক প্রচারিত সিনেমার নায়িকা তিনি। সেসব সিনেমা দেখে কিছুটা সময় কাটানোর চেষ্টা করেছেন এই ঢালিউড তারকা। নিজের সিনেমা দেখতে কেমন লাগে? অপু বলেন, ‘আগের সিনেমাগুলো দেখলে ভালো লাগে। কিন্তু বর্তমান ইন্ডাস্ট্রির কথা ভেবে খারাপও লাগে। আমাদের সুন্দর একটা কাজের মৌসুম ছিল। সেই কাজগুলো এখন কমে গেছে। টেলিভিশনে প্রচারিত সিনেমাগুলো দেখলে আগের সেই সময়ের কথা মনে পড়ে যায়। এখন আমাদের ইন্ডাস্ট্রিতে তখনকার মতো ভালো লাগা আর নেই। আগের মতো কাজ হলে ইন্ডাস্ট্রি হয়তো ঘুরে দাঁড়াত।’

default-image

ঈদে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বেশ কিছু অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছেন অপু বিশ্বাস। সেসব অনুষ্ঠান ঈদের সাত দিনের আয়োজনে সময় টিভি, বাংলা টিভি, চ্যানেল টোয়েন্টি ফোর, এশিয়ানসহ বেশ কিছু টেলিভিশনে দেখানো হচ্ছে।

default-image
ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন