default-image

‘স্বামী কেন আসামি’ ছবির পরিচালক মনোয়ার খোকন মারা গেছেন। আজ রোববার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় উত্তরার একটি বেসরকারি হাসপাতালে তিনি মারা যান। তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৪ বছর। দীর্ঘদিন তিনি ডায়াবেটিস, কিডনির সমস্যা, উচ্চ রক্তচাপসহ নানা শারীরিক সমস্যায় ভুগছিলেন। খোকন স্ত্রী এবং দুই মেয়ে রেখে গেছেন। আজ দুপুরে উত্তরার ৪ নম্বর সেক্টরে তাঁকে দাফন করা হয়েছে।

প্রায় দুই বছর আগে খোকনের কিডনিতে সমস্যা ধরা পড়ে। তারপর থেকে বাসায় চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। মৃত্যুর ছয় মাস আগে তাঁর শারীরিক অবস্থা আরও খারাপ হয়ে যায়। ফেব্রুয়ারি তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আজ সকাল ৬টা ৩০ মিনিটের দিকে সেই হাসপাতালেই তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। এই পরিচালকের সহকারী পরিচালক হিসেবে দীর্ঘদিন কাজ করেছেন এ এম আওয়াল মিন্টু। এই পরিচালক জানান, শাবানা, মান্না, মৌসুমী, শাকিব খানের মতো বড় বড় তারকাকে নিয়ে কাজ করেছেন মনোয়ার। নির্মাতা হিসেবে রুচিসম্মত ছবি বানানোই ছিল তাঁর স্বপ্ন। তাঁর বেশির ভাগ ছবিই ছিল পরিবার নিয়ে দেখার মতো। তিনি বলেন, ‘মনোয়ার ভাইয়ের সঙ্গে মাঝেমধ্যেই কথা হতো। গত ছয় মাস তিনি বিছানায় পড়ে ছিলেন। এই সময়ের ছবি নিয়ে তিনি দুঃখ প্রকাশ করতেন। এখন সবাই ছুটে টাকার পেছনে। মনোয়ার ভাই ছুটতেন কাজের পেছনে। এ জন্য বড় তারকারা তাঁর ছবি প্রযোজনা করতেন। তাঁরা খোকন ভাইয়ের ছবিতে অভিনয় করতে চাইতেন। চলচ্চিত্রপ্রেমী এমন একজন নির্মাতার চলে যাওয়া আমাদের চলচ্চিত্র অঙ্গনের জন্য অনেক বড় ক্ষতি।’

বিজ্ঞাপন
default-image

শব্দগ্রাহক এম এ বাসেদের হাত ধরে আশির দশকে চলচ্চিত্র অঙ্গনে আসেন মনোয়ার খোকন। পরে এ জে মিন্টুর সঙ্গে তিনি সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ শুরু করেন। হাত পাকলে ১৯৮৯ সালে তিনি শুরু করেন ‘ভালো মন্দ’ ছবি। এটি ছিল তাঁর প্রথম নির্মাণ। এই ছবিতে অভিনয় করেছিলেন অঞ্জু ঘোষ, প্রবীর মিত্রের মতো অভিনয়শিল্পারা। এই ছবির প্রযোজক ছিলেন অভিনেতা প্রবীর মিত্র। কাজ অসমাপ্ত থাকায় এখনো ছবিটি মুক্তি পায়নি। এম এ আওয়াল মিন্টু জানান, একজন নির্মাতার প্রথম নির্মাণের সঙ্গে সব সময় অনেক স্মৃতি, শ্রম ও স্বপ্ন জড়িয়ে থাকে। সে জন্য অনেক দিন ধরেই তিনি চাইতেন ছবিটির কাজ শেষ করতে। ছবিটি শেষ করার জন্য অনেক চেষ্টা করেছিলেন। পরে সেটা আর সম্ভব হয়নি। তিনি বলেন, ‘ভালো মন্দ’ শেষ না করায় তাঁর মধ্যে কিছুটা কষ্ট ছিল। চেষ্টা করেও যখন হয়নি, তখন হাল ছেড়ে দিয়েছিলেন খোকন। ‘ভালো মন্দ’ নিয়ে তাঁর আফসোস ভোলার না। মূলত ছাড় দিয়ে কাজ না করতেই তাঁর প্রথম ছবির কাজ শেষ হয়নি।

default-image

তিন দশকের ক্যারিয়ারে মনোয়ার খোকন নির্মাণ করছেন ২০টির বেশি ছবি। তাঁর পরিচালনায় ১৯৯২ সালে প্রথম মুক্তি পায় ‘লক্ষ্মীর সংসার’ ছবিটি। তারপর তিনি একে একে নির্মাণ করেন ‘জ্যোতি’, ‘স্বামী কেন আসামি’, ‘মেয়েরাও মানুষ’, ‘মায়ের হাতের বালা’, ‘খুনি শিকদার’, ‘স্বপ্নের পুরুষ’, ‘কসম বাংলার মাটি’, ‘জিদ্দি’, ‘বাংলাভাই’, ‘খুনি শিকদার’–এর মতো বেশ কিছু ছবি।

default-image
বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন