বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

‘গলুই’–এর শুটিং শেষ করে ১২ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রে যান শাকিব খান। ১৪ নভেম্বর সেখানে অংশ নেন চ্যানেল আই মিউজিক অ্যাওয়ার্ডে। এর মধ্যে নিউইয়র্ক থেকে নতুন ছবি নির্মাণের ঘোষণা দেন এই অভিনেতা। ছবির শুটিংও হবে সেখানে। এ কারণে আপাতত ঢাকায় ফিরছেন না তিনি। যে কারণে ‘গলুই’ ছবির ডাবিং আটকে যায়। অথচ ডিসেম্বর মাসে ‘গলুই’ মুক্তির পরিকল্পনা ছিল প্রযোজকের। মুক্তির সময় ধরতে তাই শাকিব খানের ডাবিং যুক্তরাষ্ট্র গিয়ে করিয়ে আনছেন পরিচালক এস এ হক অলিক। নিউইয়র্কের একটি স্টুডিওতে ডাবিংয়ের সময় তোলা ছবি পাঠিয়ে সে ঘটনা নিশ্চিত করেন পরিচালক।

default-image

এস এ হক অলিক প্রথম আলোকে জানান, দুটি কারণে তাড়াহুড়ো করে ছবির ডাবিং শেষ করতে হচ্ছে। তিনি বলেন, ‘প্রথমত, এই বছরই “গলুই” মুক্তির পরিকল্পনা রয়েছে। শাকিব খান ছাড়া অন্য সব শিল্পীর ডাবিং শেষ। যুক্তরাষ্ট্র থেকে আগেই চলে আসার কথা ছিল তাঁর। কিন্তু আসতে পারছেন না। তাই সেখানে গিয়ে ডাবিং করিয়ে আনতে হচ্ছে। দ্বিতীয়ত, “যোদ্ধা” নামে আমার পরের ছবির কাজ জানুয়ারিতে শুরু হবে। তাই হাতের কাজ শেষ করে ফ্রি হতে চাচ্ছি।’ তিনি জানান, সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে, দু–তিন দিনেই শাকিবের ডাবিং শেষ হয়ে যাবে। কাজ শেষ করে ১৫ ডিসেম্বর দেশে ফেরার কথা আছে এই পরিচালকের।

default-image

তাহলে ‘গলুই’ কবে মুক্তি পাবে? অলিক বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রে বসেই ইমন সাহা ছবির আবহ সংগীতের কাজ করছেন। শাকিবের ডাবিং শেষে ছবিটি সেন্সর বোর্ডে জমা দেব। সেন্সর সনদ পাওয়ার ওপর নির্ভর করছে ছবির মুক্তি। তবে প্রযোজক চান এ বছরই ছবি মুক্তি দিতে।’ বাংলাদেশ সরকারের অনুদানের ছবি ‘গলুই’–এর প্রযোজক খোরশেদ আলম বলেন, ‘অনুদানের নীতিমালা মেনে চলতি মাসেই ছবিটি সেন্সরে জমা দেব। শাকিব খান আসতে পারবেন না, এ কারণে পরিচালককে যুক্তরাষ্ট্রে পাঠিয়ে শাকিবের ডাবিং শেষ করছি। আশা করছি, ২০ ডিসেম্বরের পর ছবি সেন্সরে জমা দিতে পারব। এরপর যদি সম্ভব হয়, এ মাসেই মুক্তি। না হলে ভবিষ্যতে যেকোনো একটি উৎসবের দিন ধরে ছবিটি মুক্তি দিতে চাই।’

‘গলুই’ ছবিতে আরও অভিনয় করেছেন পূজা চেরি, আজিজুল হাকিম প্রমুখ।

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন