রান্নাঘরে মেহ্জাবীন, মিম, পূজা ও ফারিয়া

বিজ্ঞাপন
default-image

দর্শকেরা মনে করেন তারকাদের জীবন জৌলুশে ভরা। নিজ হাতে তাঁদের কোনো কাজই করতে হয় না। তাঁদের সঙ্গে সব সময় থাকেন একাধিক কাজের মানুষ। নিজ হাতে রান্না করে খাওয়া তো দূরের কথা, চাহিবামাত্র তাঁদের সবকিছু হাজির হয়ে যায়। কিন্তু তারকারা এখন রান্নাঘরে ঢুকেছেন। নিজ হাতে রান্না করে খাচ্ছেন নিজেরাই। এমনকি খাওয়াচ্ছেন পরিবারের মানুষদেরও। করোনাভাইরাসের আতঙ্কে বিনোদন দুনিয়ার সব কার্যক্রম বন্ধ। করোনা সংক্রমণের ভয়ে বেশির ভাগ মানুষ ঘরবন্দী। দেশের বিনোদন তারকারাও ঘরবন্দী। বই পড়া, সিনেমা দেখা ছাড়া রান্নাঘরে ঢুঁ মারছেন তাঁদের কেউ কেউ। আগে থেকে অল্প অল্প রান্নার অভিজ্ঞতা আছে অনেকের। তবে এই লম্বা ঘরবন্দী সময়ে কেউ নতুন নতুন খাবার রান্না করা শিখছেন। সাহায্য নিচ্ছেন ইউটিউব বা মায়ের কাছ থেকে।

default-image

ছোট পর্দার তারকা মেহ্জাবীন চৌধুরী সারা বছর ব্যস্ত থাকেন শুটিংয়ের কাজে। রান্নাঘরে ঢোকার সময় কোথায় তাঁর? কিন্তু করোনাভাইরাসের আতঙ্কে প্রায় ২০ দিন ঘরে অবরুদ্ধ তিনি। টিভি সিরিজ দেখার পাশাপাশি মায়ের সঙ্গে মাঝেমধ্যে রান্নাঘরে যাচ্ছেন। দু-এক পদের রান্না আগে থেকে জানলেও এই দীর্ঘ অবসরে নতুন সব পদ রান্না করা শিখছেন। কয়েক দিন আগে মায়ের সাহায্য নিয়ে প্রথমবারের মতো বিরিয়ানি রান্না করেছেন তিনি। সেই রাতে বাড়ির সবাই মিলে মেহ্জাবীনের রান্না করা বিরিয়ানি খেয়েছেন। তাঁর রান্নার প্রশংসাও করেছেন সবাই। মেহ্জাবীন বলেন, ‘ছোটখাটো রান্না আমি আগেও পারতাম। কিন্তু দীর্ঘ সময় ঘরে আছি, বসে না থেকে মায়ের সাহায্য নিয়ে বিরিয়ানি রান্না করে ফেললাম। এর মধ্যে অবশ্য বিশেষ এক ধরনের কফি তৈরি করেছি। মজার ব্যাপার হলো, আমার রান্না করা বিরিয়ানি দিয়ে সেদিন ডিনার হয়েছে বাসায়।’

অভিনেত্রী বিদ্যা সিনহা মিম প্রথমবারের মতো পুডিং ও চিজপাস্তা তৈরি করা শিখেছেন। তিনি বলেন, ‘সারা দিন কাজে ব্যস্ত থাকার কারণে বাসায় ফিরে রান্না শেখার সময় হতো না। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে ঘরে থাকতে হচ্ছে অনেক দিন। সেই অবসরে ইউটিউব দেখে পুডিং, চিজপাস্তা বানিয়েছি। বাবা ও মাকে খাইয়েছি। খারাপ হয়নি। কেক বানাতে গিয়ে পারিনি, নষ্ট করে ফেলেছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘এখন যেহেতু হাতে সময় আছে, নিয়মিত কিছু খাবার যেমন মুরগির রোস্ট, মাংস রান্না শিখব।’

default-image

এই অবসরে ঘরে বসে দুটি নতুন পদ রান্না করা শিখেছেন বড় পর্দার আরেক অভিনেত্রী পূজা চেরি। প্রথমবার বাসার মানুষের জন্য একদিন ফ্রাইড রাইস ও আরেক দিন বিরিয়ানি রান্না করেছেন তিনি। তিনি বলেন, ‘আগে থেকে কিছু পদের রান্না পারতাম। ঘরে বসে আর কতক্ষণ থাকা যায়, তাই নতুন নতুন কিছু রান্না শেখার চেষ্টা করছি। ইউটিউবের সাহায্য নিয়ে প্রথম বিরিয়ানি ও ফ্রাইড রাইস রান্না করেছি।’ খেতে কেমন হয়েছিল? জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘বিরিয়ানি খুব একটা ভালো হয়নি। খাওয়ার পর বাসার কারও কাছে থেকে কোনো ভালো কথা শুনিনি।’

default-image

বড় পর্দার অভিনেত্রী নুসরাত ফারিয়া জানালেন, প্রতিদিনই মায়ের সঙ্গে রান্নাঘরে যাচ্ছেন তিনি। মায়ের রান্নার কাজে সহযোগিতা করছেন। সাধারণ কিছু খাবার তৈরির অভিজ্ঞতা তাঁর আগে থেকেই ছিল। তবে এবার নতুন অভিজ্ঞতা হিসেবে বরইয়ের আচার বানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘যেহেতু দীর্ঘ সময় ঘরে কাটছে, তাই সময়টা কাজে লাগাতে চেষ্টা করছি। রান্নাঘরে প্রায়ই মাকে সময় দিচ্ছি। নিজেও নতুন কিছু শেখার চেষ্টা করছি। প্রথম বরইয়ের আচার বানিয়েছি।’ তবে তাঁর তৈরি আচার মায়ের কাছে খুব একটা পছন্দ হয়নি। হাসতে হাসতে ফারিয়া বলেন, ‘আচার খেয়ে মা বলছিলেন, আরেকটু ঝাল হলে নাকি ভালো হতো।’ এই সময়ের মধ্যে নতুন নতুন আরও কিছু রান্না শিখবেন এই অভিনেত্রী।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন