সবকিছু স্বাভাবিক হয়ে গেলেই বিয়ে

‘যদি কিন্তু তবুও’, ‘অপারেশন সুন্দরবন’সহ বেশ কিছু ছবির শুটিংয়ের অপেক্ষায় আছেন ঢালিউড তারকা নুসরাত ফারিয়া। ইতিমধ্যে বেশ কিছু ছবিতে অভিনয় করেছেন ফারিয়া। বাংলাদেশে তাঁর করা ছবিগুলোর মধ্যে রয়েছে ‘ধ্যাততেরিকি’, ‘প্রেমী ও প্রেমী’, ‘শাহেনশাহ’, ভারতের পশ্চিমবঙ্গে ‘বিবাহ অভিযান’, ‘হিরো ফোরটুয়েন্টি’, ‘ইন্সপেক্টর নোটিকে’, ‘আশিকী’, ‘বস টু’ এবং ভারত–বাংলাদেশ যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হয়েছে ‘বাদশা’ ছবিটি।

নুসরাত ফারিয়া
নুসরাত ফারিয়াকোলাজ আমিনুল ইসলাম
বিজ্ঞাপন

‘কোন গ্রামে বসত কন্যার, কোন গ্রামে বাড়ি?’ ঢালিউড তারকা নুসরাত ফারিয়ার কথা যদি এভাবে কেউ জানতে চায়, বলতে হবে—ইনস্টাগ্রামে। ঢালিউডের অনেকের আগে তিনি বাসা বেঁধেছেন জনপ্রিয় এই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। এখন সেই গ্রামে তাঁর ‘হাই ডিমান্ড’। সিনেমার পর্দায় আলো নেই, তাতে কী! ফলোয়ারদের স্মার্টফোনের পর্দা রঙিন করে রেখেছেন তিনি। ইনস্টা থেকে নিয়মিত ‘মুক্তি’ পাচ্ছে তাঁর গ্ল্যামারাস সব ছবি আর ভ্লগ।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

গত মঙ্গলবার ছিল নুসরাত ফারিয়ার জন্মদিন। নতুন স্বাভাবিকের এই জন্মদিনে কেক কাটাকাটি পর্ব ছিল; বাদ যায়নি উপহারের অধ্যায়টিও। প্রেমিকের সঙ্গে আংটিবদলের পর প্রথম জন্মদিন। এ দিনে তাঁর কাছ থেকে আরও একটি চমৎকার আংটি উপহার পেয়েছেন ফারিয়া। ডিসেম্বরের মধ্যে সবকিছু স্বাভাবিক হয়ে গেলেই তাঁদের বিয়ের অভিযান।

শিগগিরই শুরু হচ্ছে নুসরাতদের যদি কিন্তু তবুও ছবির শুটিং। তারপর অপারেশন সুন্দরবন–এর। সীমান্ত খুললেই ছুটতে হবে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে, ভয় ছবির শুটিংয়ের জন্য। তবে খুলবে, খুললে, খুলল বলে, বসে নেই তিনি। একটি স্মার্টফোন ব্র্যান্ডের বিজ্ঞাপনে মডেল হিসেবে কাজ করছেন। সেটার শুটিং আর ব্যায়ামাগার ছাড়া বাকিটা সময়, বেশ তাৎপর্যপূর্ণ সময় তিনি কাটাচ্ছেন বাড়িতে। কীভাবে কাটছে? তিনি বলেন, ‘লকডাউনের শুরুর দুই মাস কোরিয়ান, রাশানসহ বিদেশি ভাষার মুভি দেখেছি। তারপরই পড়াশোনা নিয়ে ব্যস্ত হয়ে যাই। বাড়িতে থাকলেও খুব বেশি ফ্রি থাকা যায় না। নিয়ম করে রান্নাবান্নাসহ বাসার নানা রকম কাজ করতেই সময় চলে গেছে।’

default-image

গরুর মাংস পছন্দ করেন নুসরাত ফারিয়ার হবু বর রনি রিয়াদ রশিদ। বাসায় যেদিন গরুর মাংস রান্না করেন, সেদিন অটো আমন্ত্রণ থাকে রনির। ফারিয়া বলেন, চিটাগং বাড়ি, গরুর মাংস খেতে তিনি খুব পছন্দ করেন। এমনকি গরুর মাংসটা তিনি বেশ ভালো রান্না করেন। ফারিয়া জানালেন, বিয়ের পর বরকে নিয়ে অস্ট্রেলিয়া যাবেন, মধুচন্দ্রিমায়। টানা এক মাস সেখানেই কাটাবেন তাঁরা। কিন্তু সিনেমাগুলোর কী হবে?

জীবন ও কাজের মধ্যে ভারসাম্য রাখতে চাই। অভিনয় আমার কাছে ভীষণ জরুরি, কিন্তু সেটাই সবকিছু নয়। পাশাপাশি পরিবার ও পড়াশোনাও আমার জন্য জরুরি
নুসরাত ফারিয়া
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

টালিগঞ্জের নায়ক অঙ্কুশের সঙ্গে বিবাহ অভিযান ছবিটা করে আলোচিত হয়েছিলেন নুসরাত ফারিয়া। ছবিটার সাফল্যের পর সেটার সিকুয়েল করবেন বলে ঠিক করলেন পরিচালক বিরসা দাসগুপ্ত। বিবাহ অভিযান টু নিয়ে কথাবার্তাও শুরু হলো ছবির অন্যতম নায়িকা নুসরাত ফারিয়ার সঙ্গে। কিন্তু করোনাভাইরাস সবকিছু এলোমেলো করে দিল।

কথা হলো নুসরাত ফারিয়ার অগ্রযাত্রার ভাবনা নিয়ে। তিনি কি বলিউডের ছবিতে অভিনয় করতে চান? ফারিয়া বলেন, ‘ঢাকা ও কলকাতায় যে পরিমাণ সিনেমা, বিজ্ঞাপন ও স্টেজ শো পাই, তাতেই আমি সন্তুষ্ট। এসব করার পর আর কিছু করার সময় পাব না। কারণ, আমি জীবন ও কাজের মধ্যে ভারসাম্য রাখতে চাই। অভিনয় আমার কাছে ভীষণ জরুরি, কিন্তু সেটাই সবকিছু নয়। পাশাপাশি পরিবার ও পড়াশোনাও আমার জন্য জরুরি।’

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ইনস্টাগ্রামে তাঁর সাড়ে ২৮ লাখ অনুসারী। জীবনের রঙের ভাগ তাঁদেরও দেন ফারিয়া। বললেন, ‘হাসতে খেলতে খুলেছিলাম অ্যাকাউন্টটা। তখন অনেকেই এখানে অ্যাকাউন্ট খোলেনি। লোকে কেবল আমাকে ফলো করে, তা নয়। আমিও প্রায় দেড় হাজার লোককে ফলো করি। এ ছাড়া ব্লগ পোস্ট, ডেইলি লাইফ, বিশেষ করে ফিটনেস, খাওয়া–দাওয়ার বিষয়গুলোও অনুসরণ করি। আর সেলিব্রিটিদের মধ্যে ফলো করি প্রিয়াঙ্কা চোপড়াকে। তাঁকে আমার খুব পছন্দ।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন