default-image

কালজয়ী কথাসাহিত্যিক বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের গল্প অবলম্বনে নির্মিত ছবিতে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হলেন জয়া আহসান। ‘চালচিত্র’ নামের ছবিটি কলকাতার পরিচালক বানাবেন। এই ছবির মাধ্যমে চিত্রগ্রাহক চিত্র ভানু বসুর পরিচালক হিসেবে অভিষেক হতে যাচ্ছে। দীর্ঘদিন ধরে চিত্রগ্রাহক হিসেবে কাজ করা চিত্র ভানু বসু এবারই প্রথম পরিচালক হতে যাচ্ছেন। কলকাতা থেকে আজ সোমবার সন্ধ্যায় প্রথম আলোকে এমনটাই জানালেন জয়া আহসান।

জয়া জানালেন, সুন্দরবনের ভারত অংশে ছবিটির শুটিং শুরু হবে। তার আগে জয়া ‘ওসিডি’ শিরোনামের আরেকটি ছবির শুটিং শেষ করবেন। এই ছবিতে এখন পর্যন্ত সব্যসাচী মুখোপাধ্যায়ের অভিনয়ের কথা শোনা যাচ্ছে। শনিবার কলকাতা শহরের একটি ক্লাবে ছবিটির নাম ঘোষণা করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। জয়া জানালেন, বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের গল্পে এর আগে তাঁর কাজ করা হয়নি। গল্পটা খুব পছন্দ হয়েছে তাঁর।

জয়া জানালেন, এই ছবিতে তাঁর চরিত্রের মেয়েটির শুধু খিদে পায়। সে সবকিছু খেয়ে ফেলে। বেশি খাওয়ার কারণে একদিন তাঁকে গ্রাম থেকে তাড়িয়ে দেওয়া হয়। এভাবেই ছবির গল্পটা এগোতে থাকে।

বিজ্ঞাপন

চিত্র ভানু বসু এর আগে কৌশিক গাঙ্গুলি, সন্দীপ রায়সহ অনেক গুণী পরিচালকের সিনেমায় চিত্রগ্রাহক হিসেবে কাজ করেছেন। জয়া আহসান অভিনীত ছবি দিয়ে পরিচালক হিসেবে অভিষেক হবে চিত্র ভানু বসুর।

default-image

নতুন পরিচালকের সঙ্গে কাজ করার ভাবনা প্রসঙ্গে জয়া বললেন, ‘অনেক দিন ধরে ছবিটিতে অভিনয়ের ব্যাপারে কথাবার্তা চলছিল। ব্যাটে-বলে মিলছিল না। এরপর শিডিউল ফিক্সড করে ছবিটিতে অভিনয়ের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করি। আমরা যখন ছবির কাজ করি, পরিচালক তো শুধু একার মুনশিয়ানায় সেই ছবি বানান না। ছবি তৈরির ক্ষেত্রে চিত্রগ্রাহকের বড় অবদান থাকে। ভানু দা, চলচ্চিত্রের এমন একটা বিভাগে কাজ করেন, অনেক বড় পরিচালকেরাও তাঁর ওপর নির্ভরশীল থাকেন। তাই তাঁর ওপর আমার শতভাগ ভরসা আছে যে নিঃসন্দেহে ভালো কাজ হবে।’

বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের গল্পে তৈরি ছবিতে অভিনয় করতে পেরে ভীষণ আনন্দিত জয়া আহসান। তিনি জানালেন, এই লেখকের গল্প ও উপন্যাস তাঁর বিছানার পাশে সব সময়ই থাকে। তিনি বললেন, ‘বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপন্যাস আমি মাথার পাশে নিয়ে নিয়ে ঘুমাই। আমি প্রকৃতি ভালোবাসি। বিভূতিভূষণ এমন একজন সাহিত্যিক, যাঁর গল্পে কোনো চিত্রনাট্য তৈরির প্রয়োজন পড়ে না। “পথের পাঁচালী”, “অপুর সংসার” যা-ই বলি না কেন, গল্প পড়লেই চিত্রনাট্য পরিষ্কারভাবে ধরা দেয়। আমার বিছানার পাশে ২-৩টি বইয়ের সঙ্গে বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের “আরণ্যক” বইটা থাকে। আমার যখন ইচ্ছা, যেকোনো পাতা উল্টে পড়ি। সেই প্রিয় লেখকের গল্পের একটি চরিত্র হতে যাচ্ছে, এটা আমার বড় পাওয়া।’

জয়া জানালেন, ‘চালচিত্র’ ছবিটি বড় পর্দার জন্য তৈরি হচ্ছে। এরপর ওটিটি প্ল্যাটফর্মে ছবিটি মুক্তি পাবে। পাশাপাশি বিশ্বের বিভিন্ন দেশের চলচ্চিত্র উৎসবে ছবিটি পাঠানো হবে।

default-image

এদিকে কাল বুধবার কলকাতার রাজারহাট এলাকায় শুরু হচ্ছে জয়া আহসান অভিনীত বছরের প্রথম সিনেমা ‘ওসিডি’-এর শুটিং। ছবিটি পরিচালনা করছেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের পরিচালক সৌকর্য ঘোষাল। সৌকর্য ঘোষালের সঙ্গে আগেও একবার কাজ করেছিলেন জয়া আহসান। জয়াকে নিয়ে তিনি নির্মাণ করেছিলেন ‘ভূতপরী’ সিনেমাটি, যেটি এখনো মুক্তি পায়নি। নতুন ছবি প্রসঙ্গে জয়া জানালেন, শিশুদের সমস্যা ও সংকট নিয়ে ছবির গল্প। শুধু তা-ই নয়, এই ছবির প্লট বর্তমান সময়ের আলোচিত একটি ইস্যু।

এই ছবিতে কোন ধরনের চরিত্রে দেখা যাবে আপনাকে? এমন প্রশ্নে জয়া আহসান বলেন, ‘আমার চরিত্রটি ঘিরেই ছবির গল্পটা এগিয়ে যাবে। ছবিতে আমি একজন ওসিডি (অবসেসিভ কমপালসিভ ডিজ-অর্ডার) রোগী এবং একই সঙ্গে একজন চিকিৎসকও। গল্প পড়ে আমার মনে হয়েছে, দর্শকেরা এখন যে রকম গল্প দেখতে চান, এই ছবির গল্পটা সে রকমই।’ জয়া জানালেন, ওসিডি ছবির শুটিং একটানা করা হবে। এরপরই ‘চালচিত্র’ ছবির শুটিং শুরু করবেন জয়া।

বিজ্ঞাপন
ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন