default-image

সেন্সর ছাড়পত্র পায়নি ‘মেকআপ’ ছবিটি। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড কর্তৃপক্ষের অভিযোগ, ছবির গল্পে দেশের চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রি ও এর সঙ্গে জড়িত মানুষকে হেয় করে উপস্থাপন করা হয়েছে। এ ছাড়া ছবির ১৫টি দৃশ্যের সংলাপে তাদের আপত্তি আছে। যদিও ছবিতে কোনো অশ্লীল দৃশ্য নেই এবং কাউকে হেয় করে উপস্থাপন করা হয়নি বলে জানিয়েছেন নির্মাতা অনন্য মামুন। ছবিটি এখন বোর্ডের পর্যবেক্ষণে আছে।

সিনেমা হলে মুক্তি দেওয়ার জন্য সম্প্রতি ‘মেকআপ’ ছবিটি সেন্সর বোর্ডে জমা দেন নির্মাতা অনন্য মামুন। একজন সুপারস্টারের জীবন নিয়ে ছবির গল্প। এই চরিত্রে অভিনয় করেছেন তারিক আনাম খান। কিন্তু ছবিটি দেখে ক্ষুব্ধ সেন্সর বোর্ডের বেশ কয়েক সদস্য। তাঁদের ভাষ্য, ছবিটিতে চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রি নিয়ে নেতিবাচক কিছু বিষয় দেখানো হয়েছে, যা দেখে এই ইন্ডাস্ট্রি নিয়ে মানুষের মধ্যে ভুল ধারণার সৃষ্টি হতে পারে। সেন্সর বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান মো. জসীম উদ্দীন বলেন, ‘সেন্সর বোর্ডের কিছু নীতিমালা আছে। সেটা মাথায় রেখেই আমাদের ছবি দেখতে হয়। ছবিতে নীতিমালা পরিপন্থী বেশ কিছু বিষয় থাকার কারণে এখনো ছবিটি পর্যবেক্ষণে রেখেছি। ছবিটি নিয়ে চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।’

বিজ্ঞাপন
default-image

‘মেকআপ’ ছবিতে একজন চলচ্চিত্র তারকার চরিত্রে অভিনয় করেছেন তারিক আনাম খান। ছবিতে তাঁর নাম শাহবাজ খান। ২০১৯ সালে সুনামগঞ্জ, মানিকগঞ্জ ও ঢাকার বেশ কিছু স্থানে ছবিটির শুটিং হয়। ছবির ডাবিংও করেছেন তিনিই। সে সময় তাঁর কাছে সবকিছুই ঠিকঠাক মনে হয়েছে। এই ধরনের বেশ কিছু ছবিও তিনি দেখেছেন। তারিক আনাম খান জানান, তাঁর নিজের সংলাপে আপত্তিকর কিছু ছিল না। ছবির অন্য সংলাপ সম্পর্কে তিনি কিছুই জানেন না। তিনি বলেন, ‘আমি সব সময় কী সংলাপ বলছি, সে বিষয়ে সতর্ক থাকি। আমি নিজে যেখানে কাজ করে খাই, তাকে কখনোই খারাপ বলতে পারব না। তা ছাড়া একটি ছবিতে ইতিবাচক–নেতিবাচক বিভিন্ন চরিত্র থাকে। সেগুলোর বেশির ভাগ কাল্পনিক। সেগুলোকে সেন্সর বোর্ড কীভাবে দেখেন, এটা তাদের বিষয়।’
ছবির চিত্রনাট্যকার ও পরিচালক অনন্য মামুন বলেন, ‘সেন্সর বোর্ড নিয়ে আমরা দিন দিন খারাপ একটি চর্চার দিকে যাচ্ছি। আমার ‘মেকআপ’ ছবিতে অশালীন কিছু নেই। তবে কিছু সংলাপ নিয়ে তাদের আপত্তি থাকতে পারে। গল্পের ও চরিত্রের চাহিদা অনুযায়ী আমার কাছে যৌক্তিক মনে হয়েছে।’

default-image

নির্মাতা জানান, সেন্সর বোর্ড থেকে এ ব্যাপারে এখনো তিনি কোনো চিঠি পাননি। পেলেই সংশোধন করে আবার জমা দেবেন। যদি কোনো কারণে সেন্সর বোর্ড ছবিটিকে প্রদর্শনের অযোগ্য ঘোষণা দেয়, তাহলে তিনি ওটিটি প্ল্যাটফর্মে ছবিটি মুক্তি দেবেন। সম্প্রতি এই নির্মাতার ‘নবাব এলএলবি’ ছবিও সেন্সর বোর্ডে জমা দিয়েছিলেন। বোর্ড ছবিটি দেখে ১১টি দৃশ্যের সংলাপ নিয়ে আপত্তি জানায়।

default-image
বিজ্ঞাপন
ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন