default-image

জন্মদিনে মুম্বাইয়ে শুটিং নিয়েই ব্যস্ত ছিলেন আরিফিন শুভ। এদিকে ভক্ত ও শুভাকাঙ্ক্ষীরা তাঁকে ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রামে শুভেচ্ছা জানাতে ভোলেননি। মুম্বাইয়ে থাকা শুভর শুটিং–সঙ্গীরাও তাঁকে শুভেচ্ছা জানাতে ভোলেননি। শুটিংয়ের পাকে কাটলেন কেক। পরিচালক শ্যাম বেনেগালের কাছ থেকে পেলেন উপহারও। সব মিলিয়ে শুভর মনে হয়েছে, জীবনের সেরা জন্মদিন হয়ে থাকছে এবার।

default-image

১৯ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনীচিত্র ‘বঙ্গবন্ধু’–এর শুটিংয়ে যোগ দিতে ঢাকা থেকে মুম্বাইয়ে যান আরিফিন শুভ। এপ্রিল পর্যন্ত তাঁকে সেখানে থাকতে হবে। শুভর ধারণা ছিল, মুম্বাইয়ে থাকা তাঁর শুটিং সঙ্গীদের কেউ জন্মদিনের বিষয়টা জানতে পারবেন না। কিন্তু সেই ধারণা ভুল হয়েছে। শুভকে অবাক করে দিয়ে তাঁরা শুটিং সেটে জন্মদিন পালন করেছেন, যা এখন পর্যন্ত তাঁর জীবনের সেরা মুহূর্ত হয়ে ধরা দিয়েছে বলে জানালেন আরিফিন শুভ।

বিজ্ঞাপন

মুম্বাইয়ে থাকা আরিফিন শুভর সঙ্গে সন্ধ্যায় কথা হয় প্রথম আলোর। জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতেই ধন্যবাদ দিয়ে বললেন, ‘ভাবতেই পারিনি, সবাই আমাকে এতটা সারপ্রাইজ দেবেন। ভেবেছিলেন, আমার জন্মদিনের খবর এখানকার কে জানবে। কিন্তু সবাই যে জেনেশুনে উদ্‌যাপনের প্রস্তুতি নিচ্ছে, পরে তা টের পাই। সবাই যেভাবে শুভেচ্ছা জানাচ্ছিল, আমার কাছে পুরো ব্যাপারটা ছিল স্বপ্নের মতো। বারবার আমার এ–ও মনে হচ্ছিল, ২৫৭ টাকা নিয়ে ময়মনসিংহ থেকে ঢাকায় আসা এই আরিফিন শুভর জন্য মুম্বাইয়ের শুটিং স্পটে জন্মদিন উদ্‌যাপন করা হচ্ছে। এটাও আমার চোখের সামনে ঘটছে! শ্যাম বেনেগাল স্যার আমার পাশে দাঁড়িয়ে আছেন। উপহার তুলে দিচ্ছেন, সবকিছু সত্যিই স্বপ্নের মতো।’

default-image

বঙ্গবন্ধুর জীবনী অবলম্বনে নির্মাণাধীন ‘বঙ্গবন্ধু’ ছবিটি পরিচালনা করছেন খ্যাতিমান চলচ্চিত্রকার শ্যাম বেনেগাল।

গত রোববার তাঁর শুটিং ছিল না। আগের দিন শুটিং শেষে মুম্বাইয়ের এক বন্ধুর সঙ্গে শুভ ছোটেন মুম্বাইয়ে জুহুর এক বাড়িতে বলিউডের বিখ্যাত সব গানের গীতিকবি জাভেদ আখতার ও অভিনেত্রী শাবানা আজমি দম্পতি থাকেন যেখানে।

default-image

অন্য অনেকের মতো অভিনেতা শুভরও স্বপ্নের মানুষ এ দুজন। সামনে থেকে তাঁদের দেখা পেয়ে কেমন লেগেছিল শুভর? প্রথম আলোর সঙ্গে আলাপে শুভ জানান, সেই সন্ধ্যার কয়েক ঘণ্টা তাঁর জীবনের অমূল্য নয়, যেন অপার্থিব মুহূর্ত হয়ে রইল। জাভেদ আখতারের সঙ্গে কাটানো চার ঘণ্টা কখনোই ভুলবেন না তিনি। শুভ বলেন, ‘জাভেদ সাহেবের ব্যাপারে আমার পাগলামির কথা তাঁকে জানিয়েছিলেন আমার সেই বন্ধু।

default-image

জাভেদ আখতার আমার বন্ধুকে বলেছেন, শুটিংয়ের ফাঁকে যেন আমাকে তাঁর কাছে নিয়ে যায়।’ বন্ধুর কাছ থেকে যখন জাভেদ আখতারের বাড়িতে যাওয়ার দাওয়াত পেলেন, আনন্দে যেন হাওয়ায় উড়ছিলেন শুভ।

বিজ্ঞাপন
ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন