বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মিশা সওদাগর বলেন, ‘৩০ অক্টোবর চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির মেয়াদ শেষ হয়েছে। সমিতির গঠনতন্ত্র অনুযায়ী মেয়াদ শেষ হওয়ার তিন মাসের মধ্যে নির্বাচন করার নিয়ম। সেই নিয়ম মেনেই আমরা নির্বাচন আয়োজন করছি। তার আগে ৭ জানুয়ারি সমিতির সব সদস্যের উপস্থিতিতে সাধারণ সভা হবে। সেখানে বিগত কমিটির বাৎসরিক আয়, ব্যয়সহ নানা কাজের হিসাব তুলে ধরা হবে।’
জানা গেছে, আগামী নির্বাচনেও গতবারের বিজয়ী মিশা-জায়েদ প্যানেলের কোনো পরিবর্তন হচ্ছে না। একই প্যানেল থেকে তাঁরা নির্বাচন করবেন। এ ব্যাপারে সভাপতি প্রার্থী মিশা সওদাগর বলেন, ‘এবারও আমি ও জায়েদ খান মিলে একই প্যানেল করছি। মোটামুটি সিদ্ধান্তও হয়ে গেছে। এবারে ২১ সদস্যের প্যানেলে এক–দুইটা পরিবর্তন আসতে পারে।’

এদিকে  শোনা গিয়েছিল, এবারের নির্বাচনে শাকিব খান ও চিত্রনায়িকা নিপুণের নেতৃত্বে আরেকটি প্যানেল প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে। কিন্তু শাকিব খান যুক্তরাষ্ট্রে তাঁর নতুন ছবির শুটিংয়ের কারণে শিগগির দেশে আসতে পারবেন না। এ কারণে প্যানেলে পরিবর্তন আসছে।

default-image

এ ব্যাপারে প্যানেলের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী নিপুণ বলেন, ‘দেশের বাইরে থাকার কারণে শাকিব খান নির্বাচনে অংশ নিতে পারছেন না। নতুন করে আবার প্যানেল সাজাচ্ছি। খুব তাড়াতাড়িই প্যানেল চূড়ান্ত হবে। প্যানেলে চমক আছে।’
এবার নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করবেন পীরজাদা হারুন। দুজন সদস্য হলেন বিএইচ নিশান ও বজলুর রাশীদ চৌধুরী। আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যান করা হয়েছে সোহানুর রহমান সোহানকে। মোহাম্মদ হোসেন জেমী ও মোহাম্মদ হোসেনকে আপেল বোর্ডের সদস্য করা হয়েছে।

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন