default-image

একুশে পদকপ্রাপ্ত অভিনয়শিল্পী, নাট্য শিক্ষক এস এম মহসিন আর নেই। আজ সকাল ৯টা ৩০ মিনিটে রাজধানীর বারডেম হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তাঁর মৃত্যুর খবর প্রথম আলোকে নিশ্চিত করেছেন ছেলে রাশেক মহসিন তন্ময়।
করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৪ এপ্রিল হাসপাতালে ভর্তি হন এম এম মহসিন। ৭৩ বছর বয়সী এই অভিনয়শিল্পীর ফুসফুসের ৭০ শতাংশ সংক্রমিত ছিল। নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে প্লাজমা দেওয়াসহ নানাভাবে চেষ্টা করেছেন চিকিৎসকেরা। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি।
জানা গেছে, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার আগে নাট্যজন এস এম মহসিন পাবনায় ‘অন্তরাত্মা’ ছবির শুটিং করেছেন। ছবির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি চরিত্রে তিনি অভিনয় করেছেন বলে জানালেন পরিচালক ওয়াজেদ আলী।

default-image

২ এপ্রিল তাঁর অংশের শুটিং শেষ হয়। পরদিন তিনি ঢাকায় ফিরে আসেন। ঢাকায় আসার কিছু পরই তাঁর করোনা সংক্রমণের খবর জানা যায়।

বিজ্ঞাপন

পরিবারের সদস্যরা দ্রুত তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করান। শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় জরুরি ভিত্তিতে হাসপাতালে নেওয়া হয়।

default-image

এস এম মহসিন বাংলাদেশের একজন প্রখ্যাত মঞ্চ ও টেলিভিশন অভিনেতা। প্রায় চার দশক ধরে মঞ্চ ও টেলিভিশনে অভিনয় করছেন। নাটকে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে ২০২০ সালে একুশে পদক পেয়েছেন তিনি। তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্য বিভাগ অনুষদের সদস্য হিসেবে, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক হিসেবে এবং জাতীয় থিয়েটারের প্রথম প্রকল্প পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।
এস এম মহসিন আতিকুল হক চৌধুরী পরিচালিত ‘রক্তে ভেজা’ ও ‘কবর’ এবং মুনীর চৌধুরী পরিচালিত ‘চিঠি’ ছাড়াও অসংখ্য টিভি, মঞ্চ ও রেডিও নাটকে অভিনয় করেছেন। তিনি ২০১৮ সালে বাংলা একাডেমির সম্মানিত ফেলো লাভ করেন। পেয়েছেন শিল্পকলাসহ অসংখ্য পদকও।

নাটক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন