বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দেশের বাইরে কোথায় কোথায় পালা নিয়ে কাজ করেছেন। সামনে কী পরিকল্পনা আছে?

২০১৭ সালে আইটিআই বিশ্ব কংগ্রেস অনুষ্ঠিত হয় স্পেনে। আমি সেখানে পালা করেছিলাম। তারপর ভারতের পশ্চিমবঙ্গের অনেক জায়গায় পালা করেছি। আমার রচিত ও নির্দেশিত পালা ‘ভানু সুন্দরী’ ভারতের চাকদহের চাকদহ নাট্যজন এবং বাঁকুড়াতে বাঁকুড়া থিয়েটার একাডেমি ‘কইন্যা শশীর পালা’ মঞ্চস্থ করছে ভারতে বিভিন্ন জায়গায়।

default-image

পালা নিয়ে কাজের অভিজ্ঞতা বলুন?

আসলে প্রতিটি জায়গায় পালা করতে গিয়ে সবার ভালোবাসা পেয়েছি। একেকটা নতুন ভালো লাগার অভিজ্ঞতা জন্ম নিয়েছে আমার মনের ভেতর। অভিজ্ঞতার কথা কী বলব, যেখানেই পালা নিয়ে কাজ করতে গিয়েছি, সেখানেই দেখেছি সবাই পরম মমতায়, পরম ভালোবাসায় আমার বাংলাদেশের পালাকে বুকে তুলে নিয়েছে। এটাই আমার সুখের অভিজ্ঞতা।

নাটক নির্দেশনার ক্ষেত্রে পালা ফর্মটিকে ব্যবহারের অনুপ্রেরণা পেলেন কোথা থেকে?

আমার জন্ম কিশোরগঞ্জ আর দাদার বাড়ি নেত্রকোনায়। এ দুটি জেলাকে পালার আঁতুড়ঘর বলা যেতে পারে। ছোট থেকেই পালা ফর্মটি আমার ভীষণ ভালো লাগত। সেই ভালো লাগা থেকে আস্তে আস্তে পালায় নিবেদিত হয়ে যাই।

default-image

পালা নিয়ে আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী?

পালাকার তৈরি করা। কারণ, পালাকার তৈরি না হলে পালা একসময় হারিয়ে যাবে। তাই বিভিন্ন জায়গায় আমার দল আহির বাংলা থেকে পালা নিয়ে কাজ করার সঙ্গে সঙ্গে পালাকার তৈরির জন্য কর্মশালা করিয়ে যাচ্ছে।

নাটক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন