default-image

রেহানে জাবারি নামটি প্রতিবাদের। জন্ম ইরানে, তবে তিনি যেন সারা বিশ্বের নারীর জন্য প্রতিবাদের প্রতীক হয়ে রয়েছেন। তাঁর ১৯ থেকে ২৬ বছর বয়সের বিষাদময় ঘটনার অংশ নিয়ে নাটক লিখেছেন মাহবুব আলম। নাম ‘অবজেকশন ওভাররুলড’।
অনুরাগ থিয়েটারের নতুন নাটক তৃতীয় প্রযোজনা ‘অবজেকশন ওভাররুলড’-এর চতুর্থ মঞ্চায়ন হলো বৃহস্পতিবার, সন্ধ্যা ছয়টায় পুরান ঢাকার সূত্রাপুরের জহির রায়হান মিলনায়তনে। প্রদর্শনীটি আয়োজন করেছে মঞ্চ নাট্য ও সাংস্কৃতিক শিল্পী কল্যাণ সংঘ।

default-image

গত ২৭ নভেম্বর নাটকটির উদ্বোধনী প্রদর্শনী হয় বাংলাদেশ মহিলা সমিতির ড. নীলিমা ইব্রাহিম মিলনায়তনে। নাটকটির গল্পে দেখা যায়, সদ্য আর্কিটেকচার ইঞ্জিনিয়ারিং পড়া শেষ করে বন্ধুদের সঙ্গে ভবিষ্যৎ নিয়ে আলাপ করছে রেহানে জাবারি। মি. সারবান্দি ও মি. শেখী আড়ি পেতে শোনে তাদের কথা। রেহানের সঙ্গে আলাপ হয় কাজ নিয়ে। নিজের স্বপ্ন সত্যি হতে যাচ্ছে ভেবে একদিন যে অফিসের ইন্টেরিয়র ডেকোরেশন করতে হবে, সেটি দেখতে যায় সে। সেখানে তার একাকীত্বের সুযোগ নিতে চেষ্টা করে মি. সারবান্দি।

বিজ্ঞাপন

চেষ্টা করে তাকে নির্যাতন করতে। তার সঙ্গে ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে রেহানে জাবারি মি. সারবান্দিকে ছুরি বসিয়ে দেয়। মি. শেখী রুমে ঢুকলে সেই ফাঁকে রেহানে জাবারি সেখান থেকে বেরিয়ে আসে। মি. শেখী ও সারবান্দির মধ্যে বাধে গণ্ডগোল। মৃত্যু হয় মি. সারবান্দির।

default-image

পুলিশ রেহানে জাবারিকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যায় মি. সারবান্দির হত্যাকাণ্ডের জন্য। খুনের দায় চাপিয়ে দেওয়া হয় রেহানে জাবারির কাঁধে। জেলখানায় রেহানে জাবারির জীবন দুর্বিষহ হয়ে ওঠে। খুনের কোনো প্রমাণ না পেলেও রেহানে জাবারিকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড দিয়ে দেয় বিচারক। মৃত্যুর আগমুহূর্তে রেহানে জাবারি তার মা শোলেহ পাকরাভানের কাছে হৃদয়বিদারক সেই ঘটনাগুলো চিঠিতে লিখে যায়। রেহানের বিশ্বাস কোন এক কালে সে নিশ্চয়ই সঠিক বিচার পাবে। সেখানে সবাই থাকবে অপরাধীর কাঠগড়ায় আর সে থাকবে নির্দোষ।
নাটকটির রচনা, নির্দেশনা ও মঞ্চ পরিকল্পনায় মাহবুব আলম। নাটকটিতে অভিনয় করছেন শামসি আরা সায়েকা, হুমায়রা আনজুম আরিনা, সাহাদাত হোসেন সাহিদ, হামিদা আক্তার দোলা, উর্মি আক্তার, মেহমুদ সিদ্দিকী লেলিন, জাহিদ হাসান আশিক, ইসরাফিল হোসেন সোহান, সুলতানা আক্তার, রাজু আক্তার জনি, নিজাম নূর ও মীর মিজানুর রহমান।

নাটক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন