default-image

ফরিদা জামানের ছবিগুলো যাঁরা এখনো দেখতে আসেননি, তাঁরা বঞ্চিত হবেন। মুস্তাফা মনোয়ারের মতো শিল্পীও ভালোবাসেন ফরিদার ছবি। একবারে প্রদর্শনী করবেন বলে বেশ কিছু ছবি এঁকে জমিয়ে রেখেছিলেন ফরিদা জামান। সেগুলো নিয়ে অবশেষে গত শুক্রবার শুরু হয়েছে তাঁর একক চিত্র প্রদর্শনী ‘ফর দ্য লাভ অব কান্ট্রি’।

জাতীয় জাদুঘরের নলিনীকান্ত ভট্টশালী প্রদর্শনশালাটি সাজানো হয়েছে ফরিদা জামানের আঁকা সাম্প্রতিক সব ছবি দিয়ে। একটি স্থাপনাশিল্পও আছে সেখানে। নৌকা, জল ও জালের সেই স্থাপনা মনে করিয়ে দেবে নদীপাড়ের কথা। আর এক অদ্ভুত অপুষ্ট বেড়ালের দেখা পাওয়া যাবে ফরিদার ছবিতে। ক্যানভাসের ওপরে অ্যাক্রিলিকে আঁকা সেসব ছবির কোনো কোনোটি ৯০ ইঞ্চি বাই ৯০ ইঞ্চি। কোনো কোনো ছবি ফ্রেমে বাঁধানো হয়নি। ছাদের কাছাকাছি দেয়াল থেকে ক্যানভাসটিই ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। কিউরেশন ও ব্যতিক্রম এ সজ্জার জন্য দুই কিউরেটর মো. ওয়াহিদুজ্জামান ও জীনাত ইকরামুল্লাহকে অভিবাদন জানাতে হয়।

এটি শিল্পী ফরিদা জামানের অষ্টম একক চিত্রকর্ম প্রদর্শনী। এ প্রদর্শনী উপলক্ষে প্রকাশিত হয়েছে তাঁর শিল্পযাত্রা নিয়ে একটি ইংরেজি বই। লিখেছেন মার্কিন লেখক মার্টিন ব্র্যাডলি। এশিয়ান শিল্প ও সাহিত্যের ম্যাগাজিন দ্য ব্লু লোটাস–এর সম্পাদক তিনি। শিল্পীর বরোদা ও শান্তিনিকেতনের জীবন নিয়েও ওই বইয়ে লিখেছেন ব্র্যাডলি। লেখা ও চিত্রকলা মিলিয়ে অনন্য ওই বই সংগ্রহ করা যাবে প্রদর্শনশালার প্রবেশমুখ থেকেই।

default-image

প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বরেণ্য চিত্রশিল্পী মুস্তাফা মনোয়ার। তিনি বলেন, ‘ফরিদার ছবি আমি ভালোবাসি। কারণ, এটি যতটা বোঝার, তার চেয়ে বেশি অনুভবের। একে গ্রাহ্য করা যায়। এটি অনুচ্চ এক অনন্য সুন্দর।’ উদাহরণ দিতে গিয়ে তিনি বলেন নিজের শিশুনাতনির কথা। মা–বাবার বিয়ের ছবি দেখার সময় মাকে সে চিনতেই পারেনি। বলেছিল, ‘আর কখনো বউ হবে না, সব সময় মা থাকবে।’ মুস্তাফা মনোয়ার বলেন, শিশুটি তাঁর সাধারণ মাকে গ্রহণ করতে পেরেছে, অলংকার আর সাজসজ্জায় ঢাকা বধূরূপী নারীটিকে নয়। ফরিদার চিত্রকর্মকে তিনি সে রকম গ্রহণযোগ্যতার স্থান দিয়েছেন।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন অস্ট্রেলিয়ার রাষ্ট্রদূত জুলিয়া নিবলেট। সম্মানিত অতিথি ছিলেন শিক্ষাবিদ সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের ডিন নিসার হোসেন ও লেখক মার্টিন ব্র্যাডলি। ছয় দিনের এ প্রদর্শনীতে রয়েছে সম্প্রতি অ্যাক্রিলিকে আঁকা শিল্পীর ৩০টি চিত্রকর্ম। আগামী বুধবার পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল সাড়ে ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে এ প্রদর্শনী ঘুরে আসা যাবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন