default-image
>

বর্তমান সময়ে চলচ্চিত্রে আলোচিত নাম সিয়াম আহমেদ। চলচ্চিত্রে নাম লিখে পরপর তিনটি ছবিতেই দর্শকপ্রশংসা পেয়েছেন। এখন ‘শান’ নামে নতুন ছবিতে অভিনয় করছেন তিনি। মে মাসের শেষের দিকে শুটিং শুরু হয়েছে ছবিটির। ১ জুলাই থেকে ‘বিশ্বসুন্দরী’ নামে আরেকটি ছবির কাজ শুরু হবে তাঁর। চলচ্চিত্রের খবরের পাশাপাশি বিয়ের পর প্রথম ঈদ কেমন কাটল, এসব বিষয়ে কথা বলেছেন সিয়াম।

‘শান’ ছবির শুটিং কেমন হচ্ছে?
পরিকল্পনামতোই কাজ হচ্ছে। মে মাসের শেষের দিকে শুটিং শুরু হয়। মধ্যে ঈদের বিরতি দিয়ে ৮ জুন থেকে আবার শুটিং শুরু হয়েছে। এখন নারায়ণগঞ্জের লোকেশনে শুটিং চলছে। এই ধাপে ৩০ জুন পর্যন্ত শুটিং হবে। আপাতত ছবির ড্রামার অংশের কাজ হচ্ছে। অ্যাকশন অংশের কাজ এখনো শুরু হয়নি। ছবিতে আমার বিপরীতে আছেন পূজা চেরি।

ছবিতে কী ধরনের চরিত্র আপনার?
অ্যাসিস্ট্যান্ট পুলিশ কমিশনার।

ছবির অ্যাকশন দৃশ্যের জন্য বিশেষ কোনো প্রশিক্ষণ নিয়েছেন?
মার্শাল আর্ট। একে কার্ব মাবা বলে। আক্রমণ, আত্মরক্ষা—দুই ধরনেরই প্রশিক্ষণ নিয়েছি। প্রায় দেড় মাস ধরে প্রশিক্ষণ নিয়েছি। প্রচুর পরিশ্রম করতে হয়েছে। ছবির অ্যাকশন দৃশ্যের শুটিংয়ের ফাঁকে ফাঁকেও এই প্রশিক্ষণ চালিয়ে যেতে হবে। আমরা চাইছি, ছবির সব দিকের কাজই যেন সূক্ষ্মভাবে হয়।

‘পোড়ামন ২’ ছবিতে গ্রামের ছেলে, ‘দহন’-এ শহরের নেশাগ্রস্ত যুবক। এবার পুলিশ কমিশনার। চলচ্চিত্রে কাজের শুরু থেকেই আপনার চরিত্রের ভিন্নতা দেখা যাচ্ছে। এটি কি নিজেরই পছন্দ?
সিলেকশনটা নিজেরই। কারণ, একই ধরনের চরিত্রে বারবার দর্শকের সামনে আসতে চাই না। দর্শকের বিনোদন দেওয়াই আমার কাজ, বিরক্তি নয়। সে জন্য চিত্রনাট্য হাতে এলে পরিচালক ও চরিত্র বুঝে কাজ করি। আর চরিত্রের ভিন্নতা থাকলে নতুন কিছু শেখারও সুযোগ হয়।

এ পর্যন্ত চারটি ছবির মধ্যে তিন ছবিতেই আপনার নায়িকা পূজা চেরি। দুজনের আগ্রহে, নাকি অন্যদের?
প্রথম ছবি পোড়ামন ২ থেকেই দর্শকেরা আমাদের দুজনকে পছন্দ করেছেন। দহন ছবিতেও দর্শকেরা ভালোভাবে নিয়েছেন। পরপর কাজ করতে গিয়ে আমাদের দুজনের বোঝাপড়ার জায়গাটা ভালোভাবেই তৈরি হয়েছে। এ সময়ে আমাদের দুজনকে দর্শকেরা জুটি হিসেবে পছন্দ করছেন। এ কারণেই প্রযোজক, পরিচালকরাও আমাদের দুজনকে নিয়ে কাজে উত্সাহিত হচ্ছেন।

শুনলাম ওয়েব সিরিজ করবেন?
মোস্তফা সরয়ার ফারুকী, শিহাব শাহিন, রায়হান রাফিসহ বেশ কয়েকজনের সঙ্গে কথা হয়েছিল। গল্পও ভালো। কিন্তু সিনেমার শুটিংয়ের কারণে শিডিউল দিতে পারিনি। ওয়েব সিরিজে কাজ করার ইচ্ছা আছে।

সম্প্রতি আপনি ও মেহ্জাবীন চৌধুরী জুটি হয়ে একটি মুঠোফোন সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনে মডেল হয়েছেন। সাড়া কেমন?
বেশ আগে একসঙ্গে বেশ কিছু নাটকে আমরা দুজন অভিনয় করেছি। কিন্তু দুজনের একসঙ্গে বিজ্ঞাপনের কাজ এবারই। দর্শকের কাছে আমাদের দুজনেরই গ্রহণযোগ্যতা আছে। তার প্রমাণও পাচ্ছি। বিজ্ঞাপন থেকে ভালো সাড়া পাচ্ছি।

বিয়ের পর প্রথম ঈদ এটি। কেমন কাটল?
ভালো কেটেছে। এবার আমার জন্য ঈদটা বড় ছিল। ঈদের দিন সকালে বউ ও মায়ের হাতের রান্না করা সেমাই খেয়ে নামাজে গিয়েছিলাম। সন্ধ্যায় আমি, মা–বাবা, বউ মিলে দল বেঁধে শ্বশুরবাড়িতে গিয়েছি। ফেরার পথে বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা মিস করিনি। ঈদে বউ আমাকে তিন–চারটা পাঞ্জাবি ও কাবলি কিনে দিয়েছে। আমিও বউকে কামিজ কিনে দিয়েছি। এবার ঈদে বেশি সালামি দিতে হয়েছে, হা হা হা...।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0