মোশাররফ করিম
মোশাররফ করিমছবি: প্রথম আলো
পশ্চিমবঙ্গে মুক্তি পেয়েছে বাংলা সিনেমা ডিকশনারি। পশ্চিমবঙ্গের অভিনয়শিল্পীদের সঙ্গে এ ছবিতে অভিনয় করেছেন বাংলাদেশের মোশাররফ করিম। ব্রাত্য বসু পরিচালিত এ ছবির প্রচারণায় অংশ নিতে কলকাতায় গিয়েছিলেন তিনি। একটি প্রেক্ষাগৃহে যাওয়ার পথে ফোনে কথা বলছিলেন তিনি। সেখানে পৌঁছাতেই ছবি দেখতে আসা ভক্তরা তাঁকে ঘিরে ধরেন। এই সিনেমা, টেলিভিশন নাটকসহ নানা প্রসঙ্গে গত শুক্রবার কথা হয় তাঁর সঙ্গে। শনিবার বিকেলে তিনি ঢাকায় ফিরেছেন।

অবশেষে আপনাকে পাওয়া গেল। কলকাতায় নতুন ছবির প্রচারণা নিয়ে ব্যস্ত নিশ্চয়ই?

কলকাতায় আসার পর থেকেই খুব ব্যস্ত সময় কাটছে। করোনা মহামারির এই সময়ে সেভাবে তো প্রচারণা সম্ভব নয়। সরাসরি দর্শকের কাছে যাওয়াও সম্ভব নয়। তবে কলকাতার গণমাধ্যমকর্মীরা সাক্ষাৎকার নিয়েছেন। প্রতিনিয়ত কথা বলতে হচ্ছে। তাই ফোন দেখারই সুযোগ পাচ্ছি না।

default-image

বৃহস্পতিবার ছবির উদ্বোধনী প্রদর্শনী দেখে কেমন লাগল?

বেশ ভালো লেগেছে। প্রদর্শনীতে কলকাতার চলচ্চিত্র অঙ্গনের অনেকেই ছিলেন। তাঁরা সবাই বেশ প্রশংসা করেছেন। আমার নিজের কাছেও ছবিটি দেখে ভালো লেগেছে। মনে হয়েছে, সবকিছু ঠিকঠাক আছে। নির্মাণ, অভিনয়—সবই ভালো ছিল।

বিজ্ঞাপন

প্রতিবছর ভালোবাসা দিবসের জন্য আলাদা করে কাজ করেন, এবার সেভাবে কাজ করেননি কেন?

ভালোবাসা দিবসের নাটকের শুটিংয়ের সময়টায় দুটি নতুন সিনেমা, একটি ওয়েব সিরিজ, ঈদের নাটক ও ব্যক্তিগত কিছু কাজে প্রচণ্ড ব্যস্ত ছিলাম। দেশের বাইরে যাওয়া–আসার মধ্যেও থাকতে হয়েছে। তাই ভালোবাসা দিবসের নাটকে আলাদা করে অভিনয় করার সময় পাইনি। আগের অভিনয় করা কিছু নাটক প্রচারিত হওয়ার সম্ভাবনা আছে। তবে এখনো জানি না, কোনো নাটক প্রচার হবে কি না।

default-image

‘গাঙ কুমারী’ ও ‘মুখোশ’ ছবি দুটিতে অভিনয় করলেন। একই সঙ্গে ‘অমানুষ’ নামে ওয়েব ফিল্মেও কাজ করলেন। কাজের ক্ষেত্রে কোন মাধ্যমে বেশি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করছেন এখন?

শিল্পের সব মাধ্যম আমার কাছে একই রকম। কোন চরিত্র করছি, সেটাই সবার আগে ভাবি। এখানে আসলে চরিত্র থেকে চরিত্রের পার্থক্য থাকে, সেখানে আমার মতো করে অভিনয়টা করে যাই। এ ক্ষেত্রে যে টিম যত বেশি গোছানো, তারা সেভাবে পুরো কাজ সুশৃঙ্খলভাবে এগিয়ে নেয়। তবে কাজের সময় ও বাজেট ভালো থাকলে অভিনয়ে কিছুটা স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করি।

ভক্তদের সঙ্গে ছবি দেখলেন?

কলকাতার দর্শকেরা আমার সঙ্গে ছবি দেখার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন। একসঙ্গে ছবি না দেখলে তাঁরা কষ্ট পাবেন, তাই দেখতে হয়েছে। কলকাতায় এলেই অনেকে আমার সঙ্গে দেখা করেন। নাটক-ছবি নিয়ে তাঁদের সঙ্গে কথা হয়। ভালোবেসে তাঁরা আমার নামে একটি ফ্যান ক্লাব গড়ে তুলেছেন। সেই ক্লাব থেকে জানানো হয়, ক্লাবের সদস্যরা নতুন ছবিটা দেখার জন্য একটি প্রদর্শনীর সব টিকিট কিনে নিয়েছেন। তাঁরা আমার ছবি নিয়ে খুবই এক্সাইটেড। এ ঘটনা আমাকে আবেগাপ্লুত করেছে।

default-image

আপনার স্ত্রী রোবেনা রেজার পোস্ট করা ছবিতে দেখলাম, বলিউড অভিনেতা অনুপম খেরের সঙ্গে কথা বলছেন। কোথায় কীভাবে দেখা হলো তাঁর সঙ্গে?

ছবির প্রচারণার ফাঁকে টাইমস বিজনেস অ্যাওয়ার্ড প্রোগ্রামে অতিথি হয়ে গিয়েছিলাম। সেখানেই বলিউডের কিংবদন্তিতুল্য অভিনেতা অনুপম খেরের সঙ্গে দেখা হয়। আমাদের ভারতীয় ছবিটির প্রযোজক আমাকে বাংলাদেশের অভিনেতা হিসেবে পরিচয় করিয়ে দিলেন, এরপর তাঁর সঙ্গে কথা হলো। একপর্যায়ে আমাদের তারিক আনাম খান ভাইয়ের কথা বললাম। শুনেছি তাঁরা দুজন ব্যাচমেট ছিলেন। তিনিও তারিক ভাইকে ‘হ্যালো’ বলতে বলেন।

বিজ্ঞাপন

বিদেশের অনুষ্ঠানে গিয়ে সেখানকার বড় একজন অভিনয়শিল্পীর সঙ্গে পরিচিত হয়ে কেমন লাগল?

নিঃসন্দেহে তিনি অনেক বড় একজন অভিনেতা। আমরা ছোটবেলা থেকে তাঁর অভিনয় দেখে আসছি। সেই অভিনয়শিল্পীর সঙ্গে সামনাসামনি দেখা হওয়ার অনুভূতি সত্যিই চমৎকার।

default-image

শুনেছি কলকাতার অনেক জায়গা ও খাবার আপনার পছন্দ। দেখতে যেতে এবং খাবারের স্বাদ নিতে পেরেছেন?

না। খুব কম সময়ের জন্য এসেছি তো, সিনেমার বাইরে কিছুতে সময় দিতে পারছি না। তবে এখানে আসার পর থেকে ভালোই সময় কাটছে।

default-image

কলকাতায় নতুন কোনো ছবি নিয়ে কথা হয়েছে?

কয়েকজন যোগাযোগ করেছেন। কাউকে হ্যাঁ বলিনি। সবকিছু মিলে ভালো লাগলেই করব।

আলাপন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন