বিজ্ঞাপন

ওটিটিতে মুক্তির ফলে বক্স অফিসের চাপ থেকে কি কোথাও মুক্তি পেয়েছেন?

একটা সিনেমায় অভিনয়শিল্পীদের অভিনয় ক্ষমতার প্রশংসা করা হয়। তা সে থিয়েটারে মুক্তি পাক কিংবা ছোট পর্দায়। তাই আমি কোনো দিন কোনো ছবি ঘিরে চাপ অনুভব করিনি। সিনেমায় ভালো কাজ করা আমার কাছে এক দায়িত্বের মতো। নিজের কাজ আমি মনোযোগ দিয়ে করি। দর্শকের আমার কাজ পছন্দ হলে অভিনেতা হিসেবে সেটাই আমার সফলতা।

default-image

এই ছবিতে চরিত্রের প্রয়োজনে আপনাকে শারীরিক অনেক পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছে। এ ধরনের পরিবর্তন শরীরের জন্য কতটা ক্ষতিকর?

আমার শরীর দেখে কেউ যেন অনুকরণ করতে না যায়। ফিটনেস সব সময় ভালো। কিন্তু সব ক্ষেত্রেই বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়া উচিত। অনেক তরুণ সিনেমার হিরো দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে সে রকম শরীর বানানোর প্রয়াস করে, যা একদমই ঠিক নয়। ‘বডি বিল্ডিং’ একটা বিজ্ঞান। কোনো ব্যক্তির শারীরিক গঠন অনুযায়ী কতটা ওয়ার্কআউট করতে হবে, কতক্ষণ শুতে হবে, কত পরিমাণ জল খেতে হবে, ডায়েট—এ সবকিছু নির্ধারণ করা হয়। এক্সপার্টের দেখানো পথে আমাদের চলা উচিত। ট্রেনার আর পুষ্টিবিদ আমাদের সঠিকভাবে চালনা করতে পারে।

default-image

শুনেছি, এই ছবির জন্য প্রচুর ঘাম ঝরিয়েছেন?

হ্যাঁ, শুটিং শুরু হওয়ার আগে টানা আট মাস প্রশিক্ষণ নিয়েছিলাম। সপ্তাহে ছয় দিন পাঁচ ঘণ্টা ট্রেনিং করতাম। চরিত্রের প্রয়োজনে আমাকে মোটা দেখানো জরুরি ছিল। কিন্তু আমার ওজন কিছুতেই বাড়ছিল না। জীবনে আমার ৭৪ কেজির বেশি ওজন বাড়েনি। শেষ পর্যন্ত তুফান–এর জন্য ৮৬ কিলো পর্যন্ত ওজন বাড়িয়েছিলাম। ওই সময়ে তিন হাজার ক্যালরির বেশি খাবার খেতাম। কিন্তু আমার ওজনের কাঁটা ৭৯–তে গিয়ে থেমে গিয়েছিল। তাই ওজন ৮৬-তে নিয়ে আসার জন্য অনেক কড়া পদক্ষেপ নিতে হয়েছিল। আমার জন্য এটা অনেক কঠিন কাজ ছিল। এ ধরনের শারীরিক পরিবর্তনের সময় এক্সপার্টদের পাশে থাকা জরুরি। আমার পাশে ছিলেন বক্সিংয়ের টিম, আমার প্রশিক্ষক সমির জারা, ফিজিওথেরাপিস্ট চিকিৎসক আনন্দ।

default-image

লকডাউনে কীভাবে সময় কাটিয়েছেন?

ভালো-মন্দ মিলিয়ে সময়টা কাটিয়েছি। নিজের পরিবার এবং বন্ধুবান্ধবের সঙ্গে মাঝেমধ্যে দেখা–সাক্ষাৎ করতাম। বই পড়ে, সিনেমা দেখে সময় কাটিয়েছি। কিন্তু এই করোনার সময় এমন কিছু দৃশ্য দেখেছি, যা দেখে মন ভারাক্রান্ত হয়ে গেছে। অসংখ্য মানুষ করোনার কারণে প্রিয়জন হারিয়েছে। শেষ দেখাটাও তাঁরা দেখতে পারেননি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের সাহায্যে আমি এ সময় সাধারণ মানুষের সেবা করেছি। গত কিছু মাস কিছুই ঠিক ছিল না। আমাদের সব হিসাব–নিকাশ উল্টে গেছে।

আলাপন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন