অস্কার আয়োজনের প্রযোজক স্টিভ সোডারবার্গ, জেসি কলিন্স আর স্টেসি শের। এই তিনজনের পক্ষ থেকে ৯৩তম অস্কারে মনোনয়নপ্রাপ্তদের ঠিকানায় পাঠানো হয়েছে একটি বিশেষ চিঠি। সেই চিঠিতে রয়েছে এবারের আয়োজন নিয়ে কিছু বিশেষ নির্দেশনা।

default-image

ওই চিঠিতে মনোনয়নপ্রাপ্তদের অভিনন্দন জানিয়ে বলা হয়, এবারের অস্কারে থাকবে না ‘জুম’। কেননা, ৭৮তম গোল্ডেন গ্লোবের আসরে অনেক তারকাই বাড়ি থেক যোগ দিয়েছিলেন জুম ভিডিওতে, ভার্চ্যুয়াল রেড কার্পেটে। তাতে তৈরি হয়েছিল নানান যান্ত্রিক আর প্রযুক্তিগত জটিলতা। তাই সেখান থেকে শিক্ষা নিয়ে এবারের অস্কার আয়োজনে থাকবে না কোনো ‘জুম’। ২৫ এপ্রিল (বাংলাদেশ সময় ২৬ এপ্রিল) চলচ্চিত্রের সবচেয়ে বড় রাতের আয়োজন অনুষ্ঠিত হবে লস অ্যাঞ্জেলেসের ডলবি থিয়েটারে।

default-image

ওই চিঠিতে লেখা হয়েছে, ‘আপনারা উপস্থিত থেকে সরাসরি এ আয়োজনের সঙ্গে যুক্ত হবেন। আর সারা বিশ্বের মানুষ আপনাদের সঙ্গে যুক্ত হবে সরাসরি। কিন্তু ভার্চ্যুয়াল ব্যাপারস্যাপার লাইভের এই অনুভবই নষ্ট করে দেবে। আমরা সারা বিশ্বকে জানাতে চাই, সিনেমার সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ সরাসরি, চোখে চোখ রেখে। যাঁরা এ সিনেমার সঙ্গে জড়িত, তাঁদের সঙ্গে আমাদের এ আয়োজনের সম্পর্ক আন্তরিক আর ঘনিষ্ঠ।’ ওই চিঠিতে আকর্ষণীয় পোশাক পরতে বলা হয়েছে। আর অস্কার জয়ের ভাষণ যাতে ‘বোরিং’ না হয়, সে জন্য গল্প বলতে তাগাদা দেওয়া হয়েছে।

default-image
বিজ্ঞাপন

কেবল বাংলাদেশেই নয়, সারা বিশ্বেই বেড়েছে করোনার প্রকোপ। এমন পরিস্থিতিতে এমন ঘোষণায় অনেকেরই কপালে পড়েছে চিন্তার ভাঁজ। মনোনীত অনেকেই যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে আটকা পড়ে আছেন। সেসব দেশের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে চলচ্চিত্রের সবচেয়ে বড় আসরে যোগ দেওয়া নিয়ে দেখা দিয়েছে অনিশ্চয়তা।

default-image

ডেনমার্ক, হংকং, রোমানিয়া, তিউনিসিয়া আর বসনিয়া থেকে পাঁচটি আন্তর্জাতিক ফিচার ফিল্মের প্রতিনিধিরা ৯৩তম অস্কারের মঞ্চে উপস্থিত হতে পারবেন কি না, তা নিয়েও রয়েছে শঙ্কা। সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করার বিষয়েও কোনো পরিষ্কার জবাব দেয়নি অস্কার কমিটি। সব মিলিয়ে এবারের অস্কার আয়োজন নিয়ে স্বস্তিতে নেই আয়োজক বা মনোনয়নপ্রাপ্ত ব্যক্তিরা। সূত্র: দ্য লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমস

হলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন