বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জুলিয়ার কানভাগ্য অবশ্য প্রথম থেকেই ভালো। স্বল্পদৈর্ঘ্য ছবি জুনিয়র দিয়ে তাঁর নির্মাণ ক্যারিয়ার শুরু। প্রথম ছবি দিয়েই ২০১১ সালে কানে তিনি জিতে নেন ‘স্মল গোল্ডেন রেইল’ পুরস্কার। পরের বছর ২০১২ সালে ভার্জিল ব্রামলির সঙ্গে তৈরি করেন মজ নামে একটি টেলিভিশন সিনেমা। ৪ বছর বিরতি দিয়ে ২০১৬ সালে প্রথম পূর্ণদৈর্ঘ্য গ্রেভ। সিনেমাটি সেই বছর কানের ‘ক্রিটিকস উইক’ বিভাগের চারটি শাখায় মনোনয়ন পায়, আর জিতে নেয় ফিপরেস্কি পুরস্কার।

২০১৯ সালে তিতান সিনেমাটির ঘোষণা দেন জুলিয়া। পরের বছর এপ্রিলে শুটিং শুরুর আগেই শুরু হয় করোনা। গত বছর সেপ্টেম্বরে জুলিয়া সিনেমার মূল শুটিং শুরু করেন। কোভিডের কারণে বারবার কাজে বাধা আসে। তিতান অমীমাংসিত কিছু অপরাধের ঘটনা নিয়ে শুরু। হঠাৎ করেই ১০ বছর আগে হারিয়ে যাওয়া ছেলেকে ফিরে পায় এক বাবা। ১ ঘণ্টা ৪৮ মিনিটের সিনেমাটির পরতে পরতে রহস্য। সিনেমাটির বাজেট ৫৭ লাখ ইউরো। সিনেমায় প্রধান চরিত্রে অভিনয় করা ভিনসেন্ট লন্ডন ২০১৫ সালে কানের সেরা অভিনেতার পুরস্কার পেয়েছিলেন।

default-image

গ্রাঁ প্রি
আ হিরো, আসগর ফারহাদি, ইরান ও কম্পার্টমেন্ট নম্বর সিক্স, ইউহো কুওসমানেন, ফিনল্যান্ড

তিন–তিনবার স্বর্ণপামের জন্য মনোনয়ন পেয়েছেন আসগর ফারহাদি, একবারও কপালে শিকে ছেঁড়েনি। ২০১৬ সালে দ্য সেলসম্যান-র জন্য পেয়েছিলেন সেরা চিত্রনাট্যের পুরস্কার। সর্বশেষ এভরিবডি নোজ দিয়ে ২০১৮ সালে কানে অংশ নেন, সেবারও কোনো পুরস্কার জোটেনি। তিন বছর পরে আ হিরো দিয়ে যৌথভাবে গ্রাঁ প্রি জিতলেন ফারহাদি। দেনার দায়ে জেলে যায় রহিম। দুই দিনের জন্য ছাড়া পেয়ে আংশিক ধার শোধ করার শর্তে পাওনাদারকে অভিযোগ প্রত্যাহারে রাজি করায়। কিন্তু পরিকল্পনামাফিক সবকিছু ঘটে না।

গ্রাঁ প্রি-জয়ী আরেক ছবি কম্পার্টমেন্ট নম্বর সিক্স-এর পরিচালক ফিনল্যান্ডের ইউহো কুওসমানেন। কম্পার্টমেন্ট নম্বর সিক্স ট্রেনের একটি কামরার নম্বর। ভিন্ন জগতের দুজন অপরিচিত নারী-পুরুষ এই কামরায় মুখোমুখি হন। এই যাত্রা জীবন সম্পর্কে দৃষ্টিভঙ্গি পাল্টে দেয়। মস্কোয় সিনেমাটির শুটিং করতে চেয়েছিলেন ইউহো কুওসমানেন। কোভিডের কারণে পরিকল্পনা বাতিল করে সেন্ট পিটার্সবার্গে শুটিং করেন। ২০০৮ সালে ছাত্র থাকা অবস্থায় তিনি স্বল্পদৈর্ঘ্য ছবি রোডমেকার্স নিয়ে কানে অংশ নেন। পরেরবার তিনি দ্য পেইন্টিং সেলার বানিয়ে সিনেফাউন্ডেশন বিভাগে পুরস্কার জয় করেন। প্রথম পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমা দ্য হ্যাপিয়েস্ট ডে ইন দ্য লাইফ অব ওলি মাকি বানিয়ে আঁ সার্তেঁ রিগায় সেরার পুরস্কার জয় করেন। কম্পার্টমেন্ট নম্বর সিক্স এ বছর তিনটি বিভাগের প্রতিযোগিতা করে।

হলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন