ওহ. মাই. গড.

বিজ্ঞাপন
default-image

কয়েক দিন আগে ছবি শেয়ার করার সাইট ইনস্টাগ্রাম ‘ক্র্যাশ’ করার মতো অবস্থা হয়ে গিয়েছিল। কারণ সেখানে পোস্ট হওয়া এক ছবির নিচে ২৪ ঘণ্টারও কম সময়ে ৮০ লাখেরও বেশি ‘রিঅ্যাকশন’ আসে। সেই ছবিটি পোস্ট করেন হলিউড অভিনেত্রী জেনিফার অ্যানিস্টোন আর সেই ছবিতে ছিল জনপ্রিয় সিটকম সিরিজ ‘ফ্রেন্ডস’–এর অভিনয়শিল্পীদের বর্তমানের চেহারা। ‘ফ্রেন্ডস’–এর ‘র‌্যাচেল’ চরিত্রের অভিনেত্রী সেদিন এই এক ছবি দিয়ে ইতিহাস গড়েছিলেন। এরপর থেকে শুরু হয় গুঞ্জন, ‘আবার ফিরছে ফ্রেন্ডস’। অবশেষে সেটা সত্যিও হয়। জানা যায় পর্দায় আবার পাওয়া যাবে মনিকা, র‌্যাচেল, ফিবি, জোয়ি, রজ আর শ্যান্ডলারকে। নতুন করে আসবে ফ্রেন্ডস, আবার সেই কমলারঙা সোফায় জমবে তাঁদের আড্ডা। তাই সিরিজের জনপ্রিয় চরিত্র জেনিসের মতো বলতেই হয়—ওহ মাই গড!

শুরুর কথা

এনবিসি নেটওয়ার্কে ১৯৯৪ থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত প্রচারিত এই সিরিজ কয়েক প্রজন্মের বেড়ে ওঠা আর তারুণ্যের স্মৃতি। ১০ মৌসুমের এই সিরিজ শেষ হয় ১৫ বছর আগে। কিন্তু চোখের আড়াল হলেও মনের আড়াল হয়নি ‘ফ্রেন্ডস’। এই প্রজন্মের কাছেও এই সিরিজ সমান জনপ্রিয়। এই জনপ্রিয়তার কারণ নিয়ে রীতিমতো গবেষণা হয়েছে নানা দেশে নানা সময়ে।

ডেভিড ক্রেন ও মার্থা কফম্যানের লেখা এই কমেডি সিরিজ ছয় তরুণকে নিয়ে। এই ছয়জনের চরিত্রে অভিনয় করেই সাধারণ থেকে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে উঠে গেছেন কার্টনি কক্স, জেনিফার অ্যানিস্টোন, লিসা কুডরো, ম্যাট লেব্ল্যাঙ্ক, ডেভিড সুইমার, ম্যাথিউ পেরি।

default-image

ফ্রেন্ডস দেখেই বলতে শেখা
অনেকেই ভাবতে পারেন, এ কেমন কথা? যে সিরিজ আজ থেকে ১৫ বছর আগেই শেষ, সেটা কেমন করে এ সময়ের তরুণদের প্রিয় হতে পারে? তাঁদের জন্য বলে রাখি, এমনও নজির রয়েছে ‘ফ্রেন্ডস’ সিরিজ দেখেই বলতে শেখা শিশু এখন ফ্রেন্ডস অ্যাপার্টামেন্ট নিবাসীদের মতো চাকরিবাকরি করে বেড়াচ্ছেন। মনিকা, র‌্যাচেল, জোয়ি, শ্যান্ডলার মতো হওয়ার স্বপ্ন দেখতে দেখতে বড় হয়েছেন। এমন একজনের নামও বলে দিতে পারি। জনপ্রিয় কোরীয় গানের দল বিটিএসের আর এম (কিম নাম জুন) নাকি অনর্গল ইংরেজি বলতে শিখেছেন এই ‘ফ্রেন্ডস’ সিরিজ দেখেই। এলেন ডিজেনারেসের অনুষ্ঠানে এসে আরএম বলেছিলেন, তাঁর মা–বাবা ছোটবেলায় নিয়ম করে তাঁকে ‘ফ্রেন্ডস’ সিরিজ দেখাতেন। এ জন্যই আজ ইংরেজিতে কথা বলে বিশ্বমঞ্চে নিজের দলের প্রতিনিধিত্ব করতে পারেন আরএম। একটা টিভি সিরিজ কতভাবেই না জীবন গড়ে দিতে পারে ভক্তদের!

১০টি মৌসুমে ‘ফ্রেন্ডস’–এর আছে ২৩৬টি পর্ব। বিভিন্ন সময় এই সিরিজের দেখা গেছে ব্র্যাড পিট, ব্রুস উইলিস, জুলিয়া রবার্টস, গ্যারি ওল্ডম্যানের মতো হলিউড তারকাদের।

মূল ৬ চরিত্র ছাড়াও ফ্রেন্ডসে অভিনয় করার পর অনেক অভিনেতাই উঠে এসেছেন লাইমলাইটে। পরবর্তী সময়ে সেই শিল্পীদের ক্যারিয়ার অনন্য উচ্চতা পেয়েছে। যেমন ধরা যাক ক্রিস্টেন টেইলর, ডাকোটা ফ্যানিং, স্টিভ ঝানের কথা। মার্ভেল সিনেমাটিক ইউনিভার্সের ‘অ্যান্টম্যান’ পল রুডকে তো অনেকেই চেনেন। তিনিও কিন্তু ‘ফ্রেন্ডস’–এর শেষ অংশে বেশ গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন।

default-image

ফ্রেন্ডস পুনর্মিলনী
ছয়টি এমি অ্যওয়ার্ডসহ একগাদা সম্মাননা পাওয়া ফ্রেন্ডস জনপ্রিয়তার কথা লিখে শেষ করা যাবে না। যাঁরা এখনো ‘ফ্রেন্ডস’ দুনিয়ায় ঢুঁ মারেননি, তাঁরা এখনই দেখে নিতে পারেন। কারণ দ্য হলিউড রিপোর্টারের তথ্যানুযায়ী এইচবিও ম্যাক্স কাজ করছে ‘ফ্রেন্ডস’ পুনর্মিলনী নিয়ে। শিগগিরই এই সিরিজের নতুন রূপ আসতে যাচ্ছে সবার সামনে। তাই নিজেকে সামনের দিনের জন্য প্রস্তুত করতে দেখে নিন ১০ মৌসুমের পুরো ২৩৬টি পর্ব।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন