default-image

২০২০ সালের মার্চে আর্কিটেকচারাল ডাইজেস্টের একটা ভিডিও নতুন করে এসেছে আলোচনায়। হঠাৎ করেই ‘ফিফটি শেডস অব গ্রে’খ্যাত ডাকোটা জনসনের বাড়ির ওপর নির্মিত ১০ মিনিটের সেই ভিডিও হুমড়ি খেয়ে দেখছেন ভক্তরা। ভিডিওতে দেখা যায়, বসার ঘর, মিটিং রুম পার করে ডাকোটা ঢুকেছেন রান্নাঘরে। সেখানে একটা থালায় আর একটা বাটিতে সাজানো রয়েছে লেবু। লেবুগুলো ডাকোটার বাড়ির সামনের গাছগুলো থেকে তুলে আনা। তিনিই লাগিয়েছিলেন গাছগুলো। এই হলিউড তারকার ভাষায়, লেবুগাছগুলো তখন ‘বেবি’ ছিল।

default-image

ঘটনা হচ্ছে, ওই ভিডিওতে ডাকোটা বলেছিলেন, তিনি নাকি লেবু খুবই ভালোবাসেন। লেবু ছাড়া তাঁর চলেই না। এবার জনপ্রিয় মার্কিন উপস্থাপক জিমি ফ্যালন ‘দ্য টুনাইট শো’তে চেপে ধরেছেন ডাকোটা জনসনকে। শোর প্রথম প্রশ্নই ছিল, ‘আমি যত দূর জানি, লেবুতে আপনার অ্যালার্জি। তবে কি যখন লেবু খান, তখন অ্যালার্জির ওষুধ দুটো বেশি খান?’

বিজ্ঞাপন

উত্তরে ডাকোটা প্রথমে কিছুক্ষণ হেসেছেন। তারপর নিজের ভুল স্বীকার করে নিয়ে বলেছেন, ‘লেবু আমার ভালো লাগে। তবে খেতে না। ঘর সাজাতে। কচলানোরও অভ্যাস আছে (হাসতে হাসতে)। লেবু কচলাতে ভালোবাসি। আমার বাড়ির সামনে বেশ কয়েকটা লেবুগাছ আছে। একেকটা একেক দেশ থেকে আনা। লেবু ধরে থাকলে ওদের খুব সুন্দর দেখায়। আর কী সুন্দর ঘ্রাণ। প্রাকৃতিক এয়ার ফ্রেশনার। বাটিতে লেবু সাজিয়ে রাখা হয়েছিল ঘর সাজানোর অংশ হিসেবে। আসলে আমি লেবু খাই না। আসলে আমি জানতামই না যে রান্নাঘরে ওভাবে লেবু সাজানো ছিল। আমার ঘর সাজানোর দল লেবুটা ওভাবে রেখেছিল। আমি লেবুগুলো দেখে ঠিক কী বলব, বুঝে উঠতে পারছিলাম না।’

default-image

লেবু পছন্দ না করলেও চা খুবই পছন্দ ডাকোটার। তাই নিজের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের নাম দিয়েছেন ‘টি–টাইম পিকচার্স’। মূলত এই প্রতিষ্ঠান নিয়ে কথা বলার জন্যই ‘দ্য টুনাইট শো’তে হাজির হয়েছিলেন ডাকোটা।

default-image

ডাকোটা অভিনীত, মুক্তি পাওয়া শেষ ছবি ‘দ্য হাই নোট’। ১৬৯ কোটি খরচ করে বানানো ছবিটি বক্স অফিস থেকে খুব কষ্টে তুলে আনতে পেরেছিল মাত্র ২০ কোটি টাকা। এটি বছরের সেরা ফ্লপ ছবিগুলোর একটি। সস্প্রতি শেষ করেছেন ‘দ্য লস্ট ডটার’–এর শুটিং।

হলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন