default-image

লোকমুখে ভারত সম্পর্কে একটি কথা প্রচলিত আছে, ‘ইন্ডিয়া মে সিনেমা, ক্রিকেট অর পলিটিকস চ্যালতা হ্যায়।’ এ বছরের টুইটার প্রকাশিত ভারতের ‘সবচেয়ে প্রভাবশালী মুহূর্তের তালিকা’ দেখলে কথাটির সত্যতা মেলে।

এ বছরে ভারতের জাতীয় নির্বাচন আর কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলসহ নানা ঘটনায় আলোচনার মধ্যে ছিল ভারত। ক্রিকেট বিশ্বকাপে ভারতের বিদায়ও ছিল টুইটারে আলোচনা। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটার কিন্তু তা বলছে না। কারণ আলোচনার ক্ষেত্রে ভারত থেকে টুইটারে শীর্ষ পাঁচে আছে দক্ষিণের দুটি সিনেমা।

বছর শেষ হতে চলল। তাই টুইটার ভারতে সবচেয়ে প্রভাবশালী মুহূর্তের একটি তালিকা প্রকাশ করছে। টুইটারেও সবচেয়ে বেশি টুইট, রিটুইট, লাইক ও আলোচনার ভিত্তিতে টুইটার এই তালিকা প্রকাশ করছে। দক্ষিণের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেতা অজিথ কুমারের ‘বিশ্বওসাম’ ছবিটি নিয়ে ভারত থেকে টুইটারে সবচেয়ে বেশি আলোচনা হয়েছে। ছবিটি এ বছর মাইক্রো-ব্লগিং ওয়েবসাইট টুইটারে ‘সবচেয়ে প্রভাবশালী মুহূর্তের তালিকায়’ শীর্ষে রয়েছে ‘বিশ্বওসাম’। বিশ্বের অন্যতম বড় গণতন্ত্রের দেশে এ বছরের নির্বাচনও সেই আলোচনার কাছে মার খেয়েছে। ‘#লোকসভাইলেকশন২০১৯’ এবং ‘#সিডব্লিউসিনাইনটিন’-এর চেয়ে বেশি আলোচনার জন্ম দিয়েছে ছবিটি। টালিউড সুপারস্টার মহেশ বাবুর ‘মহর্ষি’ সেরা তালিকায় চতুর্থ স্থানে আছে। এরপরই ‘#হ্যাপিদিওয়ালি’রয়েছে।

default-image

ছবির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান সত্য জ্যোতি ফিল্মস ও পরিচালক শিবা ভক্ত দর্শকদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন। তাঁরা টুইটারে বলেছেন, ‘#অজিথ স্যারের ভক্তরা, আপনারা আবার নিজেদের প্রমাণ করেছেন। #বিশ্বওসাম এবং #ভালিমাইকে আবার শীর্ষ প্রমাণ করলেন। সবকিছুর জন্য আপনাদের ধন্যবাদ।’

আসলে তামিল অভিনেতা অজিথের ফ্যান অনেক। ভক্তদের কাছে তিনি থালা অজিত নামে পরিচিত। দেশে ও দেশের বাইরে কয়েক শ ফ্যান পেজ রয়েছে। তাঁর ভক্তরা প্রায় প্রতিদিনই অজিথের নানা কর্মকাণ্ড টু্ইটারে তুলে ধরেন। এতে অন্যদের কাছে পৌঁছে যায় অজিথের সব খবর। আর টুইটারে তৈরি হয় বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয়তার প্রবণতা।

‘বিশ্বওসাম’ ছবিটি এ বছরের ১০ জানুয়ারি মুক্তি পায়। ‘বিশ্বওসাম’ ছবিতে অজিথের সঙ্গে আছেন নয়নতারা। রজনীকান্তের ‘পেটা’ ছবির সঙ্গে অজিথের ‘বিশ্বওসাম’ও মুক্তি পায়। রজনীকান্তও ফেল মারলেন থালা অজিথের কাছে। পরিচালক শিবার সঙ্গে এটি অজিথের চতুর্থ ছবি। এর আগে অজিথ-শিবা জুটি ‘ভিরাম’, ‘ভেদালাম’ এবং ‘ভিভেগাম’ ছবি করেন। সব ছবি সুপার-ডুপার হিট। বাবার ভালোবাসার মেয়েকে নিয়েই ছবির গল্প। ছবিটি বেশ সাড়া ফেলে বক্স অফিসে।

default-image

মহর্ষি মহেশবাবুর ২৫ তম ছবি। মে মাসে মুক্তি পাওয়ার পরই বেশ হইচই ফেলে দেয় ছবিটি। সমালোচক ও সিনেমাপ্রেমীরা ভালো রেটিং দেন ছবিটিকে। ৯০ কোটি রুপির ছবিটি কয়েক মাসেই আয় করে ফেলে ১৭৫ কোটি। ছবিটি এখনো বিশ্বের প্রেক্ষাগৃহে চলছে। বন্ধুত্ব আর দেশের কৃষক সমাজ নিয়ে তৈরি ছবিতে মহেশের সঙ্গে আছেন পূজা হেগড়ে। কৃষকদের কাজে স্বীকৃতি দিতে চাওয়ার গল্পনির্ভর ছবিটি মহেশের পরপর চতুর্থ ছবি, যা শতকোটি ক্লাবে পা রাখে।

অজিথ কুমার আর মহেশ বাবুর ভক্ত আছে বিশ্বব্যাপী। এঁদের ছবি মুক্তি পেলেই সাড়া পড়ে যায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। তথ্যসূত্র: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস ও পিঙ্ক ভিলা

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন