default-image

মার্কিন অভিনয়শিল্পী, মডেল ও সংগীতশিল্পী নায়া রিভেরার মৃত্যু পানিতে ডুবে হয়েছে। আর এটি নিছক দুর্ঘটনাবশত বলে দাবি ময়নাতদন্তে। ৩৩ বছর বয়সী নায়া জনপ্রিয় কমেডি টিভি সিরিজ 'গ্লি' তে সান্তানা লোপেজের চরিত্র করে জনপ্রিয় হন। সিরিজটি ২০০৯ সাল থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত, ৭ বছর চলেছে। যেদিন লেক থেকে নায়ার লাশ উদ্ধার করা হয়, এর ঠিক ৭ বছর আগে গ্লি সিরিজের আরেক অভিনয়শিল্পী কোরি মনটেইথের লাশ পাওয়া যায় হোটেলে। অতিরিক্ত হেরোইন ও অ্যালকোহল সেবনে তাঁর মৃত্যু হয়।

আট দিন আগে, গত মঙ্গলবার চার বছর বয়সী ছেলেকে নিয়ে নৌকাভ্রমণে বের হন নায়া। লেক পিরু থেকে একটা প্যান্টুন নৌকা ভাড়া করে ছেলেকে নিয়ে ভ্রমণ শুরু করেন। ছেলেকে ওই নৌকা থেকে ঘুমন্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। পরে সে পুলিশকে জানায়, তার মা নৌকা থেকে লাফিয়ে সাঁতার কাটছিল, তারপরে আর ফেরেনি। নায়া নিঁখোজ হওয়ার ৬ দিন পর সোমবার ডুবুরিরা তাঁর লাশ উদ্ধার করতে সমর্থ হয়। নায়ার ময়নাতদন্তে কোনো অ্যালকোহল, ওষুধ বা কোনো শারীরিক অসুস্থতার প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

৪ বছর বয়সে সিবিএস সিটকম দ্য রয়্যাল ফ্যামিলি দিয়ে অভিনয় শুরু করেন নায়া। এখানে অভিনয়ের জন্য সেরা শিশুশিল্পী বিভাগে মনোনয়নও পান। তবে গ্লি-ই তাঁকে তারকা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করে। একাধিক প্রেম আর বিচ্ছেদের পর অভিনেতা রায়ান ডর্সিকে ২০১৪ সালে ভালোবেসে বিয়ে করেন নায়া। ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বরে তাঁদের সন্তান জন্ম নেয়। এর আগে ২০১০ সালে নায়া একবার গর্ভপাত করিয়েছিলেন।

default-image

২০১৬ সালে নায়া বিচ্ছেদের আবেদন করেন। ২০১৭ সালে সন্তানের অভিভাবকত্ব নিয়ে মনোমালিন্যের একপর্যায়ে নায়া রায়ানের মাথায় আঘাত করলে পুলিশ এসে নায়াকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যায়। সেবার নায়ার শ্বশুরই তাঁকে ছাড়িয়ে এনেছিল। ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে আইনগতভাবে এই জুটির বিচ্ছেদ হয়। বিচ্ছেদের পর সন্তানের অভিভাবকত্ব ভাগাভাগি করে নেন দুজনে।

এর আগে নায়া গ্লি এর সহকর্মী মার্ক সালিং এর সঙ্গে ২০০৮ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত প্রেম করেছেন। তারপর বিচ্ছেদের বিষয়ে বলেছেন, 'মার্ক আমার জীবনে ঘটা সবচেয়ে জঘন্য ব্যপার।' মার্ককে ২০১৫ সালে 'চাইল্ড পর্নোগ্রাফি'র সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হলে নায়া বলেছিলেন, 'আমি মোটেও আশ্চর্য নই।' রেকর্ডিং আর্টিস্ট বিগ সিনের সঙ্গেও কিছুদিন প্রেম করেছেন নায়া। সেই প্রেম বাগদান পর্যন্ত গড়িয়েও ভেঙে যায়।

বিজ্ঞাপন
হলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন