বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পশ্চিমা বিনোদন ইন্ডাস্ট্রি কতটা পুরুষতান্ত্রিক এবং নারী শিল্পীরা কতটা বৈষম্যের শিকার, তারই বয়ান তুলে ধরেন এই পপ আইকন। তাঁর ভাষায়, ‘সমস্যা হলো, এখনো আমরা মারাত্মকভাবে লৈঙ্গিক বৈষম্যে ভরা পৃথিবীতে বাস করি। যেখানে নারীদের আলাদা শ্রেণি হিসেবে চিহ্নিত করা হয়।’

default-image

এই পপ তারকা আরও বলেন, ‘নারীরা নিজেদের যেভাবে দেখাতে চান, সেভাবে দেখানোর সুযোগ থাকা উচিত। যদি বিলি পুরুষ হতো, কেউ তাকে নিয়ে লিখত না। একজন পুরুষ তার ক্যারিয়ারের প্রথম তিন বছর খুব সেজেগুজে স্যুট আর টাই পরে থাকে। আর পরের মাস থেকেই সে পরতে পারে রাজপুত্রের পোশাক কিংবা মিক জ্যাগারের মতো শার্ট খুলতে পারে, আইলাইনার লাগাতে পারে, কেউ কিছু বলতে পারে না।’

পোশাক নিয়ে বিলি হরহামেশাই ট্রলের শিকার হন। এবারের মেট গালাতে তিনি হাজির হয়েছিলেন ডিজনি রাজকুমারীদের মতো গাউন পরে। তাঁকে দেখতে মনে হয়েছিল যেন মেরিলিন মনরো। এ নিয়েও তাঁকে কটাক্ষ শুনতে হয়। বিলি আইলিশের পোশাকের নিজস্ব একটা ধরন ছিল। সেভাবে দেখতে অভ্যস্ত হয়ে গিয়েছিলেন দর্শক। কিন্তু সম্প্রতি তিনি সেই ধরন পাল্টে ফেলেছেন। তার চেয়ে একটু আবেদনময়ী ও খোলামেলা পোশাকে দেখা গেছে তাঁকে। আর তাতেই খেপেছেন ভক্তরা। এমনকি ইনস্টাগ্রাম থেকে এক লাখ ভক্ত উধাও। বিলি নিজেই জানিয়েছেন সেটা।

default-image

তবে নিন্দুকেরা যে যা–ই বলুক। বিলি নিজের কাজটা করেন মনোযোগ দিয়েই। গত বছর গ্র্যামির আসরে ইতিহাস গড়েছিলেন। একই তুলে নিয়েছিলেন চারটি পুরস্কার। সেরা চার ক্যাটাগরি—সেরা নতুন শিল্পী, সেরা গান, সেরা রেকর্ড আর সেরা অ্যালবাম জিতে নিয়েছিলেন বিলি আইলিশ।

হলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন