বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

‘বডি ডিজমরফিয়া’ একটা মানসিক রোগ, যেখানে কেউ তাঁর শরীরের কোনো অসংগতি কিংবা দুর্বলতা নিয়ে সর্বদা দুশ্চিন্তার মধ্যে থাকে। কখনো কখনো এই অসংগতি সে লুকাতে চায় কিংবা আড়াল করে। মানসিক এই অবস্থা অনেক সময় অস্বস্তি তৈরি করে। জীবনকে করে তোলে দুর্বিষহ। ওই সাময়িকীর কাছে খোলা মনে অনেক কথাই বলেছেন মেগান। তিনি বলেন, ‘আমরা কারও শরীরের দিকে তাকিয়ে ভাবি, আহা মানুষটা কত সুন্দর! তাঁদের জীবন কত সহজ। হয়তো তাঁরা নিজেরা তাঁদের নিয়ে এভাবে চিন্তা করেন না।’

default-image

তবে কী করে তাঁর মধ্যে শরীর নিয়ে এ নিরাপত্তাহীনতা তৈরি হলো, বিস্তারিত বলেননি এই অভিনেত্রী। এর আগে তিনি জানিয়েছিলেন, মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে তাঁর সমস্যা আছে। ২০০৯ সালে ’জেনিফারস বডি’ যেন মেগানের নিজের জীবনের কথাই বলেছিল। কারণ, চলচ্চিত্র ও গণমাধ্যমে সব সময়ই তাঁকে ‘সেক্সুয়ালাইজড’ হিসেবে উপস্থাপন করা হয়েছে। মেগান বলেন, ‘এটা শুধু একটি সিনেমাই ছিল না। এটাই আমার জীবনের প্রতিটি দিন। আমি যেসব ছবিতে কাজ করেছি, যেসব প্রযোজকের সঙ্গে কাজ করেছি, এমনই ছিল আমার সবগুলো দিন।’

default-image

প্রেমিক মেশিন গান কেলির সঙ্গে তাঁর সম্পর্কের বিষয়টি নিয়েও কথা বলেন মেগান। তিনি বলেন, ‘প্রথমবার তাঁর চোখে তাকিয়েই আমার মনে হয়েছিল আমি তোমাকে চিনি। অনেক দিন ধরে জানি। অনেক রূপে জানি। অনেক জীবনে জানি।’
‘মিডনাইট ইন দ্য সুইচগ্রাস’ ছবিতে প্রেমিক কেলির সঙ্গে অভিনয় করেছেন মেগান ফক্স। দুজনের প্রেম নিয়ে বাজারে নানা কথা থাকলেও ওসব পাত্তা দেন না মেগান। এ নিয়ে মুখও খুলেছেন বার কয়েক। অভিযোগ ছিল, মেশিন গান কেলির মধ্যে ছেলেমানুষি আছে! ওতে কিছু যায় আসে না মেগানের। তাঁরা অপেক্ষায় আছেন সংসার পাতবেন বলে।

হলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন