সোমবার সকালে অনুষ্ঠিত হলো পিপলস চয়েস অ্যাওয়ার্ড ২০২০। চলচ্চিত্র, টেলিভিশন, গান ও পপ কালচার—চার শাখায় বছরের সেরাদের দেওয়া হলো পুরস্কার। এই আয়োজনে বর্ষসেরা আইকন হিসেবে পুরস্কৃত হয়েছেন ৫১ বছর বয়সী মার্কিন নায়িকা ও গায়িকা জেনিফার লোপেজ। টকটকে লাল মিনি ফ্রক পরে জেনিফার যখন মঞ্চে, তখন বাড়ি থেকে ভিডিও বার্তায় তাঁকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রেনে জেলওয়েগার, নিকোল কিডম্যান ও যমজ দুই মেয়ে ম্যাক্স আর এমে।

default-image

রেনে বলেন, ‘জেনিফার যা কল্পনা করে, তার সবই বাস্তবে ঘটিয়ে দেখায়।’ নিকোল বললেন, ‘জেনিফার মানেই উদ্যম।’ আর ১২ বছর বয়সী দুই সন্তান একসঙ্গে বলল, ‘মা তুমি আমাদের গর্ব।’ এসব দেখেশুনে আবেগে আপ্লুত লোপেজ তাঁর প্রতিক্রিয়ায় বললেন, ‘২০২০ সালটা ঠাট্টা নয়। করোনা আঘাত না হানলে এই বছরও আমরা মনোনয়ন, পুরস্কার, বক্স অফিস, অ্যালবাম বিক্রি, হট চার্ট রেকর্ডের জন্য মুখিয়ে থাকতাম। ভাবতাম, এগুলোই বুঝি জীবনের মানে। কিন্তু মহামারি আমাদের শেখাল, একা বাঁচা যায় না। তাই যা কিছু কেবল নিজের জন্য, তা অর্থহীন।’

default-image
বিজ্ঞাপন

‘হাসলার্স’ তারকা লোপেজ বলেন, ‘মানুষকে সাহায্য করা, পরস্পরকে ভালোবাসা, অন্যের প্রতি সদয় হওয়া ছাড়া সভ্যতাকে এগিয়ে নেওয়া যাবে না। যখন ভেঙে পড়ি, পরিবার আর ভক্তদের সাহস ও শক্তিতে আবারও উঠে দাঁড়াই, জয়ী হই। আমার পরিবার, সঙ্গী অ্যালেক্স রদ্রিগেজ, দুই মেয়ে ও ভক্তদের সমন্বয়ে বর্ধিত পরিবারকে বলছি, আজ আমি যা, তা আপনাদের জন্যই। তাই বিশ্বের সেরা আইকনের এই ট্রফি আপনাদের।’

default-image

বক্তব্যের শেষে লোপেজ বলেন, ‘একজন লাতিন নারী হিসেবে বিশ্বের সফলতম তারকা হওয়ার যাত্রাটা আমার জন্য সহজ ছিল না। অন্যদের চেয়ে বেশি পরিশ্রম করতে হয়েছে, একবারের জায়গায় দুবার, বারবার প্রমাণ করতে হয়েছে। লোকে বলত, তুমি ভালো নাচো, গাও, ফলে ভালো অভিনেত্রী হতে পারবে না। তুমি ভালো নায়িকা, গায়িকা, নৃত্যশিল্পী, তোমার প্রযোজক হওয়ার কী দরকার? তুমি ব্যবসার কী বোঝো? তুমি ভালো ব্যবসায়ী হতে পারবে না। আমি সব হয়েছি, সফলভাবেই সবকিছু হয়েছি। তাই দিন শেষে আমার বিশ্বাস, নিজের জেদ আর মানুষের ভালোবাসা—দুই–ই আমাকে এখানে এনে দাঁড় করিয়েছে।’

default-image

পিপলস চয়েস ২০২০-এ সেরা যারা:


বিভিন্ন শাখায় সেরা সিনেমা ‘ব্যাড বয়েজ ফর লাইফ’, ‘দ্য কিসিং বুথ টু’, ‘মুলান’, ‘হ্যামিলটন’, ‘অনওয়ার্ড’। সেরা অভিনেতা উইল স্মিথ, ছবি ‘ব্যাড বয়েজ ফর লাইফ’; অভিনেত্রী টিফানি হ্যাডিস, ছবি ‘লাইক আ বস’; দ্য ড্রামা মুভি স্টার লিন-ম্যানুয়েল মিরান্ডা, ছবি ‘হ্যামিলটন’; কমিডি মুভি স্টার জয়ই কিং, ছবি ‘দ্য কিসিং বুথ টু’; অ্যাকশন স্টার ক্রিস হেমসওর্থ, ছবি ‘এক্সট্রাকশন’।

default-image


পপসংগীতে সেরা গায়ক জাস্টিন বিবার, গায়িকা আরিয়ানা গ্র্যান্ডে, সেরা দল বিটিএস, সেরা গান বিটিএসের ‘ডায়নামাইট’, সেরা অ্যালবাম বিটিএসের ‘ম্যাপ অব দ্য সোল: সেভেন’, সেরা নবীন দোজা ক্যাট, সেরা সংগীতচিত্র বিটিএসের ‘ডায়নামাইট’, সেরা যৌথ সংগীত কার্ডি বি ফিচারিং মেগান থি স্ট্যালনের ‘ওয়াপ’, সেরা সাউন্ডট্র্যাক তথ্যচিত্র মিস আমেরিকার জন্য করা টেলর সুইফটের ‘অনলি দ্য ইয়াং’।

default-image

এ ছাড়া সেরা টিভি শো ‘কিপিং আপ উইথ দ্য কার্ডাশিয়ান্স’, সেরা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম তারকা এমা চেম্বারলেন, সেরা স্টাইল স্টার জেনদায়া, বিউটি ইনফ্লুয়েন্সার জেমস চার্লস। সবচেয়ে বেশি পুরস্কার পেয়েছে কোরিয়ান ব্যান্ড বিটিএস, ঘরে তুলেছে সেরা গানের দল পুরস্কার। সেরা গান, সেরা মিউজিক ভিডিও এবং সেরা অ্যালবামের পুরস্কার জিতেছে দলটি। জাস্টিন বিবার ও লেডি গাগা প্রত্যেকে সর্বোচ্চ সাতটি করে মনোনয়ন পেয়ে পুরস্কার ঘোষণার আগেই রেকর্ড গড়েছিলেন।

default-image
বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0