নতুন ছবি ‘দ্য আনবিয়ারেবল ওয়েট অব ম্যাসিভ ট্যালেন্ট’–এ নিজের কাল্পনিক একটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন কেজ। যেখানে কেজ নিজের ক্যারিয়ার প্রতিষ্ঠা করতে নতুন নতুন চরিত্রে খুঁজে ফেরেন। ফলে তাঁর ১৬ বছরের মেয়েকে দেখভালের জন্য মনোযোগী বাবা হয়ে উঠতে পারেন না। কিন্তু সম্প্রতি পিপল সাময়িকীকে কেজ জানিয়েছেন, বাস্তবে তিনি একেবারেই উল্টো।

default-image

নিকোলাস কেজ জানিয়েছেন, পরিবার ও ছবির প্রসঙ্গে একসঙ্গে উঠলে, পরিবারকেই প্রথম বেছে নেন কেজ। তিনি বলেন, ‘প্রথমে ও সবার আগে এটাই বলা যে নিকলাস কেজের বাস্তবে এমন কোনো ভার্সনই নেই যে সে তাঁর বাচ্চাদের ছেড়ে অন্য কিছুতে সময় ব্যয় করে। পরিবারকে ছেড়ে কেজ কখনোই তাঁর ক্যারিয়ারকে প্রথমে ভাবতে পারেন না। আমি ‘লর্ড অব দ্য রিংস’ ও ‘ম্যাট্রিক্স’ ছেড়ে দিয়েছি। কারণ, আমি নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়াতে তিন বছর থাকতে পারব না। বাসায় আমার ছেলে ওয়েস্টনের আমাকে প্রয়োজন। এটাই মূল কথা।’

সুতরাং ছবির নিক কেজ আর বাস্তবের নিক কেজের মধ্যে বিস্তর তফাত। কেজের দুই ছেলের একজনের বয়স ৩১ আরেকজনের ১৬ বছর। নিকোলাস কেজ কেন পরিবারকেন্দ্রিক, তাঁর একটা টোটকাও দিয়েছেন এই অভিনেতা। তিনি জানান, তিনি কখনোই মনে করেননি তাঁর ক্যারিয়ার আছে। তিনি মনে করেছেন তিনি কেবল কাজই করে গেছেন। কারণ, তাঁর মতে, যখন ক্যারিয়ার হিসেবে ধরা হয়, তখনই এখানে উত্থান–পতনের একটা ব্যাপার থাকে। সবাই তখন কাজটিকে খুব সিরিয়াসলি নিয়ে নেয়। কেজ বলেন, ‘আর এভাবেই আপনি হয়ে ওঠেন দাম্ভিক এবং পরে আপনি পড়ে যান তারকাদের দলে। আর তখন আপনি নিজের পারিবারিক জীবনে ভুলগুলো করে বসেন, ক্যামেরার সামনেও।’
নিকোলাস কেজ অভিনীত ‘দ্য আনবিয়ারেবল ওয়েট অব ম্যাসিভ ট্যালেন্ট’ ছবিটি মুক্তি পাবে আগামী আগামী শুক্রবার।

হলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন