default-image

তারকা দম্পতি জর্জ ক্লুনি ও আমাল ক্লুনি এগিয়ে এলেন সিনেমা হল বাঁচাতে। করোনাভাইরাসের প্রকোপে লকডাউন দিতে হয় ইংল্যান্ডে। তাতে বন্ধ হয়ে যায় সিনেমা হলটি। পুনরায় দর্শকের জন্য খুলে দিতে হিমশিম খাচ্ছে তারা। তাই এবার তাদের পাশে দাঁড়াল হলিউড অভিনেতা জর্জ ক্লুনি ও তাঁর আইনজীবী স্ত্রী আমাল আলামুদ্দিন।

ইংল্যান্ডের বার্কশায়ারের ‘দ্য মিল’ সিনেমা হল পুনরায় খুলতে অর্থনৈতিক সহযোগিতা করবেন এই দম্পতি। কোভিড–১৯ ইংল্যান্ডে প্রভাব বিস্তার করলে লকডাউনে বন্ধ হয়ে যায় মিলনায়তনটি। দ্য মিলের ফেসবুক পেজে জানানো হয়েছে, ৩০ অক্টোবর থেকে এই মিলনায়তন খুলে দেওয়া হবে। এর মধ্যে তাদের ২০২১ সালের নিজেদের প্রযোজনার কথাও জানিয়েছে তারা।

লকডাউনে বন্ধ থাকার সময় এই সিনেমা হলের সহযোগিতায় এগিয়ে আসেন নাট্যকার রে কোনি। ৯ মাস বন্ধের পর ইংল্যান্ডের এই ডিনার সিনেমা হল খুলতে যাচ্ছে। শীতকালীন কমেডি, ম্যাজিক, ক্যাবারে, নাটক ও সিনেমার জন্য প্রস্তুত হচ্ছে হলটি।

দ্য মিলের সৃজনশীল পরিচালক স্যালি হিউ ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন। প্রথম দিন ডিনার ও প্রদর্শনী দেখতে পারবেন ৭০ জন গ্রাহক। সামাজিক দূরত্ব ও নিরাপত্তার জন্য আসন কমানো হয়েছে। শীতকালীন আয়োজনে তারা নিয়ে আসছে সিনেমাসহ ম্যাজিক শো, ক্যাবারে ও মঞ্চনাটক।

বিজ্ঞাপন

সম্প্রতি হলিউডের নামকরা সব তারকা ও চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব সিনেমা হল বাঁচাতে মার্কিন সরকারকে চিঠি দিয়েছেন। সিনেমা হল বাঁচাতে তাঁরা প্রণোদনার ব্যবস্থা করতে অনুরোধ করেছেন। এ তালিকায় আছেন মার্টিন স্করসেসি, জেমস ক্যামেরন, ক্রিস্টোফার নোলান, সোফিয়া কপোলা, আলফনসো কুয়ারন, পেটি জেনকিন্স প্রমুখ।

default-image

এর আগে এপ্রিল মাসে করোনাভাইরাস মহামারী সামাল দিতে ছয় তহবিলে ১০ লাখ ডলার দিয়েছেন জর্জ ক্লুনি ও তার স্ত্রী। মোশন পিকচার অ্যান্ড টেলিভিশন ফান্ড, এসএজি-আফট্রা ফাউন্ডেশন ও লস অ্যাঞ্জেলেস মেয়রের তহবিলে আড়াই লাখ ডলার করে দিয়েছেন ক্লুনি-আমাল। এ ছাড়া লেবানিজ ফুড ব্যাংক, লোম্বার্ডো ইতালি রিজিয়ন এবং যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিসকে তিন লাখ ডলার দিয়েছেন তারা।

হলিউডের নামকরা সব তারকা ও চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব সিনেমা হল বাঁচাতে মার্কিন সরকারকে চিঠি দিয়েছেন। সিনেমা হল বাঁচাতে তাঁরা প্রণোদনার ব্যবস্থা করতে অনুরোধ করেছেন। এ তালিকায় আছেন মার্টিন স্করসেসি, জেমস ক্যামেরন, ক্রিস্টোফার নোলান, সোফিয়া কপোলা, আলফনসো কুয়ারন, পেটি জেনকিন্স প্রমুখ।
বিজ্ঞাপন

মোশন পিকচার অ্যান্ড টেলিভিশন ফান্ড অস্থায়ীভাবে আর্থিক সহায়তা দিচ্ছে। এসএজি-আফট্রা ফাউন্ডেশন নিজেদের সদস্যদের স্বাস্থ্যসেবা, খাবার, আশ্রয় ও চিকিৎসা ব্যয় বহন করছে। লস অ্যাঞ্জেলেস মেয়রের তহবিল থেকে শিশু ও স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রয়োজন মেটানো, গৃহহীনদের আশ্রয়, প্রবীণদের খাবার ও স্থানীয়দের আর্থিক সহায়তা দেওয়া হচ্ছে।

default-image
মন্তব্য পড়ুন 0