বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

গত বছরের ১৬ ডিসেম্বর উদ্বোধনী প্রদর্শনী থেকেই ছবিটি দেখা শুরু করেন আলানিস। গিনেস বুকে নাম লেখানোর শর্ত হলো, ছবির প্রদর্শনী শুরুর পর থেকে ক্রেডিট লাইন দেখানো শেষ না হওয়া পর্যন্ত কোনো কাজে যুক্ত হতে পারবেন না তিনি। এমনকি টয়লেটেও যেতে পারবেন না। রামিরো সেসব মেনেছেন, এই মর্মে একটি লিখিত বিবৃতিও দিয়েছে সিনেমা হলগুলো।

default-image

দিনে পাঁচটি করে শো দেখেছেন রামিরো আলানিস। টিকিটের পেছনে তাঁর ব্যয় হয়েছে প্রায় ৩ হাজার ৪০০ ডলার। এর আগে ২০১৯ সালে একজন মারভেলভক্ত অবশ্য অ্যাভেঞ্জার্স: এন্ডগেম ১৯১ বার দেখে রেকর্ড করেছিলেন। এ ছাড়া আরেক দর্শক ফরাসি ফ্যান্টাসি সিরিজ কামেলো: দ্য ফার্স্ট চ্যাপ্টার ২০৪ বার দেখে সেই রেকর্ড ভেঙে ফেলেন ২০২১ সালে।

default-image

এবার আলানিস ২৯২ বার একটি ছবি দেখে নতুন ইতিহাস গড়লেন। নিজের এই কীর্তির খবর টুইটারেও জানিয়েছেন আলানিস। বলে রাখা ভালো, মহামারির সময় বিশ্বব্যাপী স্পাইডার–ম্যান: নো ওয়ে হোম ছবিটি ১৯২ কোটি ডলার আয় করে এবং মহামারিতেই সময়ের সর্বোচ্চ রোজগার করে রেকর্ড গড়ে।

হলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন