নেটফ্লিক্সের সহপ্রতিষ্ঠাতা বস রিড হেস্টিংস বলেছেন, ‘যখন আমরা দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছিলাম, তখন অ্যাকাউন্ট শেয়ারিংয়ে বিষয়ে তেমন গুরুত্ব দিইনি। আর এখন এর জন্য আমরা কঠোর পরিশ্রম করছি।’
লুকাস শ বিবিসিকে বলেন যে অনেক দিন ধরেই পাসওয়ার্ড শেয়ারিংয়ের সমস্যায় ভুগছে নেটফ্লিক্স। এটি মনে হচ্ছে কোম্পানির সম্ভাব্য আয় বৃদ্ধির ক্ষেত্রে বড় একটি বাধা। তাঁরা আগেও পাসওয়ার্ড শেয়ারিং রোধকল্পে কাজ করেছেন এবং এখন খুব কঠিন সময় পার করছেন।
ইউক্রেনে আক্রমণের পরে রাশিয়া থেকে ব্যবসা গুটিয়ে নেওয়ায় নেটফ্লিক্স সাত লাখ সাবস্ক্রাইবার হারায়। তা ছাড়া সাবস্ক্রিপশন ফি বাড়ার পর যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায় তাদের আরও ছয় লাখ সদস্য কমে যায়।

পিপি ফরসাইটের একজন বিশ্লেষক পাওলো পেসকাটোর বলেন, গ্রাহক কমে যাওয়া কোম্পানির জন্য একটি ‘বাস্তবতা যাচাই’ ছিল। কারণ, এটি কোম্পানির রাজস্ব বাড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে গ্রাহক ধরে রাখতে ভারসাম্য বজায় রাখারও চেষ্টা করে। সাবস্ক্রাইবার কমার কারণ হিসেবে তাঁরা আরও বলেন, নেটফ্লিক্স তীব্র প্রতিযোগিতার সম্মুখীন হচ্ছে। আমাজন ও অ্যাপল থেকে শুরু করে ডিজনির মতো ঐতিহ্যবাহী মিডিয়া প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের অনলাইন স্ট্রিমিং পরিষেবাগুলোতে অর্থ ব্যয় করছে। এতে প্রতিযোগিতা বাড়ছে।

তা ছাড়া অর্থনৈতিক মন্দা, রাশিয়া-ইউক্রেন সংঘাত, ব্রডব্যান্ড সম্প্রসারণে ধীরগতি, নেটফ্লিক্সের অ্যাকাউন্ট শেয়ার করা ইত্যাদি কারণেও কমছে এই ওটিটি জায়ান্টের সাবস্ক্রাইবার।
উল্লেখ্য, শেষ ২০১১ সালের অক্টোবরে নেটফ্লিক্সের গ্রাহক কমেছিল। বর্তমানে বিশ্বব্যাপী তাদের গ্রাহক ২২ কোটির বেশি।

ওটিটি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন