সম্প্রতি পবিত্র ঈদুল আজহায় মুক্তি পেয়েছে সিন্ডিকেট ওয়েব সিরিজ। ঈদের দিন প্রচারের পর থেকেই দর্শকদের আলোচনায় জায়গা করে নিয়েছে চরকি। আফরান নিশো, নাজিফা তুষি, তাসনিয়া ফারিণ প্রমুখ অভিনীত সিরিজটি নিয়ে দর্শকদের রেটিং ৯–এর বেশি।

default-image

কনটেন্ট দিয়ে ভেরিয়েশন থাকলেও চরকি আলাদা নজর কেড়েছে শিল্পী ও কলাকুশলী নির্বাচনের ক্ষেত্রে। তরুণ পরিচালকদের মধ্যে রবিউল আলম, নুহাশ হুমায়ূন, আবরার আতাহার, ভিকি জাহিদ, সুকর্ণ শাহেদ ধীমান, মিজানুর রহমান আরিয়ানসহ একাধিক নির্মাতা নিজেদের প্রমাণ করেছেন। এর সঙ্গে দর্শকদের জন্য বাড়তি পাওয়া ছিল গিয়াস উদ্দিন সেলিম, অমিতাভ রেজা চৌধুরী, শিহাব শাহীন, পিপলু আর খান, আদনান আল রাজীব, মেজবাউর রহমান সুমন, রায়হান রাফিসহ একাধিক নির্মাতার সেরা কাজগুলো। নতুন ও অভিজ্ঞ নির্মাতাদের হাত ধরে থ্রিলার, রহস্য, ভৌতিক, মনস্তাত্ত্বিক, ড্রামা জনরার গল্প চরকিতে ঘুরেফিরে এসেছে বছরজুড়ে।

‘আমরা গুটিকয় মানুষ নিজেরাই কনটেন্ট, প্রোডাক্ট, মার্কেটিং, অ্যাক্টিভেশন সব সামলে সবার সামনে তুলে ধরেছিলাম এই প্ল্যাটফর্ম। এত অল্প সময়ে আমাদের প্রচেষ্টা সবাই এতটা ভালোবেসে আপন করে নেবেন, তা আমরা ভাবিনি। বিশ্বের বুকে বাংলা কনটেন্টের রাজধানী হিসেবে তুলে ধরব—এই প্রত্যয় নিয়েই মাঠে নেমেছিলাম। ভেবে ভালো লাগছে যে মাত্র এক বছরের মাথায় আমরা আমাদের সেই স্বপ্নের দিকে বেশ খানিকটা এগিয়ে গেছি। আরও অনেকটা পথ বাকি,’ বলেন চরকির কনটেন্ট অফিসার আদর রহমান।

default-image

চলার পথ অনেক বাকি থাকলেও অল্প এই সময়ে চরকির অর্জন কম নয়। দর্শকদের ভালোবাসায় মাত্র এক বছরেই চরকির ঝুলিতে এসেছে বেশ কিছু দেশীয় ও আন্তর্জাতিক পুরস্কার। এই বছর মার্চ মাসে আয়োজিত আইসিটি ডিভিশন প্রেজেন্টস চ্যানেল আই স্ন্যাক কিপার ডিজিটাল মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড-২০২১–এ চরকি শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র, শ্রেষ্ঠ ওয়েব সিরিজসহ মোট আটটি পুরস্কার জিতেছে। সেই সঙ্গে মেরিল–প্রথম আলো পুরস্কার ২০২১-এ সমালোচকের রায়ে সেরা তিনটি ও তারকা জরিপে একটি পুরস্কার জিতেছে। এক বছর পূর্ণ হওয়ার আগেই চরকি ইন্টারন্যাশনাল নিউজ মিডিয়া অ্যাসোসিয়েশন (ইনমা) আয়োজিত ‘গ্লোবাল মিডিয়া অ্যাওয়ার্ডস ২০২২’-এ বিশেষ সম্মানে ভূষিত হয়েছে। এ ছাড়া বাংলাদেশের প্রধান ওটিটি প্ল্যাটফর্ম হিসেবে চরকি ‘বেস্ট ইনিশিয়েটিভ টু অ্যাকুয়ার সাবস্ক্রাইবার’ ক্যাটাগরিতে সম্মানজনক স্বীকৃতি অবশ্যই উল্লেখযোগ্য।

default-image

আরেকটি কথা না বললেই নয়। গত এক বছরে চরকি দিয়ে একাধিক অভিনয়শিল্পী প্রথমবার ওয়েবে নাম লিখিয়েছেন। তাঁরা কেউ কেউ করেছেন বাজিমাত। শুরুতেই প্রচার হওয়া ঊনলৌকিক দিয়ে আলোচনায় আসেন অভিনেতা ইন্তেখাব দিনার। বদলে গেছে তাঁর ক্যারিয়ারের মোড়। চরকি দিয়েছে তাঁকে নতুন জীবন। এ ছাড়া প্রথমবার ওটিটিতে নাম লিখিয়ে আলোচনায় এসেছেন, সিয়াম আহমেদ, মাহিয়া মাহি, আফরান নিশো। তাঁরা মরীচিকা দিয়ে আলোচনায় আসেন। এ ছাড়া সময়ের জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পীদের মধ্যে শবনম বুবলী, শরীফুল রাজ, মেহজাবীন চৌধুরী, নাজিফা তুষি, তাসনিয়া ফারিণ, দীঘি, খাইরুল বাসার, তাসলিমা হোসেন, তটিনী আরও অনেকে। দীর্ঘ এক বছরের এই যাত্রায় চরকির দর্শক পেয়েছে সারা যাকের, আফজাল হোসেন, আফসানা মিমি, পূর্ণিমার মতো অভিনয়ে অনিয়মিত অভিনয়শিল্পীদের।

বছরের বিভিন্ন সময় প্রচারিত কাজগুলো নিয়ে কখনো তুমুল আলোচনা, কখনো সমালোচনা হয়েছে। দুটিকেই সাদরে গ্রহণ করেছে চরকি কর্তৃপক্ষ। দর্শকদের সব মতামত চরকিকে চলার পথে সাহস জুগিয়েছে বলে মনে করেন চরকির প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা রেদওয়ান রনি। তিনি বলেন, ‘চরকি প্রথম এক বছরেই দর্শকদের যে ভালোবাসা পেয়েছে, যে সাফল্য ও গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করেছে, তাতে আমরা ধন্য। এগুলো সম্ভব হয়েছে চরকির দুর্দান্ত সব কনটেন্টের কারণে। সেই সঙ্গে চরকির পুরো টিম, স্পনসর, শুভানুধ্যায়ীদের অবদানে চরকির পথচলা আরও সহজ ও সাবলীল হয়েছে। বাংলা কনটেন্টের রাজধানী হতে চরকি আরও দর্শকপ্রিয়তা পেতে থাকুক, দর্শক আরও ফিল্ম, ফান, ফুর্তিতে থাকুক—এই কামনা করি।’

চরকির ওয়েবসাইট www.chorki.com ও স্মার্ট টিভি, মোবাইল, ট্যাব, ল্যাপটপ যেকোনো ডিভাইস থেকে চরকি দেখা যায়।

ওটিটি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন