default-image

সম্প্রতি ঘোষণা করা সিনেমাটির নাম ‘কিলিং ওল্ড পিপল ক্লাব’। উপন্যাস থেকে নেওয়া গল্পটিতে তুলে ধরা হবে বৃদ্ধদের সহিংসতা। এখন সিনেমাটির চিত্রনাট্য লেখার কাজ চলছে। গল্প নিয়ে পরিচালক হোয়াং ডং-হিউক কিছুই বলতে রাজি নন। তবে গণমাধ্যমে এটুকু জানিয়েছেন, সহিংসতায় ‘স্কুইড গেম’কে ছাড়িয়ে যাবে নতুন সিনেমাটি। এটি দর্শকদের দেখতে আরও প্রায় দুই বছর অপেক্ষা করতে হবে। পরিচালক গণমাধ্যমে জানিয়েছেন, নতুন সিনেমাটি ঘিরে বিতর্ক হয়তো আবার সামনে আসবে। জনপ্রিয়তা পাওয়া ‘স্কুইড গেম’ও সমালোচনায় ছিল।

default-image

গত বছরের সেপ্টেম্বরে প্রচারের পর থেকেই এক মাসে রেকর্ড গড়ে নেটফ্লিক্স কাঁপানো ৯ পর্বের সিরিজ ‘স্কুইড গেম’। গল্পে কী আছে? কেটে টুকরা টুকরা করলে কিছু আবেগের বিপরীতে শুধু টাকার কথা পাবেন। অর্থসংকটে পড়া ৪৫৬ জন ৪৬ বিলিয়ন ওন (দক্ষিণ কোরিয়ার মুদ্রা) পাওয়ার আশায় জীবন বাজি রেখে প্রতিযোগিতা করে। ডিসকোয়ালিফায়েড হলে পাখির মতো গুলি করে তাদের হত্যা করে আয়োজকেরা। পরে মৃত ব্যক্তিদের হৃৎপিণ্ড আলাদা করে পাচার করে আয়োজকদের একাংশ। কোরিয়ার কোনো সিরিজ আগে এতটা জনপ্রিয়তা পায়নি।

default-image

কর্মক্ষেত্রে স্বল্প মজুরি, প্রয়োজনীয় চাহিদা মেটাতে অতিরিক্ত খাটুনি, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি, জীবনমানের ব্যয় বৃদ্ধি, মাসের মাঝামাঝি হাত খালি হয়ে যাওয়া, ধার করা, হাঁসফাঁস করতে করতে মাস শেষ করা—বলতে পারেন বর্তমানে এভাবেই চলছে সিংহভাগ মানুষের জীবন। স্কুইড গেমে অংশ নিতে দক্ষিণ কোরিয়ার ভিন্ন ভিন্ন স্থান থেকে জড়ো হওয়া ৪৫৬ জনের গল্পটাও এমন। এবার দেখা যাক ‘কিলিং ওল্ড পিপল ক্লাব’–এর গল্পটি কেমন?

ওটিটি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন