জিসো, রোজ, লিসা আর জেনি। কে পপের দুনিয়ায় রাজত্ব করছেন এই চার ‘রানি’। তাঁদের দলের নাম ব্ল্যাকপিঙ্ক। এই মুহূর্তে বিশ্বজুড়ে চলছে এই ব্যান্ডের উন্মাদনা। করোনাকালে দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল তাঁদের কনসার্ট। বিরতি ভেঙে গত ৩১ জানুয়ারি অনলাইনেই কনসার্ট করলেন এই চার তারা। আর সেই কনসার্ট গড়েছে একাধিক বিশ্ব রেকর্ড। অনলাইনে টিকিট বিক্রি করে তাঁরা আয় করেছেন ১০ দশমিক ৫ মিলিয়ন ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় তা ৮৯ কোটি টাকার সমান!

default-image

এটিই ছিল ব্ল্যাকপিঙ্কের প্রথম অনলাইন শো। আর প্রথম বলেই ছক্কা হাঁকিয়েছেন তাঁরা। ‘দ্য শো’ শিরোনামের সেই শো উপভোগ করেছেন ২ লাখ ৮০ হাজারের বেশি দর্শক। প্রতিটি টিকিটের দাম ছিল তিন হাজার টাকা। আর এই দর্শকেরা সবাই অনলাইনে শো দেখেছেন টিকিট কেটে। অনলাইনে লোকে টাকা দিয়ে শো দেখবে কি না, তা নিয়ে বিশ্বব্যাপী একটা অনিশ্চয়তা ছিল। সেই দ্বিধা উড়ে গেল ব্ল্যাকপিঙ্কের লাইভ পারফরম্যান্সে। ‘কিল দিস লাভ’, ‘ডু-ডু ডু-ডু’, ‘বুমবায়াহ’, ‘সাওয়ার ক্যান্ডি’সহ আরও বেশ কয়েকটি জনপ্রিয় গান পারফর্ম করেছে ব্ল্যাকপিঙ্ক। সেই সঙ্গে ব্যান্ডের চার সদস্যেরই একক পারফরম্যান্স ছিল বাড়তি পাওনা।

default-image
বিজ্ঞাপন

২০১৬ সালে ব্যান্ড হিসেবে হাজির হওয়ার পর প্রতিষ্ঠা পেতে সময় লাগেনি তাদের। ২০২০ সালের ২ অক্টোবর করোনার অস্থির সময়ে স্বস্তির খবররূপে হাজির হয় এই ব্যান্ডের প্রথম অ্যালবাম। অ্যালবামের নামটি খুব সাদাসিধে। ‘দ্য অ্যালবাম’। এর আগে এই ব্যান্ড বেশ কয়েকটি একক গান এনেছিল। এর প্রায় সব কটিই হিট।

default-image

সেলেনা গোমেজের সঙ্গে ‘আইসক্রিম’ শিরোনামের গান নিয়ে প্রথম আলোচনায় এসেছিল ব্ল্যাকপিঙ্ক। আর এই মুহূর্তে বিশ্বসংগীতের আলোচনায় ঝড় তুলেছে এই ব্যান্ড। তাদের সাড়াজাগানো ‘আইসক্রিম’, ‘হাউ ইউ লাইক দ্যাট’ গানগুলো দেখা হয়েছে প্রায় পাঁচ কোটিবার করে। ইনস্টাগ্রামে এই ব্যান্ডের ৩ কোটি ৪২ লাখ ভক্ত জুটে গেছে। ব্ল্যাকপিঙ্ক বুঝিয়ে দিয়েছে, কোরিয়ান কে পপের রাজ্যে কালবৈশাখী তুলবে ওরা চারজন।

default-image
গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন