বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এদিকে চিরকুট ব্যান্ডের প্রত্যেক সদস্য বিশ্বসেরা ব্যান্ড স্করপিয়ন্সের সঙ্গে এক মঞ্চে পারফরম করতে যাচ্ছে ভেবে ভীষণ খুশি। ব্যান্ড চিরকুট এই মুহূর্তে কক্সবাজারে আছে। সেখান থেকে ব্যান্ডের অন্যতম সদস্য শারমীন সুলতানা সুমী প্রথম আলোকে বললেন, ‘বিশ্বের কিংবদন্তি ব্যান্ড, যারা মানবতার গান গেয়েছে, সব সময় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে, আমাদের স্পিরিটের সঙ্গে, আমরাও যেমন দুই দশক ধরে বিভিন্ন দৃষ্টিকোণ থেকে দেশের জন্য গান করেছি, সবকিছু মিলে পুরো ব্যাপারটা একই সূত্রে গাঁথা— বাংলাদেশ, স্করপিয়ন্স ও চিরকুট।’

default-image

সুমী আরও বলেন, ‘অস্তিত্বে, আত্মবিশ্বাসে, এগিয়ে যাওয়ায় বাংলাদেশ ৫১ বছরের এক দীর্ঘ সংগ্রামের নাম। একইভাবে প্রচলিত প্রথা ভাঙার রুদ্ধশ্বাসে চিরকুট ২০ বছরের এক তীব্র লড়াইয়ের নাম। আর যাঁরা সংগ্রাম কিংবা লড়াই করে বড় হন, তাঁরা নির্ভীক, দায়িত্ব এড়ান না বরং যেকোনো অবস্থায় দায়িত্ব কাঁধে তুলে নেন। এ রকমই এক গুরুদায়িত্বের মুখোমুখি আরও একবার আমরা। তবে এই প্রথম কিছু বলতে গিয়ে গলা কাঁপছে।’

চিরকুট তাদের ফেসবুকে লিখেছে, ‘পৃথিবীর অন্যতম সেরা ব্যান্ড স্করপিয়ন্স পৃথিবী এবং মানুষের সংকট এবং প্রয়োজনে গান গেয়ে সময়কে বদলে দিয়ে কালোত্তীর্ণ হয়েছে, হয়েছে কিংবদন্তি। তাদের পেজে যখন শ্রদ্ধার সঙ্গে “চিরকুট”; মানে নিজেদের ব্যান্ডের নাম দেখি, মনে হয় খুব একটা ভুল পথে হাঁটিনি। এক জীবনে এগুলোকেই তো অর্জন বলে! বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তী উৎসবকে পৃথিবীব্যাপী ছড়িয়ে দিতে আগামী ৬ মে ঐতিহাসিক ম্যাডিসন স্কয়ার গার্ডেনে দ্য গ্রেটেস্ট স্করপিয়ন্সের সঙ্গে স্টেজ শেয়ার করবে “চিরকুট”। আপনাদের সবার মতোই আমরা গর্বিত, আনন্দিত!

default-image

১৯৭১ সালে জর্জ হ্যারিসন তাঁর বন্ধুদের এক করে যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশের পাশে দাঁড়াতে কনসার্ট করেছিলেন এই ঐতিহাসিক ভেন্যুতে। বিজয়ের ৫০ বছর পর সেই ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি হতে যাচ্ছে আগামী ৬ মে। কথা দিচ্ছি, বিচ্ছুরণের আলোয় বাংলাদেশকে নিয়ে দ্বিগুণ হারে জ্বলব ইনশাল্লাহ!’ পথচলার এই সময়ে এমন একটি আয়োজনের অংশ হতে পারার জন্য ব্যান্ড ‘চিরকুট’ আন্তরিক কৃতজ্ঞতাও প্রকাশ করেছে।

গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন