বাংলা একাডেমির ‘রবীন্দ্র পুরস্কার ২০১৯’

এবার পুরস্কার পাচ্ছেন তিনজন

বিজ্ঞাপন
default-image

রবীন্দ্রসাহিত্যের গবেষণায় সামগ্রিক অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে এ বছর অধ্যাপক সফিউদ্দিন আহমদ, অধ্যাপক বেগম আকতার কামাল এবং রবীন্দ্রসংগীত চর্চায় শিল্পী ইকবাল আহমেদ এবার বাংলা একাডেমি প্রবর্তিত ‘রবীন্দ্র পুরস্কার’ পাচ্ছেন। আজ সোমবার বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি হাবিবুল্লাহ সিরাজী প্রথম আলোকে জানান, পঁচিশে বৈশাখ (৮ মে) ১৫৮তম রবীন্দ্রজয়ন্তী অনুষ্ঠানে আনুষ্ঠানিকভাবে এ পুরস্কার দেওয়া হবে। আগামী বুধবার বেলা ১১টায় বাংলা একাডেমির মূল মিলনায়তনে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে থাকবে একক বক্তৃতা ও সাংস্কৃতিক আয়োজন। একক বক্তৃতা করবেন অধ্যাপক আনোয়ারুল করিম।

বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সার্ধশত জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলা একাডেমি ২০১০ সাল থেকে এই পুরস্কার প্রবর্তন করে। রবীন্দ্রসাহিত্যের গবেষণা ও সমালোচনা এবং রবীন্দ্রসংগীতের আজীবন সাধনার স্বীকৃতি হিসেবে এ পুরস্কার প্রদান করা হয়। প্রতিবছর দুজনকে এ পুরস্কার দেওয়া হয়। এ পুরস্কারের অর্থমূল্য ৫০ হাজার টাকা। বাংলা একাডেমি আয়োজিত বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্মবার্ষিকীতে পুরস্কারপ্রাপ্ত প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকার চেক, সম্মাননাপত্র ও সম্মাননা স্মারক দেওয়া হয়। প্রথমে দুজনকে এই পুরস্কার দেওয়া হলেও এবার রবীন্দ্র পুরস্কারে জন্য বিশেষ ব্যবস্থাপনায় তিনজনকে চূড়ান্ত করা হয়েছে।

এর আগে বাংলা একাডেমি প্রবর্তিত রবীন্দ্র পুরস্কার পেয়েছিলেন পর্যায়ক্রমে শিল্পী কলিম শরাফী, অধ্যাপক সন্‌জীদা খাতুন, আহমদ রফিক, শিল্পী অজিত রায়, অধ্যাপক আনিসুর রহমান, শিল্পী ফাহমিদা খাতুন, শিল্পী ইফ্‌ফাত আরা দেওয়ান, অধ্যাপক করুণাময় গোস্বামী, শিল্পী পাপিয়া সারোয়ার, মনজুরে মওলা, শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা, অধ্যাপক সনৎ কুমার সাহা, সাদি মহম্মদ, সৈয়দ আকরম হোসেন, শিল্পী তপন মাহমুদ, অধ্যাপক হায়াৎ মামুদ, মিতা হক, আবুল মোমেন ও শিল্পী ফাহিম হোসেন চৌধুরী।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন