default-image

বিশ্বসংগীতের সবচেয়ে বড় আসর গ্র্যামি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল ৩১ জানুয়ারি। ২০২১ সালের ৬৩তম গ্র্যামির এই আসর পিছিয়ে চলে গেছে মার্চের ১৪ তারিখে। করোনায় স্বাস্থ্যঝুঁকির আশঙ্কায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো। নতুন তারিখের বিষয়টি গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডস আয়োজক প্রতিষ্ঠান দ্য রেকর্ডিং একাডেমি নিশ্চিত করেছে গণমাধ্যমে।
যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যে লস অ্যাঞ্জেলেসের স্ট্যাপলস সেন্টারে সীমিত পরিসরে এবারের আয়োজন করার পরিকল্পনা করেছিল আয়োজকেরা। যেখানে দর্শক ছাড়া শুধু সঞ্চালক আর নির্দিষ্ট শিল্পীদের হাজির থাকার কথা ছিল। তবে সম্প্রতি শহরটিতে করোনা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় সেটি স্থগিত করা হলো। নতুন তারিখ হিসেবে জানানো হলো ১৪ মার্চ। তবে সেটিও নির্ভর করছে মহামারির গতিপ্রকৃতির ওপর।

default-image

রেকর্ডিং একাডেমির প্রধান নির্বাহী ও সভাপতি হার্ভে মেসন জুনিয়র এক বিবৃতিতে বলেন, ‘লস অ্যাঞ্জেলেসের করোনা পরিস্থিতি এখন বেশ অবনতির দিকে। হাসপাতালগুলোয় উপচে পড়া ভিড়। আইসিইউগুলো ভরে গেছে রোগীতে। স্থানীয় ও জাতীয় সরকারেরও বিধিনিষেধ রয়েছে অনুষ্ঠান আয়োজনে। এসব বিবেচনা করে আমরা ৩১ জানুয়ারির আয়োজনটি স্থগিত করেছি।’ যৌথ বিবৃতিতে গ্র্যামি

বিজ্ঞাপন

অ্যাওয়ার্ডসের নির্বাহী নির্মাতা বেন উইনস্টন আরও বলেন, ‘জীবনের চেয়ে আর কিছুই গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে না। এই আয়োজনের সঙ্গে জড়িত রয়েছেন সংগীতাঙ্গনের শতাধিক মানুষ, তাঁদেরও আমরা ডেকে এনে বিপদে ফেলতে চাই না।’

default-image

গত নভেম্বরে গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ড-২০২১–এর মনোনয়নপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের নাম ঘোষণা করা হয়। ২০২১ সালের গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডের মনোনয়নের তালিকার শীর্ষস্থানে রয়েছেন বিয়ন্সে, যিনি ৯ নম্বর পেয়ে সবার ওপরে অবস্থান করছেন। এরপর রয়েছেন পপ সুপারস্টার টেলর সুইফট, রডি রিচ ও দুয়া লিপা। এবারের আয়োজন উপস্থাপনা করার কথা ছিল ৩৬ বছর বয়সী দক্ষিণ আফ্রিকান কমেডিয়ান ট্রেভর নোয়াহর। তবে মার্চের অনুষ্ঠেয় আসরে তিনিই উপস্থাপনা করবেন কি না, সে ব্যাপারে পরে আর তথ্য পাওয়া যায়নি।
করোনা মহামারির পর থেকে যুক্তরাষ্ট্রে বেশির ভাগ পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠান অনলাইনে হয়েছে। এ ব্যাপারে এএফপির বরাত দিয়ে বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এবারের গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠান ভার্চ্যুয়াল মাধ্যমে হতে পারে বলে এর আগে জানিয়েছিল আয়োজক সংগঠন।
১৯৫৯ সালের ৪ মে অনুষ্ঠিত হয় প্রথম গ্র্যামি অ্যাওয়ার্ডস। ন্যাশনাল একাডেমি অব রেকর্ডিং আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেসের এই আয়োজন এখন বিশ্বসংগীতের সবচেয়ে মর্যাদাসম্পন্ন পুরস্কার।
সূত্র: সিএনএন

গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন