বিজ্ঞাপন

লোপামুদ্রা টুইটারে পোস্টটি শেয়ার করে লিখেছেন, ‘গল্প শুনে, গান করে, আড্ডা দিয়ে অল্প সময়ের জন্য হলেও করোনা রোগীর মন ভালো করার জন্য আমি আছি আপনার সঙ্গে।’

default-image

এমন অভিনব ভাবনা পছন্দ হয়েছে অনেকেরই। কলকাতা থেকে প্রকাশিত এক গণমাধ্যমের অনলাইন সংস্করণকে লোপামুদ্রা জানিয়েছেন, সবার মতো তিনিও ভাবছিলেন করোনায় আক্রান্ত মানুষের জন্য কিছু করা যায় কি না। যেভাবে হোক আক্রান্ত ব্যক্তিদের পাশে দাঁড়ানোর খুব ইচ্ছা ছিল তাঁর। কিন্তু হাসপাতাল তৈরি বা চিকিৎসার ব্যবস্থা করার সুযোগ তাঁর নেই। তাই তিনি ভেবেছেন, শিল্পী হিসেবে গান গেয়ে মানুষের মন ভালো রাখার ক্ষমতা তাঁর আছে। তিনি সুর আর গানের পরশেই মন ভালো করবেন করোনায় আক্রান্ত মানুষের। সেখান থেকেই এমন একটি উদ্যোগ নেওয়া।

default-image

লোপামুদ্রা বলেন, ‘আমি তো একটি কাজই পারি। গলা ছেড়ে গান শুনিয়ে মন ভালো করতে পারি। সেটাই করতে চলেছি।’ ইতিমধ্যে ভালো সাড়া পেয়েছেন লোপামুদ্রা। জীবনসঙ্গী সুরকার জয় সরকার ও চারণের সদস্যদের নিয়ে লোপামুদ্রা ভিডিও কলে বিনা মূল্যে একসঙ্গে সাত থেকে আটজনকে গান শোনাবেন। কথাও বলবেন সবার সঙ্গে। নিজের পছন্দের গান শোনানোর পাশাপাশি শ্রোতাদের অনুরোধ জানানোর সুযোগও থাকবে।

default-image

লোপামুদ্রার মামাবাড়ি বাংলাদেশের মাগুরায়। বাংলাদেশের কৃষ্ণকলি, অর্ণব, সায়ান—এঁদের গান নিয়মিত শোনেন তিনি। বাংলাদেশের ব্যান্ডের গানও শোনা হয় তাঁর। বাংলাদেশের লোকগান নিয়ে কাজ করার ইচ্ছা তাঁর। বেশ কয়েকবার বাংলাদেশে এসেছেন তিনি।

default-image
গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন