default-image

করোনা-আক্রান্ত সংগীতশিল্পী রবি চৌধুরীকে এখন ভোগাচ্ছে শ্বাসকষ্টের সমস্যা। নিউমোনিয়ার কারণে এই শ্বাসকষ্টের সমস্যায় ভুগছেন তিনি। সপ্তাহ দুয়েক ধরে ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা এই সংগীতশিল্পীর করোনা এখন অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে বলেও জানালেন। দ্বিতীয় পরীক্ষায় যদিও পজিটিভ ফলাফল এসেছে, তার পরও এটি মোটেও ক্ষতিকর কিছু নয় বললেন রবি চৌধুরী।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রবি চৌধুরীর সঙ্গে শুক্রবার দুপুরে কথা হয় প্রথম আলোর। তিনি বললেন, ‘করোনার পাশাপাশি নিউমোনিয়ার সমস্যাও ছিল। করোনার কারণে শারীরিকভাবে যেসব সমস্যা অনুভব করতাম, তা এখন খুব একটা নেই। অনেকটাই কমে এসেছে। নিউমোনিয়ার কারণে শ্বাসকষ্ট ভোগাচ্ছে। চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে চলছি। সবার কাছে দ্রুত সুস্থতার জন্য দোয়া চাই। আরেকটু ভালো লাগলে হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরে যাব।’

রবি চৌধুরী জানালেন, তাঁর শরীরে এরই মধ্যে দুই দফায় বি পজিটিভ প্লাজমা দেওয়া হয়েছে। প্রথম দফায় প্লাজমা দিতে এগিয়ে আসেন অনুজ সংগীতশিল্পী রাফসান মান্নান। দুজন ডোনারের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন এই শিল্পী ও তাঁর পরিবার।

জুলাই মাসের শেষ সপ্তাহে রবি চৌধুরী জ্বর, ঠান্ডা ও কাশি অনুভূত হলে ঢাকার একটি হাসপাতালে কোভিড-১৯ পরীক্ষা করান। ফলাফল হাতে পেলে জানতে পারেন, তিনি করোনা পজিটিভ।

রবি চৌধুরীর স্ত্রী রামিজা বাশার জানালেন, রবি চৌধুরী ল্যাবএইডে চিকিৎসক নুর মোহাম্মদের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন। প্লাজমা ডোনারের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে শিল্পীর স্ত্রী বললেন, ‘করোনার এই দুঃসময়ে দুজন প্লাজমা দিতে ছুটে আসেন। স্ত্রী হিসেবে আমার তাঁদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানোর ভাষা নেই। ফেসবুকের পোস্ট দেখেই তাঁরা নিজেরাই ফোন করে হাসপাতালে ছুটে আসেন। দুজন ডোনার ও তাঁদের পরিবারের জন্য আমাদের পক্ষ থেকে ভালোবাসা ও দোয়া রইল।’

প্রসঙ্গত, সংগীতের দীর্ঘ ক্যারিয়ারে অসংখ্য জনপ্রিয় গান উপহার দিয়েছেন রবি চৌধুরী। গান করেছেন সিনেমাতেও। সর্বশেষ তাঁর গাওয়া ‘জাতীয় বেয়াদব’ শিরোনামের একটি গান প্রকাশ হয়েছে। কণ্ঠ দেওয়ার পাশাপাশি এ গানের কথা ও সুর করেছেন শিল্পী নিজেই। আর সংগীতে ছিলেন অপু রায়হান।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0