বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

আলাউদ্দীন আলীর সুরে সেই সত্তর দশকের শুরু থেকে গাইলেও হিট গানের দেখা পেতে আট বছর লেগে যায়। ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’র ‘আছেন আমার মোক্তার’। গাজী (মাজহারুল আনোয়ার) ভাইয়ের লেখা এই গানটি আমাদের দুজনের প্রথম হিট গান। গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছিলাম ১৯৭৬ সালে। এই গানের স্কেল যেমন খুবই উঁচু, নিচের দিকেও তেমনি। স্বরগ্রামের বিস্তৃতিটা অনেক বেশি। আমি তখন বলছিলাম, এত ওপরে আমি পারব না, একটু নিচে নামাও আলাউদ্দীন। সে নাছোড়বান্দা, ‘না, আপনি পারবেন। এটাই করেন।’ বেশ কষ্ট হয়েছিল। সে শিল্পীকে বুঝতে পারত এবং তার কাছ থেকে সর্বোচ্চটা আদায়ের কৌশলও জানত। আরেকবার আমজাদ হোসেনের ‘আদরের সন্তান’ সিনেমায় ‘আমার জীবনে আর নেই কোনো আশা’ গানের রেকর্ডিং করছি। রেকর্ড করতে রাত ১২টা, ১টা, ২টা বেজে যায়, কিছুতেই ছাড়ে না। আমি বলি, এইবার ছাড়ো। আলাউদ্দীন বলে, ‘না। আমার কান্না না পাওয়া পর্যন্ত আপনাকে ছাড়ব না।’ আমজাদও তাই বলল। শেষ পর্যন্ত মনে হয়, রাত তিনটায় ওদের কান্না পেল, আমি ছাড়া পেলাম। ওর নিজের গায়কিও চমৎকার ছিল। যদিও গাইত না, যে দু-একটা গেয়েছে, চমৎকার। ‘আছেন আমার মোক্তার’ গানটার পর দুজনই পরিচিতি পাই। গানটি চুম্বকের মতো কাজ করে ওই সময়। এই গানের পর টানা তিনবার আমি, আলাউদ্দীন আলী, সাবিনা ইয়াসমীন সংগীতে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করি।

default-image

অসুস্থ হওয়ার পর আলাউদ্দীন যখন সাভার সিআরপিতে ভর্তি ছিল, আমি ও সাবিনা দুজনই গেলাম। সেটাই আমাদের শেষ দেখা। এরপরে কথা হয়েছে কিন্তু দেখা হয়নি। পরের দিকে অবশ্য আর কথা বলতেও পারত না। জড়িয়ে যেত।

গানের সুর ও সংগীত পরিচালনার ব্যাপারে আলাউদ্দীন আলী অত্যন্ত সিরিয়াস ছিল। যখন সুর করতে বসত, মনে হতো অন্য এক জগতে প্রবেশ করেছে। তার তৈরি গানগুলো আপাতদৃষ্টিতে সহজ মনে হয়, তবে সহজ নয়। তার কম্পোজিশনে গাওয়াটা কিন্তু সহজ নয়। কিন্তু শ্রোতারা যখন তার তৈরি গান শোনেন, মনে হয় সহজ। এই কঠিনকে সহজ করার এক অদ্ভুত অসাধারণ ক্ষমতা ওর ছিল।

default-image

অল্প কথায় আলাউদ্দীন আলীকে মূল্যায়ন করা মুশকিল। তবে এটুকু বলতে পারি, আমাদের চলচ্চিত্রের সংগীতে নতুন ধারার প্রবর্তক। রাগসংগীত, লোকসংগীত, মূলধারার বাংলা গান এবং পাশ্চাত্য সংগীত—সবকিছুর সংমিশ্রণে নতুন এক ধারা তৈরি করেছে, যা তার নিজস্ব। এ জায়গায় সে অদ্বিতীয় এবং অসাধারণ প্রতিভার অধিকারী। জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত যত গান তৈরি করেছে, কোনোটাই ফেলনা যায়নি। কমবেশি সব গানই শ্রোতার হৃদয়ে গেঁথেছে। তার গান সময়কে অতিক্রম করেও গেছে।

অনুলিখন: মনজুর কাদের

গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন