বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

১৯৯৪–৯৫ সালের দিকে হাসন রাজা উৎসবে হুমায়ূন আহমেদকে প্রধান অতিথি করে নিয়ে যান সেলিম চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘সেখানে তিনি আমার গাওয়া বেশ কিছু গান শোনেন। যেমন “মরিলে কান্দিস না আমার দায়”সহ আরও বেশ কিছু গান শুনে মুগ্ধ হন। এরপর তাঁর ঢাকার বাসায় আমাকে আমন্ত্রণ জানান। সে রকম একটা অনুষ্ঠানে “আইজ পাশা খেলব রে শ্যাম” গানটা গাইলাম আমি। ওই অনুষ্ঠানেই তিনি আমাকে ৮–১০ বার গানটা গাইতে বললেন। গানটা তিনি রেকর্ড করে রাখলেন। পরে এই গানটাই “ওইজা বোর্ড” নাটকে ব্যবহার করলেন।’

default-image

সেলিম চৌধুরীকে দিয়ে হাসন রাজার ১৩টা গান করিয়েছিলেন হুমায়ূন আহমেদ। নুহাশ চলচ্চিত্রের ব্যানার থেকে সেগুলো প্রকাশিত হয়েছিল। তাঁর ‘দুই দুয়ারি’, ‘চন্দ্রকথা’, ‘শ্যামল ছায়া’ ছবিগুলোতে গান করিয়েছিলেন শিল্পীকে দিয়ে। গান করেছিলেন বেশ কয়েকটি নাটকে। ‘ঘেটুপুত্র কমলা’ ছবির জন্য ‘সোয়া উড়িলো’সহ আরও একটি গান সংগ্রহ করে দিয়েছিলেন সেলিম চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘তাঁর সঙ্গে যখন কাজ শুরু করি, তত দিনে মার্কেটে আমার তিনটি অডিও ক্যাসেট। বিদেশে গিয়ে গান করে এসেছি। কিন্তু পরিচিতি তেমনটা পাইনি। স্যারের সঙ্গে কাজ শুরু করার পর অন্য রকম এক পরিচিতি পেলাম। “আইজ পাশা” গানটা হিট করার পর তো আমি রীতিমতো জনপ্রিয় শিল্পী। হাসন রাজার গান করার পর শিল্পী হিসেবে আমার যে ব্র্যান্ডিং, সেটা তো তাঁরই করা। আসলে কোন আর্টিস্টকে দিয়ে কী করাতে হবে, সেটা তিনি খুব ভালো বুঝতেন।’

গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন