default-image
নব্বইয়ের দশকের জনপ্রিয় ব্যান্ড তারকা হাসান। বেশ কিছুদিন ধরে সেই অর্থে তিনি নেই সংগীতাঙ্গনে। গতকাল ছিল তাঁর জন্মদিন। জানালেন, নতুন করে ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছেন তিনি। জন্মদিনে কথা হয় তাঁর সঙ্গে।
বিজ্ঞাপন

শুভ জন্মদিন। কেমন আছেন? কীভাবে কাটাবেন আজ (সোমবার) দিনটা?

ধন্যবাদ। ভালোই আছি। মহামারির ভেতর জন্মদিন উদ্‌যাপন করা হবে না। স্বাভাবিক দিনের মতোই কাটছে।

বেশির ভাগ সময় কীভাবে কাটান এখন?

আর সব মিউজিশিয়ানের মতোই এখন ঘরবন্দী কাটাতে হচ্ছে। কাজের তেমন গতি নেই। এমনিতে বাসায় বসে যা করা যায়, সেসব করছি।

নতুন গান করছেন?

প্রস্তুতি চলছে।

default-image

ইউটিউবে আপনার এত গান, অথচ আপনি নেই কেন? এখানে সরব হবেন না?

দেখি, এখনো কিছু ভাবিনি। নতুন উদ্যমে, নতুন করে মঞ্চে, সংগীতাঙ্গনে ফেরার পরিকল্পনা আছে।

আপনার কি সেসব দিনের কথা মনে পড়ে, যখন আপনি ভীষণ জনপ্রিয় ছিলেন, আপনাদের প্রচুর অ্যালবাম বিক্রি হতো, অনেক তরুণ আপনার স্বর নকল করে গাইতেন?

শুধু আমি কেন, নব্বইয়ের ওই সময় সব মিউজিশিয়ানের জন্য ছিল শ্রেষ্ঠ সময়। সময়টা সবাই মিস করি। ওই দিন হয়তো আর ফিরবে না।

বিজ্ঞাপন
default-image

সংগীতজীবনের সাফল্যের জন্য যদি কাউকে ধন্যবাদ বা কৃতজ্ঞতা জানাতে হয়, কার কথা বলবেন?

আমরা ওয়েস্টার্ন মিউজিক শুনে গানবাজনা শুরু করেছিলাম। বাংলায় ব্যান্ডের তেমন কিছু ছিল না। আমাদের সামনে ছিল মাইকেল জ্যাকসন। কৃতজ্ঞতা জানালে বিদেশি ওই শিল্পীদেরকেই জানাতে হয়। তাঁরাই আমাদের ব্যান্ডের গান করার অনুপ্রেরণা জুগিয়েছেন।

আপনাদের ব্যান্ড আর্কের অবস্থা কী? আপনি ফিরবেন বলছেন, একক শিল্পী হিসেবে, নাকি দল আর্ককে নিয়ে?

আর্ক আছে, আর্ক থাকবে আজীবন। আমি ফিরব গান নিয়ে, একক বা ব্যান্ড বলে কিছু নেই।

গান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন